১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
আমি বাচতে চাই, দয়া করে আমাকে বাঁচান- শিশু ইউসুফ এবার ভোল পাল্টালেন হাফিজুর রহমান সিদ্দিকী পিরোজপুরে আন্তঃ গরু চোর দলের ৪ সদস্য গ্রেফতার চল্লিশ কাহনিয়া প্রবাসী কল্যাণ সমিতির মানবিক কাজে মুগ্ধ গ্রামবাসী বরিশালে বাস-মোটরসাইকেল মুখোমুখি সংঘর্ষে ২ কিশোর নিহত পটুয়াখালীতে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানে ঢুকে ভাংচুর ও লুটপাটের অভিযোগ অধ্যক্ষ নজরুল ইসলামের ২৯তম মৃত্যুবার্ষিকীতে এসটিএস হাসপাতালের ২ দিন ব্যাপী ফ্রী মেডিকেল ক্যাম্প করোনায় আরও ৩৮ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১ হাজার ৯০৭ ভোলায় মহানবী (সা.)-কে নিয়ে কটূক্তি, পূজা পরিষদের সভাপতি আটক ইন্দুরকানীতে নয় বছরেও সেতুতে নেই ল্যাম্পপোষ্ট, পথচারীদের ভোগান্তি

কাউখালীতে উপবৃত্তির টাকা আত্নসাত, নগদ এজেন্টকে জরিমানা

পিরোজপুর প্রতিনিধি:
পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলার দক্ষিণ বাজারের এ আর কম্পিউটার নামক টেলিকম ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর সরকারি উপবৃত্তির টাকা আত্মসাৎ এর অভিযোগে ভ্রাম্যমান আদালত ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে।

বুধবার (৩০ জুন) ভুক্তভোগী মুক্তা শীল এ আর কম্পিউটারের স্বত্তাধিকারী মোঃ জালিজ মাহামুদের বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে এ অভিযোগ দ্বায়ের করেন।

অভিযোগে ভুক্তভোগী মুক্তা শীল জানান,
প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের সরকার নগদ একাউন্টের মাধ্যমে টাকা প্রদান করেছে। সে হিসেবে তার মেয়ে অধরা শীল আসপদ্দি উজিয়াল খান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির শিক্ষার্থী হিসেবেও উপবৃত্তির টাকা পায়। তার মেয়ের সেই উপবৃত্তির টাকা তুলতে গত মঙ্গলবার সকালে এ আর কম্পিউটারে তার দেবর পরী শীল তার মোবাইল নিয়ে যায় । তখন এ আর কম্পিউটারের মালিক জালিজ মাহামুদ আমার মোবাইলে থাকা ৩১ শত টাকা তুলে নিয়ে আমার দেবরকে সে এক হাজার টাকা দেন। রাতে সেই টাকা নিয়ে দেবর আমার কাছে দেন। পরে বুধবার সকালে প্রতিবেশী একই স্কু্লের শিক্ষার্থীর মায়ের কাছে তার মেয়ের উপবৃত্তির কত টাকা পেয়েছেন জানতে চাইলে সে বলে ১৯ শত টাকা পেয়েছেন।এ কথা শুনে আমি সকালে বাজারের এ আর কম্পিউটারে এসে টাকার কথা চানতে চাইলে তখন দোকানদার আমাকে ৯ শত টাকা দিয়ে বলেন, মোবাইলে এছাড়া আর কোন টাকা ছিলনা। পরে আমি সেখান থেকে অন্য একটি দোকানে গিয়ে মোবাইল থেকে কত টাকা উত্তোলন করা হয়েছে জানতে চাইলে, সে একাউন্ট চেক করে বলেন গত কাল মঙ্গবার সকালে ৩১ শত টাকা ওঠানো হয়েছে। বিষয়টি আমি এক জন শিক্ষককে জানালে তিনি বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসার স্যারকে বললে তিনি এ আর কম্পিউটারে এসে জালিজ মাহামুদের কাছে টাকার বিষয়টি জানতে চান।এসময় দোকানদার আমাকে ইউএনও স্যারের উপস্হিতিতে আরো ১২ শত টাকা দেন।

পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোছাঃ খালেদা খাতুন রেখা, তার কার্যালয়ে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে এ আর কম্পিউটারের স্বত্তাধিকারী মোঃ জালিজ মাহামুদকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ