২০শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

কলাপাড়ায় নারী ও শিশু নির্যাতন মামলায় কাজীর সহকারী সহ গ্রেফতার ৩

কলাপাড়া প্রতিনিধিঃ
পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ (সংশোধনী/২০০৩) এর ৭/৩০ ধারার মামলায় মোঃ সৌরভ মাতুব্বর (২৪), মোঃ জহিরুল ইসলাম গাজী (৪৫) ও কাজী মোঃ দেলোয়র হোসেনের সহকারী মোঃ মোতালেব সিকদার (৩৮) কে গ্রেফতার করেছে কলাপাড়া থানা পুলিশ।
মামলার সূত্রে জানাযায়, ধানখালী ইউনিয়নের মৃতঃ জামাল মাতুব্বরের ছেলে আসামী সৌরভ মাতুব্বর এর সাথে বাদী মোসাঃ জেসমিন বেগমের ১০ম শ্রেণির পড়–য়া শিশু কন্যা (১৬) এর ফেসবুকে পরিচয়ের পরে প্রেম নিবেদন সহ বিরক্ত করতে থাকলে মেয়ের খালা আসামীকে ডাকিয়া বিরক্ত না করার জন্য বলেন এবং মেয়ে পূর্ণ বয়স্ক না হলে বিবাহ দিবে না বলে জানান। এতে আসামী মেয়েকে অপহরন করার পরিকল্পনা করে গত ২৯.০৪.২০২১ তারিখ আনুমানিক বেলা ১১ টার দিকে মেয়েকে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে কৌশলে রাস্তায় এনে অজ্ঞাতনামা আসামীদের সহযোগীতায় মেয়ের ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোড়পূর্বক তাকে মোটর সাইকেলে তুলিয়া অপহরন করে নিয়ে যায়। মামলার অভিযোগের সাথে মেয়ের জেএসসি পরীক্ষার সার্টিফিকেটের কপি সংযুক্ত করা হয়। অপহৃত মেয়ের মা মোসাঃ জেসমিন বেগম বাদী হয়ে ০১.০৫.২০২১ তারিখে কলাপাড়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ১টি মামালা দায়ে করেন, মামলা নং ০১, তারখি ০১.০৫.২০২১ খ্রিঃ

শনিবার ০১ মে কলাপাড়া থানা পুলিশ আসামী সৌরভ মাতুব্বর এবং জহিরুল ইসলাম গাজী ও কলাপাড়া পৌরসভার কাজী মোঃ দেলোয়ার হোসেনের সহকারী মোঃ মোতালেব সিকদারকে গ্রেফতার করে কোর্টে প্রেরণ করেন।

কলাপাড়া থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ আসাদুর রহমান জানান, কাজীর সহকারী মোঃ মোতালেব সিকদার অপ্রাপ্ত বয়স্ক নাবালিকা মেয়ের বিবাহের কাবিন করে আবার ছিড়ে ফেলেছে মামালার বর্ণিত কাজে তার সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে তাই তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে কলাপাড়া পৌরসভার (ভারপ্রাপ্ত) কাজী মোঃ দেলোয়ার হোসেন এর মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি আমার সহকারীকে কোন বাল্য বিবাহ করাতে বলিনাই এবং আমার বালাম বহিঃতে এই বিবাহের কোন ডকুমেন্টস নাই। আমার নাম ভাঙ্গিয়ে কেউ কিছু করলে আমি তার দায় ভার নেবনা।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ