২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

কারামুক্তির পরদিন নৌকার প্রার্থী হলেন বিএনপি নেতা শাহজাহান ওমর

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

নিজস্ব প্রতিবেদক ::: জামিনে কারাগার থেকে বেরোনোর পরদিন আওয়ামী লীগে যোগ দিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মুহাম্মদ শাহজাহান ওমর। নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হিসেবে ঝালকাঠি-১ আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন তিনি।

শাহজাহান ওমর নিজেই এসব তথ্য জানিয়েছেন। আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর কাওরানবাজারের ইউটিসি ভবনে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, বিএনপি থেকে পদত্যাগ করেছেন। আওয়ামী লীগে যোগ দিয়েছেন। তারপর আজ আওয়ামী লীগ তাঁকে ঝালকাঠি-১ আসন থেকে দলীয় মনোনয়ন দিয়েছে। তিনি অনলাইনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

বিএনপির নেতা শাহজাহান ওমরকে ৪ নভেম্বর রাতে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরদিন তাঁকে ঢাকার নিউমার্কেট থানার বাসে আগুন দেওয়ার একটি মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে হাজির করে পুলিশ। ওই মামলায় তাঁকে তিন দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদও করা হয়।

গতকাল বুধবার ঢাকার প্রথম অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ আদালত থেকে জামিন পান শাহজাহান ওমর। সন্ধ্যার পরই কেরানীগঞ্জে ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে মুক্তি পান তিনি।

এরপর আজ বিএনপি ছেড়ে আওয়ামী লীগে যোগ দিলেন শাহজাহান ওমর। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে আজ দেখা হয়েছে কি না, এ প্রশ্নের জবাবে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘দেখা হতেই পারে।’

ঝালকাঠি–১ আসনে বর্তমান সংসদ সদস্য বজলুল হক হারুন। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত যে প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে, তাতেও এই আসনে বজলুল হকের নাম রয়েছে।

শাহজাহান ওমর আওয়ামী লীগে যোগদানের ঘোষণা দেওয়ার পর তাঁকে বহিষ্কার করেছে বিএনপি। দলটির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলেছেন, বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার মুহাম্মদ শাহজাহান ওমর দলের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে গুরুতর দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ করেছেন। তাই বিএনপির গঠনতন্ত্র মোতাবেক মুহাম্মদ শাহজাহান ওমরকে দলের প্রাথমিক সদস্য পদসহ সকল পর্যায়ের পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

শাহজাহান ওমর ছাড়াও বিএনপির সদ্য বহিষ্কৃত নির্বাহী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার আবুল কাশেম ফখরুল স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ঝালকাঠি-১ আসনে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। ব্যারিস্টার আবুল কাশেম ফখরুল মানবতাবিরোধী অপরাধের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হওয়া সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর আইনজীবী ছিলেন। সেই মামলায় নথি ফাঁসের ঘটনায় ৩৮ মাস জেল খেটেছেন। তিনি সম্প্রতি নির্বাচনে অংশ নেওয়ার ঘোষণা দেন। এরপর তাঁকে বহিষ্কার করে বিএনপি। তিনি ঝালকাঠি সদরের গাভারামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের বারুকাঠি গ্রামের সন্তান।

নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার বিষয়ে আবুল কাশেম ফখরুল বলেন, ‘গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য সাংবিধানিক বিধান অনুযায়ী নির্বাচন ছাড়া ক্ষমতা হস্তান্তরের কোনো বিধান নাই। তাই আওয়ামী লীগ যাতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচনের জয়ী না হতে পারে সেজন্য আমি নির্বাচনে অংশ নিচ্ছি।’ তিনি আরও বলেন, যেহেতু বিএনপি নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে না তাই আদর্শিক কারণে তাঁকে বহিষ্কার করেছে। তিনি কোনো চাপের মুখে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন না।

সর্বশেষ