২৩শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

আগৈলঝাড়ায় স্বামীকে ফাঁসাতে ভ্রুণ হত্যা করে ফ্রিজে রাখলো স্ত্রী!

শামীম আহমেদ :: স্বামীকে ফাঁসাতে নিজের গর্ভের চার মাস বয়সের ভ্রুণ হত্যা করে অন্যের ফ্রিজে রেখেছিলো স্ত্রী। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলেও এ ঘটনায় কাউকে আটক করা হয়নি। ঘটনাটি জেলার আগৈলঝাড়া উপজেলার বেলুহার গ্রামের।

জানা গেছে, ওই গ্রামের সিরাজ ভূঁইয়ার কন্যা সুমাইয়া আক্তারের সাথে পার্শ্ববর্তী গৌরনদী উপজেলার বিল্বগ্রাম এলাকার বাসিন্দা সাত্তার ঘরামীর পুত্র জামাল ঘরামীর গত তিন বছর পূর্বে সামাজিকভাবে বিয়ে হয়। সম্প্রতি সময়ে দাম্পত্য কলহের কারণে অন্তঃস্বত্তা সুমাইয়া তার বাবার বাড়ি চলে আসে।

সুমাইয়া আক্তার (২১) জানান, বাবার বাড়িতে আশ্রয় নিয়ে স্বামীর সাথে অভিমান করে ওষুধ সেবনের মাধ্যমে নিজ গর্ভের সন্তানের ভ্রুণ নষ্ট করার পর মৃত অবস্থায় সে ওই ভ্রুণ প্রসব করে। পরবর্তীতে ভ্রুনটি একটি প্লাস্টিকের কৌটার ভিতরে রেখে গত ২০দিন পূর্বে পাশের বাড়ির আব্দুর রশিদ ভূঁইয়ার ফ্রিজে রাখে সুমাইয়া। বুধবার সন্ধ্যায় আব্দুর রশিদ ভূঁইয়ার কণ্যা ফ্রিজ পরিস্কার করতে গিয়ে প্লাস্টিকের কৌটা খুলে ভিতরে ভ্রুণ দেখতে পায়। বিষয়টি তাৎক্ষনিক এলাকায় চাউর হয়।

এলাকাবাসী বলেন, গর্ভের সন্তান বা ভ্রুণ নষ্ট করা আইনত অপরাধ। তারপরেও স্বামীকে ফাঁসাতে সেই ভ্রুণ অন্যের ফ্রিজে রাখা হয়েছে। বিষয়টি জানাজানির পর কৌশলে সুমাইয়া ওই প্লাস্টিকে কৌটাটি গায়েব করে ফেলেছে।

গর্ভের ভ্রুণ হত্যাকারী সুমাইয়া বলেন, বর্তমানে আমার স্বামী আমাকে ভরণ-পোষণ না দেওয়ার কারনে আমি আমার গর্ভের সন্তান নষ্ট করতে বাধ্য হয়েছি। এরপর ওই ভ্রুণটিকে আমি আদালতে হাজির করার উদ্দেশ্যে পাশের বাড়ির ফ্রিজে রেখেছিলাম।

বৃহস্পতিবার সকালে আগৈলঝাড়া থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ মাজহারুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে তাৎক্ষনিক পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। পুরো ঘটনার তদন্ত করে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’’

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ