৭ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
আমতলী থানার ওসি একেএম মিজানুর রহমান জেলার শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ নির্বাচিত গলাচিপায় এ্যাম্বুলেন্স সেবায় চলছে রমরমা ব্যবসা। ৪ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর চরকাউয়া থেকে বাস চলাচল শুরু পটুয়াখালী জেলা পরিষদের আয়োজনে বীর মুক্তিযোদ্ধা, আগুনে ক্ষতিগ্রস্থ ও ছাত্র ছাত্রীদের মাঝে চেক প্রদান আমতলী পৌরসভায় ৪৬২১ জন হতদরিদ্রদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার স্ত্রী-বোনের টাকায় ট্রাক্টর কিনলেন পলাশ গলাচিপায় ঐতিহ্যবাহী গ্রামীন শিল্প হোগল পাতা বিলুপ্তির পথে ব্যবসায়ী নাজমুল সাদাতের পিতার জানাজা সম্পন্ন ব্যবসায়ী নাজমুল সাদাতের পিতার জানাজা সম্পন্ন মাহাফুজুর রহমানের "স্বপ্নে দেখা সেই মেয়েটি" লাজুক

গলাচিপায় রাতের অন্ধকারে বিষ প্রয়োগে মাছ মারল দূর্বৃত্তরা

তারিখঃ ১১ জুন ২০২২

সঞ্জিব দাস, গলাচিপা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধিঃ
পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলার গোলখালী ইউনিয়নের একটি ঘেরে বিষ প্রয়োগে প্রায় আড়াই লক্ষাধিক টাকার মাছ নিধনের অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে। শুক্রবার (১০ জুন) গভীর রাতে ওই ইউনিয়নের কালুখা ব্রিজ বাজার নামক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। সকালে মাছ মরে ভেসে উঠতে থাকে। ভুক্তভোগী পরিবারটির অভিযোগ, পূর্ব শত্রুতার জেরে প্রতিপক্ষের লোকজন আমার পরিবারকে বিভিন্নভাবে ক্ষতি করার চেষ্টা চালায়। সরাসরি ক্ষয়ক্ষতি করতে না পারায় গত রাতের অন্ধকারে ঘেরের বিষ প্রয়োগ করেন তারা। এতে ঘেরে থাকা লক্ষ লক্ষ টাকার মাছ মারা গেছে। যার আনুমানিক মূল্য প্রায় ২ থেকে আড়াই লাখ টাকা। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ইউনিয়নের কালুখা নামক এলাকার মৎস্য চাষী মো. নিপু চৌকিদার নিজ বাড়ির পার্শ্ববর্তী প্রায় ১ একর জমিতে মাছের খামার করেছেন। শুক্রবার রাতে কোনো এক সময় তার ১ একর ঘেরে বিষ প্রয়োগ করে দুর্বৃত্তরা। এতে ঘেরে চাষ করা কার্প, গ্রাস-কাপ, সরপুটি, কাতল, রুই, ব্রিগেড, সিলভার কাপ, শিং, পাংগাস মাছসহ দেশীয় বিভিন্ন প্রজাতির দুই লক্ষাধিক টাকার মাছ মারা যায়। শনিবার (১১ জুন) সকালে ঘেরের পাড়ে গিয়ে মাছ মরে ভেসে উঠতে দেখে হতবাক হয়ে যান নিপু চৌকিদার। নিপু চৌকিদার জানান, তার বাসা ঘেরের দক্ষিন পাশে। ঘেরের পাশে তার নিজস্ব কোন লোক না থাকায় শুক্রবার রাতে ঘেরে বিষ প্রয়োগ করে তার আড়াই লক্ষাধিক টাকার মাছ বিষ প্রয়োগে মেরেছে বলে তিনি জানান। নিপু চৌকিদার আরো বলেন, ‘আমি এবং আমার চাচা তোফাজ্জেল হক চৌকিদার শেয়ারে দীর্ঘ অনেক বছর পর্যন্ত এই ঘেরটি করি’। আমি গলাচিপা কৃষি ব্যাংক থেকে দের লক্ষ ঋণের টাকা নিয়ে মাছ চাষ করেছি। এখন আমার কি হবে। তারা আমাকে রাস্তায় নামিয়ে দিল আমার ভিক্ষা করা ছাড়া আর কোন পথ নাই। এ বিষয়ে ঐ এলাকার মজিবর, ইব্রাহিম চৌকিদার, মাহাবুব আলম মাস্টার, ছাইফুল চৌকিদার, নাসির চৌকিদার, এরা বলেন, নিপু চৌকিদার এবং তোফাজ্জেল চৌকিদার অসহায় গরীব মানুষ ব্যাংক থেকে ঋণ করে এই ঘেরটি দীর্ঘদীন পর্যন্ত তারা করেছে। এই ঘেরটিতে কে বা কারা বিষ প্রয়োগ করল তা আমরা জানি না কিন্তু পরিবার দুটি এখন পথে বসে গেছে। ইউপি সদস্য দেলোয়ার হাওলাদার ও মহিলা ইউপি সদস্য পরিনুর বেগম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন। ইউপি চেয়ারম্যান নাসির উদ্দিন হাওলাদার বিষয়টি নিয়ে দুঃখ প্রকাশ করেন। গলাচিপা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আর এম শওকত আনোয়ার ইসলাম বলেন, অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ