৬ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

আমতলী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অনাস্থা

আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি :: বরগুনার আমতলী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ¦ গোলাম সরোয়ার ফোরকানের বিরুদ্ধে ১০ টি অভিযোগ এনে অনাস্থা প্রস্তাব দিয়েছেন ১২ জন উপজেলা পরিষদ সদস্যরা। সোমবার ইউএনও মনিরা পারভীনের মাধ্যমে বরিশাল বিভাগীয় কমিশনারের কাছে এ অনাস্থা প্রস্তাব প্রদান করেন। এ ঘটনায় আমতলীতে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

জানাগেছে, গত বছর ৩১ মার্চ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আলহাজ্ব গোলাম সরোয়ার ফোরকান স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। ওই বছর ২৪ এপ্রিল বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে শপথ নেন। শপথ নেয়ার পর থেকেই তিনি উপজেলা পরিষদ পরিচালনায় বিভিন্ন ধরনে অনিয়ম করে আসছেন এমন অভিযোগ অনাস্থা প্রস্তাবকারী সদস্যদের। গত এক বছর চার মাসে তিনি খামখেয়ালীপনা, নিজে ইচ্ছা মাফিক পরিষদ পরিচালনা, অফিসের স্টেনো কাম টাইপিষ্ট আব্দুস ছালামের নামে সিপিসি দিয়ে প্রকল্পের টাকা আত্মসাৎ, প্রকল্পের কমিশন গ্রহন, ক্ষমতার অপব্যহার ও বিভিন্ন জাতীয় দিবসে অনুপস্থিতসহ ১০ টি অভিযোগ এনে তার বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব দেয়া হয়। সোমবার ইউএনও মনিরা পারভীনের মাধ্যমে বরিশাল বিভাগীয় কমিশনারের কাছে পৌর মেয়র, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও ৭ ইউপি চেয়ারম্যানসহ ১২ জন উপজেলা পরিষদ সদস্য এ অনাস্থা প্রস্তাব দেন। এ ঘটনায় আমতলীতে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

এ বিষয়ে আমতলী উপজেলা চেয়ারম্যান সমিতির সভাপতি সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ মোতাহার উদ্দিন মৃধা বলেন, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ¦ গোলাম সরোয়ার ফোরকান দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকেই বিভিন্ন অনিয়ম ও দুণীতি করে আসছেন। তিনি পরিষদ পরিচালনায় কোন সদস্যকে তোয়াক্কা করছেন না। তিনি তার ইচ্ছা মাফিক পরিষদ পরিচালনা করে অর্থ আত্মসাৎ করেছেন। তার এ সকল অনিয়মের বিরুদ্ধে উপজেলা পরিষদের ১২ জন সদস্য অনাস্থা প্রস্তাব দিয়েছেন। আমরা তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানাই।

আমতলী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব গোলাম সরোয়ার ফোরকান তার বিরুদ্ধে আনিত ১০টি অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, এ বিষয়টি আমি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। এটা আমার বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্র। এ বিষয়ে আমি আইনি সহায়তা নেব।

আমতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মনিরা পারভীন বলেন, গঠনতন্ত্র অনুসারে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব গোলাম সরোয়ার ফোরকানের বিরুদ্ধে ইউপি চেয়ারম্যানসহ পরিষদের ১২ সদস্যের স্বাক্ষরিত একটি অনাস্থা প্রস্তাব দিয়েছেন। আমি ওই অনাস্থা প্রস্তাব বিভাগীয় কমিশানারের কাছে পাঠানোর ব্যবস্থা করবো।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ