১৬ই মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

কবর থেকে কুয়েট শিক্ষকের মরদেহ তুলে ময়নাতদন্তের আবেদন

খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ড. মো. সেলিম হোসেনের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কবর থেকে উত্তোলনের আবেদন করেছে পুলিশ। রবিবার বিকালে খুলনার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে খানজাহান আলী থানা পুলিশ এ আবেদন জানিয়েছেন।

তবে যেহেতু এ ঘটনায় এখনও মামলা হয়নি, সে কারণে আদালত মরদেহ উত্তোলনের অনুমতি দেয়নি। খানজাহান আলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা প্রবীর কুমার বিশ্বাস এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জানা যায়, শিক্ষকের মরদেহ উত্তোলনের আবেদন করলে আদালতে এ বিষয়ে জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে পুনঃআবেদনের নির্দেশনা দেন। পরে জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে আবেদন করলেও মরদেহ যেহেতু কুষ্টিয়ায় দাফন করা হয়েছে, সে কারণে আবেদনটি কুষ্টিয়া জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে পাঠানো হয়েছে। গত ১ ডিসেম্বর ময়নাতদন্ত ছাড়া ড. সেলিমের মরদেহ কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালি উপজেলার বাঁশগ্রামে দাফন করা হয়েছিল।

জানা যায়, মঙ্গলবার দুপুর ৩টার দিকে কুয়েটের লালন শাহ হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. মো. সেলিম হোসেন হার্ট অ্যাটাকে মারা যান। কিন্তু শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, মৃত্যুর কয়েক ঘণ্টা আগে অধ্যাপক সেলিম হোসেন কুয়েট শাখা ছাত্রলীগের বেশ কয়েকজন নেতা-কর্মীর মানসিক নিপীড়নের শিকার হয়েছিলেন। তারই পরিপ্রেক্ষিতে তার লাশ কবর থেকে তুলে ময়না তদন্দের আবেদন জানানো হয়।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ