২০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
ইরানের প্রেসিডেন্ট, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও গভর্নর নিহ*ত নিশানবাড়ীয়া ইউপি চেয়ারম্যানকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা লন্ডনে যুদ্ধবিরোধী বিক্ষোভ: ফিলি*স্তিনে গ*ণহ*ত্যা বন্ধের দাবী দেশের বীমা খাতে দৃষ্টান্ত স্থাপন করছে এনআরবি ইসলামিক লাইফ ইন্স্যুরেন্স ২৯ মে সারাদিন লালমোহন উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে কাপ পিরিচ মার্কায় ভোট দিন আবারও বাড়ল স্বর্ণের দাম সৌদিতে ২৮৭৬০ বাংলাদেশি হজযাত্রী পৌঁছেছেন, দুইজনের মৃত্যু জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ১ম বর্ষে ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীদের ওরিয়েন্টেশন অনুষ্ঠিত উপজেলা নির্বাচন : দ্বিতীয় ধাপে ৪৫৭ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন সোমবার থেকে ৬৫ দিন সমুদ্রে মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা

আমতলীতে ‘সময়’ ক্লিনিকে বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে রোগীর মা মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে!

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

হারুন অর রশিদ, আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি।
বরগুনা আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের গেট সংলগ্ন বেসরকারী ‘সময়’ মেডিকেয়ার এন্ড হসপিসে চিকিৎসাধীন এক বছর বয়সী শিশু সুমাইয়ার মা ফাতেমা বেগম (২২) ছাদে কাপড় শুকাতে গিয়ে বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন। গুরুত্বর অবস্থায় চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে আজ (মঙ্গলবার) সকাল ১১টায়।

জানাগেছে, উপজেলার চাওড়া ইউনিয়নের তালুকদার বাজার এলাকার হিরন মৃধার এক বছর বয়সী কন্যা সুমাইয়ার পা ভেঙ্গে যাওয়ায় গত ১২দিন পূর্বে চিকিৎসকের পরামর্শে তাকে ওই ক্লিনিকেই ভর্তি করেন স্বজনরা। সেই থেকে মেয়ে সুমাইয়ার সাথেই ওই ক্লিনিকেই অবস্থান করছেন মা ফাতেমা বেগম। আজ (মঙ্গলবার) ১১টার দিকে সুমাইয়ার মা ফাতেমা বেগম ওই ক্লিনিকের ছাদে কাপড় শুকাতে গিয়ে অসাবধানতা বশতঃ ছাদের পাশে থাকা পল্লী বিদ্যুতের সার্ভিস তারে বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে মুখমন্ডল ও শরীরের কিছু অংশ পুড়ে গুরুত্বর আহত হয়। ক্লিনিকের লোকজন ও স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে ওই ক্লিনিকেই চিকিৎসা দেন। বর্তমানে ফাতেমা বেগম ভারসাম্যহীন হয়ে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন। তিনি তার শিশু কন্যা সুমাইয়াকে ছাড়া কাউকে চিনতে পারছেন না বলে জানায় তার স্বজনরা।

তার অবস্থা গুরুত্বর হওয়ায় আজ সন্ধ্যার পরে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাপসপাতালে প্রেরণ করেন ক্লিনিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাঃ ইমদাদুল হক চৌধুরী।

ফাতেমার বাবা মোঃ নুরুল ইসলাম বলেন, সকালে এ ঘটনা ঘটলেও ক্লিনিকের লোকজন আমার মেয়েকে একটি মাত্র স্যালাইর ছাড়া আর কোন ঔষধপত্র দেয়নি। আমার নাতি ছাড়া আমার মেয়ে আমাদের কাউকে চিনতে পারছেনা। তিনি আরো বলেন, আমি গরীব মানুষ মেয়ে নিয়ে এখন কোথায় যাবো। ক্লিনিকের লোকজন এখন আমার নাতি সুমাইয়ার নাম কেঁটে আমাদেরকে ক্লিনিক ছেড়ে যেতে বলছেন।

ওই ক্লিনিকের চিকিৎসক ডাঃ এমদাদুল হক চৌধুরী মুঠোফোনে বলেন, বিদ্যুৎপৃষ্ট হওয়ার পরে আহত ফাতেমা বিদ্যুতের ঝাকুনিতে ছাদের উপরে পড়ে যাওয়ায় তার মাথার পিছনের অংশ ফুলে গেছে। আমার ধারণা এতে তার মাথার মধ্যে রক্তক্ষরণ হতে পারে। এজন্য তাকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে প্রেরণ করেছি।

বেসরকারী ক্লিনিক ‘সময়’ মেডিকেয়ার এন্ড হসপিসের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মোঃ রাকিব চৌধুরী রাজু মুঠোফোনে বলেন, বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে গুরুত্বর আহত রোগীর মা ফাতেমা বেগমকে আমাদের অর্থায়নে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য প্রেরণ করা হয়েছে।

সর্বশেষ