১৭ই অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
সপরিবারে মানবেতর জীবন যাপন করছেন ঐতিহ্যবাহী এ.কে স্কুলের প্রধান শিক্ষক চরমোনাই পীর, ভিপি নুর ও ড.কামালকে দালাল হিসেবে ব্যবহার করছে সরকার চরফ্যাসনে আলোকিত সকাল পত্রিকার ৪তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন পটুয়াখালী প্রেসক্লাবের অর্ধ বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত চরফ্যাসনে আলোকিত সকাল পত্রিকার ৪তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন খুলনার তরুণীকে কুয়াকাটায় আবাসিক হোটেলে আটকে ধর্ষণ, গ্রেফতার ১ শেখ রাসেল দিবস উদযাপন উপলক্ষে বাবুগঞ্জে প্রস্ততি সভা অনুষ্ঠিত বাবুগঞ্জে খাদ্য দিবস উপলক্ষে অলোচনা সভা অনুষ্ঠিত সারাদেশে আরও ১৮৩ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি কোরআন সম্পর্কে অশালীন ও কুৎসিত পোষ্টঃ গৌরনদীতে ‘মহানন্দ বাড়ৈ’ আটক

কুয়াকাটার সৈকতে  আবারও মৃত ডলফিনঃ মাটি চাপা দিলো পরিছন্ন কর্মীরা

হোসাইন আমির, কুয়াকাটা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি ॥
কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতে ১০ ঘন্টার ব্যবধানে আবারও ভেসে এসেছে মৃত ডলফিল। রবিবার (০৯ মে) রাত ৯টার দিকে কুয়াকাটা সৈকতের জিরো পয়েন্ট থেকে পশ্চিম দিকে কুয়াকাটা ইসলামপুর দাখিল মাদ্রাসা সংলগ্ন সৈকতে ৪ ফুট দৈর্ঘ্যের একটি মৃত ডলফিল জোয়ারের ¯্রােতে ভেসে এসে বালুর চরে আটকে পরে। এর আগে ওইদিন সকাল ১১ টার দিকে কুয়াকাটা সৈকতের পশ্চিম দিকে লেম্বুরবন সংলগ্ন সমুদ্র সৈকতে ভেসে আসে ১০ ফুট লম্বা একটি মৃত ডলফিল। আজ সকাল ৭টা দিকে পৌরসভার মেয়রের নির্দেশে ডলফিন দুটি মাটি চাপা দেয় পরিছন্ন কর্মীরা

স্থানীয়রা জেলেরা জানিয়েছেন, রবিবার সকাল ১১ দিকে জোয়ারের ¯্রােতে ভেসে আসে ১০ লম্ব ডলফিনটি এবং রাত ৯টার দিকে ৪ ফটু লম্বা ডলফিনটি ভেসে এসে সৈকতের বালুর চরে আটকে পরে। স্থানীয় জেলে আনোয়ার মাঝি বলেন, ‘ভেসে আসা ডলফিনের শীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে জেলেদের জালে আটকে ডলফিন মারা গেছে। তিনি বলেন, ‘এর আগেও বিভিন্ন সময় বেশ কয়েকটি মৃত ডলফিন ও তিমি সৈকতে ভেসে আসে। তবে গত ৩/৪ আগে এগুলো মারা ডেতে পারে।
তবে কি কারণে এসব ডলফিন মারা যাচ্ছে তা নিশ্চিত করতে পারেনি মৎস্য বিভাগ। এদিকে ভেসে আসা ডলফিনের খবর খবর পেয়ে পৌর মেয়র আনোয়ার হওলাদার নির্দেশে পৌর  পরিছন্ন কর্মী সুপার ভাইজার ইউসুফে নেতৃত্বে একদল পরিছন্ন কর্মী নিয়ে  সকাল ৭ টার দিকে সৈকতে থাকা ডলফিন দুটিকে নিরাপদ জায়গায় মাটি চাপা দেয়।

ওয়ার্ল্ড ফিস বাংলাদেশের এনহ্যান্সড কোস্টাল ফিশারিজ ইন বাংলাদেশ (ইকো ফিশ-২) অ্যাক্টিভিটির পটুয়াখালীর সহকারী গবেষক সাগরিকা স্মৃতি বলেন, ‘কুয়াকাটা সংলগ্ন বঙ্গোপসাগরের তীরবর্তী এলাকায় বেশ কিছুদিন ধরে একশ্রেণির জেলেরা হাজারি বড়শি (দড়ির সঙ্গে ৬ ইঞ্চি পরপর বড়শি পাতা থাকে) ফেলে শাপলাপাতা মাছসহ অন্য প্রজাতির মাছ ধরে থাকেন। দড়ির সঙ্গে বড়শি বাঁধা থাকে ৮০০ থেকে ১ হাজার। বড়শিগুলো মাটির সঙ্গে মিশিয়ে ফেলে রাখা হয়। এসব বড়শি ধারালো হয়। ধারণা করা হচ্ছে, ডলফিন দু’টি এ ধরনের বড়শিতে আটকা পড়ে আঘাত পেয়ে মারা গেছে’।

এ ব্যাপারে পটুয়াখালী জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোল্লা এমদাদুল্লাহ বলেন, ‘ঘটনাস্থলে মৎস্য বিভাগের কর্মকর্তাদের পাঠানো হয়েছে। কি কারণে ডলফিন মারা গেছে সেটি নিশ্চিত হওয়ার জন্য পোষ্টমর্টেম করার চেষ্টা করা হবে। তবে যদি অবস্থা  বেশি খারাপ হয় তাহলে ডলফিন দু’টি মাটি চাপা দেয়া হবে’।

এ বিষয়ে মৎস্য অধিদপ্তর বরিশালের কোস্টাল অ্যান্ড মেরিন ফিশারিজ প্রকল্পের উপ-প্রকল্প পরিচালক মো. কামরুল ইসলাম বলেন, ‘এ ধরনের ডলফিন উত্তর ও দক্ষিণ মেরুর শীতল জল ছাড়া প্রায় প্রতিটি সমুদ্রে পাওয়া যায়। সাধারণত এ ধরনের ডলফিনকে বোতল জাতীয় ডলফিন বলা হয়। এ জাতীয় ডলফিন উপকূলীয় অঞ্চলে বাস করে’।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ