২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

আগৈলঝাড়ায় স্বামী-শাশুড়ির অত্যাচারে সইতে না পেরে গৃহবধূর আত্মহত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক ::: বরিশালের আগৈলঝাড়ায় স্বামী-শাশুড়ির অত্যাচার সইতে না পেরে এক সন্তানের জননী আত্মহত্যা করেছে। পুলিশ গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করেছে। মৃত্যুর পরেই বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছে স্বামী। এ ঘটনায় স্বামী ও শাশুড়িকে অভিযুক্ত করে গৃহবধূর মা থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

শুক্রবারবার সন্ধ্যার পরে স্বামীর বাড়ি থেকে ওই গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছেন পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মাজহারুল ইসলাম। এর আগে ওই দিন বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু হয়।

ওসি (তদন্ত) মাজহারুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে তিনিসহ অফিসার ও ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে যান। সেখানে গিয়ে ওই গৃহবধূর (মিতালী) লাশ উদ্ধার করেন তিনি। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তর জন্য লাশ থানায় নিয়ে আসেন।

শুক্রবার রাতে গৃহবধূর মা ফুলমারা হালদার তার মেয়ে মিতালীকে মারধরর পরে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে স্বামী মিন্টু বৈদ্য ও তার মা পুস্প রানীকে অভিযুক্ত করে পেনাল কোড ৩০৬ধারায় থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

শুক্রবার আত্মহত্যা প্রতিরোধ দিবসে উপজেলার আস্কর গ্রামের অমৃত হালদারের বিধবা স্ত্রী ও মিতালীর মা ফুলমালা হালদারের থানায় দায়ের করা মামলা ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে- উপজেলার থানে্বেরকাঠি গ্রামের নির্মল বৈদ্যর ছেলে মিন্টু বৈদ্যর সাথে ১০বছর আগে গ্রামের মিতালীর বিয়ে হয়। দাম্পত্য জীবনে তাদের ছয় বছরের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। মিতালীর নেশাখোর স্বামী মিন্টু কোন কাজ কর্ম না করে বরং নেশার টাকার জন্য স্ত্রীকে মারধর করে আসছিলো। একপর্যায়ে বিভিন্ন এনজিও ও স্থানীয় মহাজনদের কাছ থেকে চড়া সুদে টাকা এনে তা পরিশোধ না করতে পেরে ভারত পালিয়ে যায় মিন্টু। সেখানে অবস্থানের সময় অন্য মেয়ের সাথে সম্পর্কে জড়িয়ে পরে মিন্টু। দশ মাস ভারতে থেকে সম্প্রতি বাড়ি ফেরে মিন্টু। মিন্টুর ঋণের টাকার কিস্তি দেয়ার জন্য মিতালীকে চাপ দেয়া ও মারধর করতো মিন্টু। ভারত থেকে বাড়িতে ফিরেও কোন কাজ কর্ম না করায় নেশাখোর স্বামী মিন্টুর নেশার টাকার যোগান, ঋণের কিস্তি টাকা পরিশোধে অনিহা প্রকাশ করা ও পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় মিতালীকে মারধর করে আসছিলো মিন্টু। আর তাতে উস্কানী যোগান দিতেন মিতালীর শাশুড়ি পুস্প রানী।

ঘটনার দিনও কিস্তির টাকা এনে দিতে বললে মিতালী তা অস্বীকার করায় স্বামী ও শাশুড়ির সাথে ঝগড়ার একপর্যায়ে অশ্লীল ভাষায় মিতালীকে গালিগালাজ করায় তাদের প্ররোচণায় আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয় মিতালী।

শনিবার সকালে মিতালীর লাশ বরিশাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।’

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ