৬ই আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

কাজীরহাটে রাতের আঁধারে হলো চোরের বিচার

রাসেল কবির:
মাধবরায় গ্রামের ৪ নং ওয়ার্ডের ছিদ্দিক ফকিরের ছেলে হলুদ ফকির (২৩) গত সনিবার রাত ১২ ঘটিকার সময় পার্শ্ববর্তী গ্রাম বিদ্যানন্দপুরের মোয়াজ্জেম পালোয়ানের বাড়ি থেকে পানি সেচের মটর চুরি করে নিয়ে মকবুল ফকিরে কন্যা আছমার নিকট ১৩”শত টাকায় বিক্রি বরে দেয় বলে জানাগেছে। মোয়াজ্জেমের ভাড়াটে বাহাদুর নলী গোপন সংবাদের মাধ্যমে জানতে পেরেছে চোর হলুদ ফকির চুরি করেছে। মোয়াজ্জেম পালোয়ন ও বাহাদুর নলী স্থাণীয় সোহরাব হোসেন পালোয়ন, কাঞ্চন মাতুব্বর, মতলেব মাতুব্বর কে বিষয়টি অবগত করলে চোর হলুদ ফকির কে গত সোমবার রাতে জিঞ্জাসা করলে অস্বিকার করলে কাওসার মাতুব্বর ও হাসান মাতুব্বর বেদম প্রহর করলে পানি সেচের মটরের কথা স্বিকার করে এবং আছমার নিকট বিক্রি করেছে ও বলে প্রকাশ করে। চুরির বিষয় বলে রাতে মোয়াজ্জেম পালোয়ানের বাড়ির সম্মুখে খালে চিড়িং মাছ ধরতে আসে চুরির ঘটনা ঘটায় এবং পূর্বে পরিকল্পনা করছে ও বলে স্বিকার করেছে চোর।
উল্লেখ্য প্রহরের কারনে গত ২ মাস পূর্বে শাহিন ফরাজির মটর চুরি হয়। চোর হলুদ ফকির ঐ মটর চুরির কথা স্বিকার করে।
এ বিষয় সোহরাব হোসেন পালোয়ানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন চোরের বিচার সঠিক ভাবে হয়নী। কয়েকজন মিলে চোরের পিতা ছিদ্দিক ফকিরের সাথে পূর্বে সমোঝতা করে রাতে চর, থাপ্পর, কিল, ঘুসীর মাধ্যমে চোরের সমাধা করে এবং মটর আছমার নিকট হতে ফেরৎ এনে মোয়াজ্জেম পালোয়র কে দিয়ে দেয়।
এ বিষয় স্থাণীয় চেয়ারম্যান আঃ জলিল মিয়ার মুঠো ফোনে কল করলে তিনি জানায়, আমার জানা নেই কেউ আমাকে জানায়নী।
কাজীরহাট থানা অফিসার ইনচার্জ ওসি মোঃ সাজ্জাদ হোসেন কাছে এ বিষয় জানতে চাইলে তিনি বলেন আমার জানানেই।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ