১৯শে আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

আমতলীতে স্বামীর ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন স্ত্রী!

অনলাইন ডেস্ক ::: স্বামী সাইদুর রহমান মাসুদের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আদালতে স্ত্রী মমতাজ আক্তার লিমার দায়ের করা মামলা তুলে না নিলে এসিড মেরে ঝলসে দেয়া এবং গুলি করে হত্যার হুমকি দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শনিবার ভুক্তভোগী মমতাজ আক্তার লিমা আমতলী সাংবাদিক ইউনিয়ন কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে লিখিত এমন অভিযোগ দেন। স্বামীর অব্যাহত জীবন নাশের হুমকিতে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন তিনি। আমতলী পৌর শহরের ফায়ার সার্ভিস এলাকায় ঘটনা ঘটে।

লিখিত অভিযোগে তিনি জানান, ২০১৫ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি মমতাজ আক্তার লিমার সাথে আমতলী উপজেলার বাজারখালী গ্রামের মৃত্যু আব্দুর রশিদ হাওলাদারের ছেলে সাইদুর রহমান মাসুদের বিয়ে হয়। বিয়ের সময় মাসুদ দক্ষিণ কোরিয়া যাওয়ার কথা বলে ১৫ লাখ টাকা যৌতুক নেন। ওই টাকা দিয়ে মাসুদ দক্ষিণ কোরিয়া চলে যান। দক্ষিণ কোরিয়া যাওয়ার পর থেকে মাসুম স্ত্রী লিমার খোঁজখবর নেয়া বন্ধ করে দেন। পরে আবারো মোবাইলে ৫ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। কিন্তু এত টাকা যৌতুক দিতে স্ত্রী লিমার পরিবার অস্বীকার করেন। এর পর থেকে গত তিন বছর স্ত্রীর সাথে সমস্ত যোগাযোগ বন্ধ করে দেন তিনি। নিরুপায় হয়ে স্ত্রী লিমা ২০১৯ সালের ১৩ অক্টোবর পটুয়াখালী নারী ও শিশু নির্যাতন আদালতে স্বামী সাইদুর রহমান মাসুদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। চলতি বছর ২১ মে স্বামী সাইদুর রহমাস মাসুদ দেশে আসেন। স্ত্রীর সাথে ঘর সংসার করবেন বলে ৫ সেপ্টেম্বর আদালতে অঙ্গিকার দিয়ে জামিনে নেন। জামিন নিয়েই স্ত্রীর লিমাকে মামলা তুলে নিতে চাপ দেন। মামলা তুলে না নিলে স্ত্রী লিমাকে এসিড মেরে ঝলসে দেয়া এবং গুলি করে হত্যার হুমকি দেন সাইদুর।

এদিকে বিয়ের পর স্ত্রী লিমার বাবা আব্দুল গনি হাওলাদার মেয়েকে আমতলী পৌরসভার ফায়ার সার্ভিস এলাকায় ৮ শতাংশ জমি ক্রয়ের জন্য ১২ লাখ দেন। ওই টাকা তার স্বামী সাইদুর রহমান নিয়ে যান। স্ত্রীর সাথে প্রতারণা করে গোপনে সাইদুল তার নামে চার শতাংশ জমি রেজিস্ট্রি করে নেন। ওই জমিতে লিমার বাবা ঘর নির্মাণ করে দেন। গত চার বছর ধরে ওই বাড়ি তালাবদ্ধ। কেউ ওই বাড়িতে বসবাস করছে না। কিন্তু ওই বাড়ির মালামাল স্ত্রী লিমা ও তার আত্মীয়-স্বজন চুরি করেছে মর্মে গত ৯ সেপ্টেম্বর আমতলী সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে স্বামী সাইদুর রহমান মামলা দায়ের করেছেন।

লিমা আরো অভিযোগ করেন, স্বামী মাসুদ তার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করছে। তার ভয়ে তিনি পালিয়ে বেড়াচ্ছেন।

শনিবার আমতলী পৌর শহরের ফায়ার সার্ভিস এলাকায় সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, ওই বাড়ির মূল ফটকে তালা দেয়া। বাড়ির চারিপাশে ঝোপঝাড়ে ভরপুর।

মমতাজ আক্তার লিমা বলেন, বিয়ের পর দক্ষিণ কোরিয়া যাওয়ার কথা বলে আমার পরিবারের কাছ থেকে সাইদুর রহমান মাসুদ ১৫ লাখ টাকা যৌতুক নেন। ওই টাকা দিয়ে তিনি দক্ষিণ কোরিয়া যান। দক্ষিণ কোরিয়া যাওয়ার পর থেকেই আমার খোঁজখবর নেয়া বন্ধ করে দেয়। এরপর আমার কাছে আরো ৫ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। কিন্তু আমার পরিবার এত টাকা দিতে অস্বীকার করেন। এরপর গত তিন বছর ধরে আমার খোঁজখবর নেয়া বন্ধ করে দেন। আমি নিরুপায় হয়ে পটুয়াখালী নারী ও নির্যাতন আদালতে বিচার চেয়ে মামলা দায়ের করি। বর্তমানে দেশে এসে ওই মামলা তুলে নিতে আমাকে চাপ সৃষ্টি করছে। মামলা তুলে না নিলে আমাকে এসিড মেরে ঝলসে দেয়া এবং গুলি করে হত্যার হুমকি দিচ্ছে। আমি তার ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছি।

তিনি আরো বলেন, আমাকে এবং আমার পরিবারকে হয়রানি করতে আমতলী আদালতে মিথ্যা চুরির মামলা দায়ের করে। প্রশাসনের কাছে আমি আমার ও আমার পরিবারের জীবনের নিরাপত্তা চাই।

এ ব্যাপারে সাইদুর রহমান মাসুদের সাথে যোগাযোগ করা হলে সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে তিনি কোনো মন্তব্য করতে রাজি নন বলে ফোন কেটে দেন।

এ বিষয়ে আমতলী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: শাহ আলম হাওলাদার বলেন, অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ