৩রা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
ভোলায় অনলাইন মার্কেটিং ও কমিউনিটি মিনি ফেয়ার ২০২২ অনুষ্ঠিত নৌকা মুক্তির সোপান, দেশের মানুষকে মুক্তি দিয়েছে নৌকা নির্ধারিত সময়ের পাঁচ ঘন্টা আগেই শুরু হলো রাজশাহীতে বিএনপির গণসমাবেশ জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা’র নবনির্বাচিত কেন্দ্রীয় পরিষদকে বরিশাল নেতৃবৃন্দের শুভেচ্ছা শেখ হাসিনা সরকার রাষ্ট্র ক্ষমতায় না এলে এদেশে কোন সম্প্রীতি থাকবে না আবারও এদেশে পাকিস্তানী পতাকা উ... জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা’র কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব হলেন বরিশালের মামুন-অর-রশিদ বরিশালে কর্মীদের জুতাপেটা করে শাসন করলেন ছাত্রলীগ নেতা জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা’র কেন্দ্রীয় কমিটিতে পুনরায় পদ পেলেন বরিশালের দুই সাংবাদিক "টাইমস ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ" ক্যাম্পাস জীবনের শেষ প্রান্তে জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা’র কেন্দ্রীয় কমিটি গঠন

উজিরপুরে জমি ভাগিয়ে নিতে শিক্ষকের কান্ড

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
উজিরপুরে ভুয়া ওয়ারিশ সনদপত্র দিয়ে জমির প্রকৃত মালিককে হয়রানির অভিযোগ উঠেছে।সুত্রে জানাযায় গুঠিয়া ইউনিয়নের গুঠিয়া মৌজায় প্রকৃত ওয়ারিশদের কাছ হতে জমি ক্রয় করেন মৃত আঃগনি মিয়ার পুত্র মোঃ ইউসুফ মিয়া।জমি ক্রয় করার পর হতে বিভিন্ন কৌশলে মোঃ ইউসুফ মিয়াকে হয়রানি করতে থাকে ইউনিয়নের নয়াবাড়ী গ্রামের মৃত ওয়াহেদ হাওলাদারের পুত্র গোলাম সরোয়ার টিপু। উক্ত ক্রয়কৃত জমি সঠিক ভাবে ভাগ বন্টনের দাবী জানিয়ে ২০২০সনের ৯জানুয়ারি গুঠিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বরাবর আবেদন করেন ইউসুফ মিয়া।যার মোকদ্দমা নং১৫১/২০২০।ইউনিয়ন পরিষদ’র গ্রাম আদালত উক্ত মোকদ্দমার ধার্য্য তারিখ রাখেন ২০২০ সনের ২৩ জানুয়ারি। গোলাম সরোয়ার টিপু গ্রাম আদালত অমান্য করিয়া গায়ের জোরে বিরোধীয় সম্পত্তিতে পাকা ইমারত’র কাজ শুরু করে। ইউসুফ মিয়া উজিরপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।উক্ত আবেদনে গুঠিয়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান স্বাক্ষর করেন।সুত্রে জানাজায় গোলাম সরোয়ার টিপু নিজের ক্রয়কৃত সম্পত্তি হালাল করতে গুঠিয়ার পাশ্ববর্তী মাধবপাশা ইউনিয়ন পরিষদকে ভূল তথ্যদিয়ে একখানা ওয়ারিশ সনদপত্র নেন যার নং৪১৮ তারিখ২০২০সনের ৬জুন।।উক্ত সনদ পত্রে নুরজাহান বেগম’র মাতা মৃত সাহেবজান বিবি উল্লেখ করা হয়েছে। নুরজাহান বেগমের প্রকৃত মাতা মৃত হাজেরা বেগম।এই মর্মে মাধবপাশ ইউনিয়ন পরিষদ হতে ২০২০সনের ২৫ জুলাই এক খানা ওয়ারিশ সনদ পত্র দেনযার নং৫১০।২০২০সনের ৩অক্টোবার এক আদেশে ৪১৮নং ওয়ারিশ সনদ পত্র খানা বাতিল ঘোষনা এবং৫১০নংওয়ারিশ সনদপত্র খানা সঠিক মর্মে আদেশ দেন মাধবপাশা ইউ পি চেয়ারম্যান মোঃ জয়নাল আবেদনীন হাওলাদার । সুত্রে আরো জানাযায় টিপু যে জমি দাবী করে ইউসুফের সাথে বিরোধ করছে তা অন্য জায়গায়।এ ব্যপারে ভুক্তভোগী মোঃ ইউসুফ মিয়া বলেন, “জমি ক্রয়ের পর নামজারি করে ভোগদখলে আছি। গোলাম সরোয়ার টিপু আমাকে নানা ভাবে হয়রানি করছে।সে গ্রাম আদালতকে অমান্য করিয়া আমার জমিতে জোর পূর্বক প্রবেশ করিয়া আমার সাইন বোর্ড ভাংচুর করছে।আমার বিরুদ্ধে হয়রানি মূলক ভাবে আদালতে মামলা দায়ের করছে। আমিও ন্যায় বিচার চেয়ে আদালতের দারস্থ হয়েছি।”এলকাবাসী জানায় টিপু পেশায় শিক্ষক হলেও আইন কানুনের তোয়াক্কা না করে দখল সন্ত্রাসীদের মতো আচরন করছে। বন্দর ব্যবসায়ীরা আরো জানায় টিপু ইউনিয়ন পরিষদকে ভুল তথ্যদিয়ছে এমন খবরে আমরা লজ্জা পেয়েছি।দেশবাসী একজন শিক্ষককে দিয়ে এমনটা প্রত্যাশা করেনা। এব্যপারে গোলাম সরোয়ার টিপুর সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেস্টাকরলে তার ব্যবহরত ০১৭২..২৬নাম্বারটি বন্দ পাওয়াযায়

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ