২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

অ্যাকাউন্টের সুরক্ষায় নতুন ফিচার নিয়ে এলো ইমো

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

অ্যাসিমেট্রিক ক্রিপ্টোগ্রাফি প্রযুক্তি ব্যবহার করে সম্প্রতি ‘পাসকিজ’ ফিচার উন্মোচন করেছে তাৎক্ষণিক যোগাযোগে জনপ্রিয় প্ল্যাটফর্ম ইমো। এর ফিচারের মাধ্যমে সর্বোচ্চ মানসম্পন্ন ও নিরাপদ সুরক্ষিত ব্যবস্থা নিশ্চিত করা সম্ভব হবে, যা ইমো ব্যবহারকারীদের আরও স্বাচ্ছন্দ্যদায়কভাবে মুখমণ্ডল, আঙুলের ছাপ ও পিন ব্যবহার করে অ্যাকাউন্ট আনলক করার সুযোগ করে দিবে।পাসকিজ ফিচারের মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা পাসওয়ার্ড ছাড়াই অ্যাপে লগ ইন করতে পারবেন। ব্যবহারকারীরা এখন বায়োমেট্রিক সুবিধা, যেমন: ফিঙ্গারপ্রিন্ট, ফেস রিকগনিশন অথবা পিন ব্যবহার করে অ্যাকাউন্ট আনলক করতে পারবেন। সহজ, দ্রুত ও আরও সুরক্ষিত উপায়ে অ্যাপ ব্যবহার করার ক্ষেত্র তৈরির মাধ্যমে নিরবচ্ছিন্ন অথেনটিকেশন প্রক্রিয়ার ক্ষেত্রে নতুন মানদণ্ড স্থাপন করেছে ইমোর পাসকিজ ফিচার। ইমোতে লগ ইন করার সময় এ ফিচার ব্যবহারে ব্যবহারকারীরা তাদের বায়োমেট্রিক তথ্য ব্যবহার করতে পারবেন। এ তথ্য অ্যাপের লগ ইন সার্ভিস জানতে পারবে না; যা নিশ্চিত করবে ব্যবহারকারীর গোপনীয়তা ও লগ ইন প্রক্রিয়াকে করে তুলবে আরও সহজ। অত্যাধুনিক অ্যাসিমেট্রিক ক্রিপ্টোগ্রাফি প্রযুক্তির ফলে অনাকাঙ্ক্ষিত ওয়েবসাইট ও সোশ্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং স্ক্যামের ক্ষেত্রে ব্যবহারকারীরা পাসকিজ সংশ্লিষ্ট প্রতারণার থেকে সুরক্ষিত থাকতে পারবেন।

এছাড়াও, এ প্রযুক্তিতে ফিঙ্গারপ্রিন্ট ও ফেসিয়াল রিকগনিশন ব্যবহার করে ব্যবহারকারীর পরিচয় নিশ্চিত করা হয়; তাই, ব্যবহারকারীদের সুরক্ষা সংক্রান্ত উদ্বেগ কমাতেও ভূমিকা রাখবে সম্প্রতি উন্মোচিত হওয়া ইমোর এ ফিচার।

পাসকিজ ফিচার ব্যবহারের মাধ্যমে শুধুমাত্র লগ ইন প্রক্রিয়া ঝামেলাবিহীনই হবে না, পাশাপাশি লগ ইনের ক্ষেত্রে সেকেন্ডারি অথেনটিকেশনের প্রয়োজনীয়তাও দূর হবে। এছাড়াও, এ ফিচার নিরবিচ্ছিন্ন যোগাযোগ প্রক্রিয়ার নতুন মাত্রা যুক্ত করবে – ব্যবহারকারীদের আর পাসওয়ার্ড মুখস্থ রাখতে হবে না এবং দেশের বাইরেও এসএমএস কোড পাওয়ার নিয়ে দুশ্চিন্তা করতে হবে না।

বৈশ্বিকভাবে অনেক প্রতিষ্ঠান এসএমএস-ভিত্তিক ক্লান্তিকর টু-ফ্যাক্টর অথেকটিকেশনের ঝামেলা দূর করতে পাসকিজ প্রযুক্তি ব্যবহার করছে। নতুন এ ফিচার উন্মোচনের মাধ্যমে বৈশ্বিক এ পরিবর্তনে যুক্ত হয়েছে ইমো এবং বৈশ্বিক যোগাযোগে নতুন দিগন্ত উন্মোচনে ভূমিকা রাখছে।

সর্বশেষ