৩১শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
সাংবাদিক অপু রায় এবং সাংবাদিকপুত্র জারিফ এর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ ঝালকাঠিতে পৃথক ঘটনায় দুই লাশ উদ্ধার উজিরপুরে ফলজ গাছ কেটে অসহায় নারীর বসতবাড়ি দখলের পায়তারা গ্যাস সংযোগ না থাকায় পটুয়াখালীতে গড়ে ওঠেনি শিল্পকারখানা ৬ দফা দাবি আদায়ে পবিপ্রবি অফিসার্স এসোসিয়েশনের কর্মবিরতি ও অবস্থান ধর্মঘট অগ্নি দূর্ঘটনায় তিনটি পরিবারকে আর্থিক সহায়তা প্রদান করেছেন মির্জাগঞ্জ বিএনপি। নাজিরপুরে ইট বোঝাই নৌকা ডুবে ব্যবসায়ীর মৃত্যু নদীতে অবৈধ জাল অপসারণ, ভোলায় বাড়ছে মাছের উৎপাদন শেবাচিম হাসপাতালে শয্যা বাড়ায় বেড়েছে রোগীর ভোগান্তি! মসজিদের সম্পত্তি দখল করলে দুই বছরের কারাদণ্ডের বিধান রেখে সংসদে বিল পাস

গলাচিপায় বয়স্ক-বিধবা ভাতার টাকা আত্মসাৎ করলেন ইউপি সদস্য

তারিখঃ ৮ ডিসেম্বর ২০২১

গলাচিপা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধিঃ
পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলার বকুলবাড়িয়া ইউনিয়নের পাতাবুনিয়া গ্রামের ইউপি সদস্য মো. রেফাবুল ইসলাম সর্দারের বিরুদ্ধে একাধিক বয়স্ক-বিধবা ভাতার টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় গত ২৫ নভেম্বর (বৃহস্পতিবার) দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন পাঁচজন ভুক্তভোগী। এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হলে ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার জন্য মরিয়া হয়ে মাঠে নেমেছেন ইউপি সদস্য ও তার সহযোগীরা। অভিযোগে জানা গেছে, সরকার সমাজসেবা মন্ত্রণালয়ের অধীনে বয়স্ক, বিধবা ব্যক্তিদের আর্থিক সহায়তা করতে সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী নামে একটি প্রকল্প চালু করে। প্রকল্প চালু হওয়ার পর ভাতাভুক্তদের তালিকা করে প্রতি মাসে ৫শ টাকা হিসাবে ৩ মাস পর পর তাদের প্রাপ্য ব্যাংকের মাধ্যমে প্রদান করা হয়। সুবিধাভোগীদের প্রত্যেককে একটি করে পাশ বহি প্রদান করে সংশ্লিষ্ট উপজেলা সমাজসেবা কার্যালয়। এ ক্ষেত্রে ইউপি সদস্যরা পাশ বহি সংগ্রহ করে ব্যাংক থেকে টাকা উত্তোলন করে বিতরণ করেন। কিন্তু উপজেলার বকুলবাড়িয়া ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডে ইউপি সদস্য মো. রেফাবুল ইসলাম সর্দার তার ওয়ার্ডের সকলের পাশ বহি সংগ্রহ করে কৃষি ব্যাংক থেকে টাকা উত্তোলন করেন এবং ২০-৩০ জনের প্রত্যেকের কাছ থেকে সারে চার হাজার থেকে পাঁচ হাজার টাকা আত্মসাৎ করেছেন বলে লিখিত অভিযোগ করেন সুধাংসু হাওলদার। এ বিষয়ে সুধাংসু হাওলদার জানান, আমাদের ওয়ার্ডে আমাদের আত্মীয়সহ ২০-৩০ জনের প্রত্যেকের কাছ থেকে ভোট দেয়নি বলে জোর পূর্বক টাকা রেখে দেয়। এর জন্য আমি উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করি। এ বিষয়ে ইউপি সদস্য রেফাবুল ইসলাম জানান, আমার ওয়ার্ডে সকলকেই টাকা দেয়া হয়েছে। একটি কূচক্রী মহল আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে। এ বিষয়ে গলাচিপা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আশিষ কুমার বলেন, ‘অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ