১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
আমি বাচতে চাই, দয়া করে আমাকে বাঁচান- শিশু ইউসুফ এবার ভোল পাল্টালেন হাফিজুর রহমান সিদ্দিকী পিরোজপুরে আন্তঃ গরু চোর দলের ৪ সদস্য গ্রেফতার চল্লিশ কাহনিয়া প্রবাসী কল্যাণ সমিতির মানবিক কাজে মুগ্ধ গ্রামবাসী বরিশালে বাস-মোটরসাইকেল মুখোমুখি সংঘর্ষে ২ কিশোর নিহত পটুয়াখালীতে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানে ঢুকে ভাংচুর ও লুটপাটের অভিযোগ অধ্যক্ষ নজরুল ইসলামের ২৯তম মৃত্যুবার্ষিকীতে এসটিএস হাসপাতালের ২ দিন ব্যাপী ফ্রী মেডিকেল ক্যাম্প করোনায় আরও ৩৮ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১ হাজার ৯০৭ ভোলায় মহানবী (সা.)-কে নিয়ে কটূক্তি, পূজা পরিষদের সভাপতি আটক ইন্দুরকানীতে নয় বছরেও সেতুতে নেই ল্যাম্পপোষ্ট, পথচারীদের ভোগান্তি

আদালতের নিষেধাজ্ঞা উপক্ষো করে পটুয়াখালীতে বিরোধীয় জমিতে স্থাপনা নির্মানের উদ্যোগ

পটুয়াখালী প্রতিনিধি ঃ পটুয়াখালী সদর উপজেলার পশ্চিম হেতালিয়া গ্রামে আদালতের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে বিরোধীয় জমিতে স্থাপনা নির্মানের উদ্যোগ নেয়ার অভিযোগ ওঠেছে। একটি হিন্দু পরিবার এ নিয়ে সদর থানায় মিথ্যা অভিযোগ এনে একটি সাধারন ডায়েরি করেছে বলেও দাবি প্রতিপক্ষের। স্থানীয়রা জানায়, জমি-জমা নিয়ে পশ্চিম হেতালিয়া গ্রামের মোঃ কবির হোসেন বিশ্বাস গংদের সাথে সুশান্ত পাল গংদের দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছে। এ নিয়ে আদালতে ২০৬/২০০৫ নং দেওয়ানী মামলা হলে পটুয়াখালী সিনিয়র সহকারি জজ আদালতের তৎকালীন বিচারক মোঃ শহীদুল্লাহ ওই জমিতে ২০০৮ সালের ৬ জুলাই অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার আদেশ দেন এবং মামলাটি বর্তমানে বিচারাধীন। কিন্তু আদালতের এ নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে গত ২৯ আগষ্ট রবিবার সুশান্ত পাল তাদের গোত্রীয় কিছু লোকজন নিয়ে ওই জমিতে গ্রামীণ ব্যাংকের কেন্দ্র ঘরের সাথে একটি টিনের চালা দেয়ার চেষ্টা করলে কবির হোসেন গং তাদের বাধা দিলে তারা কবির হোসেন ও তার লোকজনদের অকথ্য ভাষায় গালাগালাজ করেন। পরে সুশান্ত বাদি হয়ে কবির হোসেনসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে পটুয়াখালী থানায় অভিযোগ দিয়ে একটি মিথ্যা জিডি দায়ের করে। আসামিরা তাদের ঘরে অনধিকার প্রবেশ করে ঘর কুপিয়ে ও ভাংচুর করে। তাদের মারধর করা হয় বলেও জিডিতে উল্লেখ করা হয়। কিন্তু স্থানীয়রা জানায় তাদের মধ্যে কোন মারধরের ঘটনা ঘটেনি।ঘটনাস্থলে উপস্থিত সুনিল চন্দ্র পাল জানান, তারা কবির হোসেন গংদের কাছে বিরোধীয় জমি বিক্রি করেছেন। জমিতে কেন্দ্র ঘরের সাথে চালা দেয়া নিয়ে কোন মারধরের ঘটনা ঘটেনি।অভিযোগকারির চাচী মালতী বানী পাল জানান, কেন্দ্র ঘরের সাথে চালা দেয়া নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়েছে তবে মারধরের কোন ঘটনা ঘটেনি। জমি নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছে। মামলাও আছে।নাসির উদ্দিন বিশ্বাস জানান, আমি ঘটনার দিন চিকিৎসা নিতে ঢাকায় ছিলাম এবং পরদিন সোমবার সকালে পটুয়াখালীতে ফিরে এসেছি। তবুও আমাকে মিথ্যাভাবে ওই জিডিতে আসামি করা হয়েছে। তাদের অভিযোগ সম্পুর্ন মিথ্যা ও বানোয়াট।কবির হোসেন বিশ্বাস জানান. এ জমি আমরা সাব কবলা দলিল মূলে কিনেছি। এ নিয়ে আদালতে মামলা চলমান এবং নিষেধাজ্ঞা বলবৎ রয়েছে। তবুও প্রতিপক্ষ এ জমিতে নানা ধরনের বিরোধ সৃষ্টির পায়তারা চালাচ্ছে।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ