২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম

আমতলীতে পাওনা টাকা চাওয়ায় সংঘর্ষ, নারীসহ আহত ৮

আমতলী প্রতিনিধি :: পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে নারীসহ ৮ জন আহত হয়েছে। গুরুতর আহতদের বরিশাল ও আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনা ঘটেছে বুধবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে আমতলী উপজেলার পুর্ব চিলা গ্রামে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

জানাগেছে, উপজেলার পুর্ব চিলা গ্রামের রফিক মৃধার ছেলে শান্ত মৃধা চাচাতো ভাই তুহিন মৃধার কাছ থেকে গত তিন মাস পূর্বে দুই হাজার এক’শ টাকা ধার নেয়। ওই টাকা তিন মাসেও পরিশোধ করেনি শান্ত। উল্টো তিনি টাকা নেয়ার কথা অস্বীকার করে। এ নিয়ে স্থানীয়ভাবে গত একমাস পূর্বে শালিস বৈঠক হয় এমন দাবী তুহিন মৃধার। তুহিন মৃধা বুধবার রাতে পাওনা টাকা শান্ত মৃধার কাছে চাইতে যায়। কিন্তু তিনি টাকা দিতে অস্বীকার করেন। এ নিয়ে তুহিন মৃধা ও শান্ত মৃধার মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায় উভয় পক্ষ দেশীয় অস্ত্র দিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। দু’পক্ষের সংঘর্ষে নারীসহ ৮ জন আহত হয়। গুরুতর আহত সাকিল মৃধা, রফিক মৃধা, শান্ত মৃধা, দুলালী ও মাহিনুরকে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালের চিকিৎসক সংঙ্কটজনক অবস্থায় সাকিল মৃধাকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে নেয়া হয়। অপর আহত ছালাম মৃধা, তুহিন মৃধা ও আলফান মৃধাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

তুহিন মৃধা বলেন, গত তিন মাস পুর্বে শান্ত মৃধা আমার কাছ থেকে দুই হাজার এক’শ টাকা ধার নেয়। ওই টাকা দিতে তিনি অস্বীকার করেন। এ টাকা চাইতে গেলে আমার পরিবারের চারজনকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করেছে। আমি এ ঘটনার বিচার চাই।

শান্ত মৃধার বড় ভাই মামুন মৃধা বলেন, তুহিন মৃধা ও তার লোকজন আমার পরিবারের দুই নারীসহ চারজনকে রড দিয়ে পিটিয়ে আহত করেছে।

আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার মোঃ মোর্শেদ আলম বলেন, গুরুতর আহত সাকিল মৃধাকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অপর আহতদের ভর্তি করে যথাযথ চিকিৎসা দেয়া হয়।

আমতলী থানার ওসি (তদন্ত) রনজিত কুমার সরদার বলেন, অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ