৫ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

আরো ফুলে-ফেপে ‍উঠছে যমুনার পানি ! নানা দুর্ভোগে বানভাসি মানুষেরা

সেলিম শিকদার, সিরাজগঞ্জঃ- উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও প্রবল বর্ষণের ফলে সিরাজগঞ্জে যমুনা নদীর পানি দ্রুতগতিতে বেড়েই চলেছে। নিম্নাঞ্চল সহ নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হয়ে বন্যা পরিস্থিতি দিন দিন অবনতি হচ্ছে।
সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী শফিকুল ইসলাম সুত্রে প্রাপ্ত তথ্যে অভ্যন্তরীণ নদ-নদীর পানি ব্যাপক ভাবে বৃদ্ধির ফলে যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে জেলার কাজিপুর পয়েন্টে বিপদসীমার ৫০ সেন্টিমিটার ও সিরাজগঞ্জ পয়েন্টে ৩৯ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।
জেলার কাজিপুর,সিরাজগঞ্জ সদর,বেলকুচি, শাহজাদপুর, চৌহালী উপজেলার নদীতীরবর্তী বিভিন্ন স্থানে ব্যাপক ভাবে নদীভাঙ্গনের ফলে শত শত বাড়িঘর,মসজিদসহ বিভিন্ন স্থাপনা যমুনা নদীগর্ভে বিলিন হয়ে গেছে।
সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার ৯ নং কালিয়া হরিপুর ইউপির বিয়ারাঘাট থেকে আদিবাসী পল্লী পর্যন্ত প্রায় সড়ে ৫ লাখ টাকা ব্যয়ে নবনির্মিত সড়কটি পানির চাপে ভেঙ্গে যাওয়ায় বিয়ারাঘাট,পাইকপাড়া,মোরগ্রাম,ঘোনাপাড়া,রামগাতিসহ বিভিন্ন এলাকা বন্যা কবলিত হয়ে পড়েছে। এসকল স্থানের নিম্ন আয়ের বহু পরিবার মানবেতর জীবন যাপন করছে। পানির চাপে জেলার শাহজাদপুর উপজেলার বড়াল নদীর রাউতারা স্থানে রিং বাঁধ ও কাঁচাসড়ক ভেঙ্গে গেছে ইতোমধ্যেই।
চৌহালী ও এনায়েতপুরে নদীভাঙ্গনের ফলে চোখের পলকে বাড়িঘর হারানো অসহায় মানুষেরা আশ্রয় হাড়িয়ে শিশু সন্তান ও গৃহপালিত গবাদিপশু নিয়ে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ,স্কুল,উঁচু সড়ক এমনকি খোলা আকাশের নিচে আশ্রয় নিয়ে চরম দুর্ভোগে সর্বস্ব হারানোর ক্ষতিগ্রস্ত মানুষেরা।
বন্যা কবলিত ভাটি অঞ্চল ও চরাঅঞ্চলের মানুষেরা একটু নিরাপদ আশ্রয়ের খোঁজে ঘরবাড়ি নিয়ে পারি জমাচ্ছে নিরাপদ স্থানে।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ