২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
বিপুলভোটে জয়ী হলেন এ্যাড. আবুল কালাম আজাদ (৩) বরিশালে চিকিৎসকের বাসায় শিশু গৃহকর্মীর ‍উপর অমানসিক নির্যাতন বরিশালের গৃহকর্মীকে খুন্তির ছ্যাকা ও দেয়ালে মাথা ঠুকে নির্যাতন করলো ডাক্তারপত্নী লায়ন গনি মিয়া বাবুল পেলেন 'আট-ই ফাল্গুন পদক' বরিশাল নগরীতে সিটি কর্পােরেশনের ভুয়া কর্মকর্তা আটক দুনিয়ার ধ্যান-খেয়াল বাদ দিয়ে আখিরাতের ধ্যান-খেয়াল অন্তরে জায়গা দিতে হবে : চরমোনাই পীর করোনায় আরও ৫ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৪১০ আজও অপসারন হয়নি বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কের টিউমার, প্রতিনিয়ত ঘটছে দূর্ঘটনা গলাচিপায় পিটুনিতে আহত আওয়ামীলীগ নেতার চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু গলাচিপায় বিদ্যালয়ের ভবন মাদ্রাসাওব্রিজের ভিত্তি প্রস্তর উদ্বোধন।

গলায় তার পেচিয়ে স্ত্রীকে হত্যা, স্বামী গ্রেফতার

রাজশাহীতে স্ত্রী মিথিলা আক্তার মীমকে (২১) হত্যার দায়ে স্বামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রবিবার বিকালে মহানগরীর উপকণ্ঠ কাটাখালীর বাখরাবাজ দক্ষিণপাড়া এলাকা থেকে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃত হলেন, একই এলাকার নাজিম উদ্দিনের ছেলে আরিফ ইসলাম (২৪)।রবিবার রাতে রাজশাহীর কাটাখালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিল্লুর রহমান জানান, ঘটনার পর অভিযুক্তকে আরিফকে গ্রেফতার করা হয়। এরপর তাকে থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আরিফ ইসলাম এই হত্যাকাণ্ডের দায়ে স্বীকার করেছেন।

এর আগে শনিবার (২৩ জানুয়ারি) রাতের গলায় তার পেঁচিয়ে মীমকে হত্যার পর ঘরের তীরের সঙ্গে ঝুলিয়ে রাখেন আরিফ। রবিবার সকালে থানায় খবর দেওয়া হলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরির পর পরিবারের জন্য অপেক্ষা করে।

গ্রেফতারকৃত আরিফের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, আরিফ নিজ বাড়ি ছাড়া অন্য জায়গায় স্ত্রী মীমকে নিয়ে ভাড়া থেকেছেন। বর্তমানে তারা আরিফদের বাড়িতেই থাকেন। শনিবার (২৩ জানুয়ারি) বিকালে কাজ থেকে বাড়িতে ফিরে মীমকে দেখতে না পেয়ে খুঁজতে বের হন আরিফ। এক পর্যায়ে মীমকে মহানগরীর তালাইমারী শহীদ মিনারে এক ছেলের সঙ্গে বসে থাকা অবস্থায় দেখেন। সেখান থেকে আরিফ মীমকে বাসায় ধরে নিয়ে আসেন।এরপর নিজেরা বাকবিতাণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন। এক পর্যায়ে মীমের গলায় তার পেঁচিয়ে ধরেন আরিফ। এতে মীমের মৃত্যু হয়। পরে এই হত্যাকে আত্মহত্যা বলে চালাতে ওই তারের সঙ্গে ঘরের তীরে ঝুঁলিয়ে দেওয়া হয় মীমকে। এর পর সকালে পুলিশে খবর দেয় আরিফ। পুলিশ গিয়ে মীমকে ঝুলন্ত অবস্থায় পায়। এ সময় মীমের পরিবারকে খবর দেয় পুলিশ। 

মীমের মা পুলিশকে জানায়, এই মৃত্যু নিয়ে তার আপত্তি আছে। মরদেহ না নামাতে পুলিশকে জানায়। এরপরে ঢাকা থেকে মীমের মা রাজশাহীতে যান। মীমের মা পুলিশের কাছে দাবি করেন, তার মেয়েকে হত্যা করা হয়েছে। এছাড়া ছেলের অন্য মেয়ের সঙ্গে পরকীয়া আছে। এর জেরে দাম্পত্যজীবনে কলহ ছিল।

ওসি আরও বলেন, এমন অভিযোগের ভিত্তিতে আরিফকে আটক করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে আরিফ হত্যার বিষয়টি স্বীকার করেন। এ সময় কীভাবে এই হত্যা সংঘটিত করেছে, তা পুলিশের কাছে বর্ণনা দেয় আরিফ। পরে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজের (রামেক) মর্গে পাঠানো হয়। এ ঘটনায় দায়ের করা হত্যা মামলায় আরিফকে আগামীকাল সোমবার (২৫ জানুয়ারি) আদালতে তোলা হবে। এছাড়া আইনি প্রক্রিয়া শেষে নিহতের মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email