১৭ই মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

উজিরপুরে হাতুড়ে ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় ব্যবসায়ীর মৃত্যু

উজিরপুর প্রতিনিধি :: বরিশালের উজিরপুরে হাতুড়ে ডাক্তারের ভ‚ল চিকিৎসায় ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

নিহত’র পরিবার সুত্রে জানা যায়, উপজেলার জল্লা ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের পীড়েরপাড় গ্রামের মৃত নিত্যানন্দ সরকারের ছেলে কাঠমিস্ত্রি নিখিল সরকার(৩৬) কয়েকদিন ধরে জ্বর ও এলার্জি জনিত রোগে ভুগছিল। শনিবার (২৪ জুলাই) বিকেল সাড়ে ৫ টায় তাকে একই এলাকার মৃত যোগেশ মহুরির ছেলে পল্লি চিকিৎসক বাসুদেব মহুরি(৩৭) কে খবর দিয়ে বাড়ীতে আনে। এরপর ওই চিকিৎসক নিখিলকে ৪টি ইনজেকসন পুষ করে। তাৎক্ষনিক ভাবে তার মৃত্যু হয়। বিষয়টি স্থানীয়রা পুলিশকে অবহিত করলে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্ত’র জন্য বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে প্রেরণ করে।

এ ব্যাপারে নিহত’র মাতা পুতুল রানী সরকার(৭০) জানান- আমার ছেলেকে ইনজেকসন দিতে বারবার নিষেধ করার পরেও তা না শুনে ভূয়া ডাক্তার বাসুদেব মহুরি আমার ছেলেকে এক সাথে ৪টি ইনজেকশন দেয়। একারনেই তাৎক্ষনিক ভাবে আমার ছেলে মারা যায়। বাসুদেব আমার ছেলেকে ভুয়া চিকিৎসা দিয়ে মেরে ফেলেছে।

অভিযুক্ত বাসুদেব মহুরি জানান- আমি খবর পেয়ে তাৎক্ষনিক ভাবে ঘটনাস্থল গিয়ে নিখিলের জ্বর, এলার্জি ও স্বাষকষ্টসহ বিভিন্ন রোগ থাকায় কটসন, ইমিস্টাট, ইজরোলসহ ৪টি ইনজেকসন পুষ করি। আমি কোন ভূল চিকিৎসা করিনি। ইনজেকসন পুষ করার পরে কিছুক্ষন সুস্থ্য ছিল। এরপরে মারা গেলে আমার কি করার আছে।

এদিকে সাংবাদিকরা তার ডাক্তারের সনদ আছে কিনা তা প্রশ্ন করলে তিনি কৌশলে এড়িয়ে গিয়ে বলেন- আমি দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় চিকিৎসা দিয়ে আসছি। আমার কাছে প্রতিদিন বহু রোগী আসে। সবাই উপকৃত হয় তাই আমি এই পেশায় থেকে মানুষকে সেবা দিচ্ছি।

অপরদিকে নিহত’র স্ত্রী উর্মিলা সরকার কান্নার কন্ঠে বলেন- আমার স্বামীকে ভূয়া চিকিৎসা দিয়ে মেরে ফেলেছে বাসুদেব। এখন আমি আমার ২ শিশু নিলয় আর নিশীথকে কোথা থেকে খাবার আইন্না দিবো। আমাকে বিধবা করেছে ও সন্তানদের পিতৃহারা করেছে ওই চিকিৎসক। খুনির বিচার চেয়ে আকুতি করছেন তিনি।

স্থানীয়রা জানান, সনদ ছাড়া হাতুড়ে ডাক্তার বাসুদেব মহুরী লোকনাথ বাজারে ফার্মেসী দিয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ চিকিৎসার নামে সহজ সরল মানুষকে ধোকা দিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়।

উজিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ শওকত আলী জানান- বাসুদেব নামে রেজিস্ট্রিকৃত কোন ডাক্তার নেই। তার চিকিৎসা দেয়ার কোন অধিকার নেই। বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।’’

উজিরপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আলী আর্শাদ জানান- খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পুলিশ পাঠিয়ে লাশ উদ্ধার করে বরিশাল মর্গে প্রেরন করা হয়েছে এবং ময়না তদন্তের রিপোর্ট পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।’’

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ