১৬ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

খালের মুখে আবর্জনার ভাগার, দূর্গন্ধে অতিষ্ঠ এলাকাবাসি

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সেলিম শিকদার: সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া পৌর শহরের প্রাণ কেন্দ্র পাটবন্দর ও হাটখোলার মধ্য দিয়ে প্রবাহিত শাখানদী ফুলজোর খালের মুখটি কালের বিবর্তনে ময়লার ভাগাড়ে পরিনত করা হয়েছে।
এই খালটিকে কেন্দ্র করেই উল্লাপাড়ায় গড়ে উঠেছিল পাটবন্দর কেন্দ্রিক কুঠিবাজার। সেই পূর্ববর্তী সময় থেকে বিভিন্ন এলাকা বা গ্রামের কৃষকদের চাষাআবাদকৃত বা উৎপাদিত ধান,পাট সহ বিভিন্ন ফসল নৌকায় করে এই নদীপথে অতিসহজেই উল্লাপাড়া বাজারে বা বন্দরে বিক্রয়ের জন্য নিয়ে আসতো।
এই নদীপথে যোগাযোগ ব্যাবস্থা ভাল থাকায় এবং অত্রাঞ্চলের পাটের গুনগত মান ভাল পাওয়ায় ব্যাবসায়ি পাইকার বা বনিয়াদের ব্যাবসা সফল হওয়াতে উল্লাপাড়া সদরে গোড়েতোলা হয় পাটের বন্দর।
অনেক পূর্ববর্তী সময়ে এই বন্দরে ক্রয়কৃত পাট সংরক্ষণের জন্য এখানে
গড়ে তোলাহয় বিশাল আয়তনের বেশকটি পাটের (গোডাউন) গুদামঘর। এই গুদামঘর থেকে পাট রাজধানী ঢাকা,নারায়ণগঞ্জ, খুলনাঞ্চলে বিভিন্ন মিল কারখানায় নেয়াহত।
নদীপথে উল্লাপাড়া শহরে যোগাযোগ ব্যাবস্থার মানউন্নয়নে প্রায় ১০ বছর অাগে পৌরসভার অর্থায়নে প্রায় ২০০ ফিট প্রশস্ত ফুলঝোর খালের দুই পাশ মাটি দিয়ে ভরাট কাজকরা হয়।
এবং শহরে প্রবেশ পথে খালের মুখে মাত্র ২০ফিট প্রশস্ত একটি কালভার্ট নির্মান করা হয়, যাহা পরবর্তিতে ফুলঝোর খালের গলায় ফাঁস বা কাটা হয়ে দাড়িয়েছে ।
এই কালভার্ট নির্মানের পর থেকে শুরু হয় পৌরসভার পরিচ্ছন্ন কর্মী ও সাধারন মানুষের বর্জ নিক্ষেপ প্রতিযোগিতা।
দীর্ঘ দিনের মজা দূর্গন্ধযুক্ত বিষাক্ত পানি ও আর্বজনার স্তুপে আবদ্ধ প্রায় অর্ধ কি.মি. খালের এলাকা এখন জীবাণুগাড়ে পরিনত হয়েছে।
রোগজীবাণু যুক্ত বাতাশ আর দূর্গন্ধে অস্বাস্হ্যকর পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে।

এলাকাবাসিরা জানান, ঐতিহ্যবাহী এই উল্লাপাড়া পৌর শহরে একের পর এক মেয়র আসা যাওয়ার মাঝে থাকে, তাদের অবস্থার পরিবর্তন হলেও এই ময়লা,আবর্জনার ভাগাড়ের পরিবর্ত আজও ঘটেনি।
এখানে প্রতিদিন শুধু শহরের আবর্জনার পরিমানটাই বেড়ে চলেছে।
এই ফুলজোর খালের সৌন্দর্য্য ফেরানোর কথা বলে অনেকের আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হয়েছে।
কম্পিউটার প্রোগ্রামের মোধ্যে দিয়ে ডিজিটাল প্রযুক্তির পরিবেশবান্ধব মনোরম প্রকল্প তৈরি করে প্রযেক্টরের মাধ্যমে বছরের পর বছর ধরে পৌরবাসীদের দেখানো হচ্ছে, এবং ডিজিটাল প্রযুক্তি প্রদর্শন করিয়ে পুরষ্কারও ঘরে তুলেছে পৌরসভা, অথচ বাস্তবে কাজের কাজ কিছুই হয়নি বলে এলাকাবাসিদের অভিযোগ। ফুলজোর খালের মুখে দীর্ঘদিনের জমানো এই আবর্জনার ভাগার জরুরী ভিত্তিতে পরিস্কারের জোরদাবী জানিয়েছে উল্লাপাড়া পৌরবাসীরা।

সর্বশেষ