১৩ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
বাকেরগঞ্জে এক যুগ পালানোর পর পুলিশের জালে আটকা মাদককারবারী পবিত্র ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে লায়ন গনি মিয়া বাবুল এর শুভেচ্ছা মোহাম্মদ নাসিম'র ৪র্থ মৃত্যু বার্ষিকী স্মরণে দোয়া ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত বাউফলে নবনির্বাচিত উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যানদের বরণ অনুষ্ঠান সম্পন্ন বরিশালে ইয়াবাসহ ২ মাদকবিক্রেতা গ্রেপ্তার ববির হল থেকে ছাত্রীর লা*শ উদ্ধারের ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন লালমোহনে অটোরিকশার চাপায় শিশু নি*হত লালমোহনে লঞ্চে সন্তান প্রসব, মা-নবজাতকের আজীবন ভাড়া ফ্রি মাদ্রাসা শিক্ষা উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে সরকার, চরফ্যাশনে ডিজি হাবিবুর রহমান বরগুনায় স্ত্রীর মামলায় পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা

চরফ্যাশনে —- জন্ম নিবন্ধনে সরকারি ফি ৫০ টাকা, নেয়া হচ্ছে ৫০০ টাকা!

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

নিজস্ব প্রতিবেদক :
দেশের প্রতিটি নাগরিকের সরকারি সেবা পাওয়ার অধিকার আছে। কিন্তু জন্ম নিবন্ধন করতে এবং ভুল সংশোধন করতে গিয়ে অধিকাংশ জনগণের হয়রানির শিকার, দেশে শিশুর জন্ম থেকে ৪৫ দিন পর্যন্ত সরকারি নিয়মানুযায়ী জন্ম নিবন্ধনের কোন ফি নেওয়া হয়না। তবে শিশুর ৫ বছর পর্যন্ত ২৫ টাকা ও ৫ বছরের উপরে সব বয়সীদের ৫০ টাকা ফি নেয়ার নিয়ম করে দিয়েছে সরকার। তবে সরকারের এই নিয়ম মানা হচ্ছেনা ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার জাহানপুর ইউনিয়নে। এই ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ২০০ টাকা দিয়ে জন্ম নিবন্ধন করে নিলেও তা সঠিকভাবে না হওয়ায় পুনরায় ৫০০ টাকা দিয়ে অনলাইন করাতে হয় বলে অভিযোগ ওঠে ইউনিয়ন সচিব ও তথ্য কেন্দ্রের পরিচালক ফারুক এর বিরুদ্ধে। এখানকার দায়িত্বরতরা সরকারি বেধে দেয়া টাকার জায়গায় নিজেই নতুন নিয়ম করেছেন। সে নিয়মে প্রতি জন্ম সনদে ২৫০ থেকে ৫০০ টাকা পর্যন্ত ফি আদায়ের অভিযোগ করেছেন স্থানীয় ভুক্তভোগীরা।

সরেজমিনে গিয়ে এমন অভিযোগের সত্যতাও পাওয়া যায়। উপজেলার জাহানপুর ইউনিয়নের স্থানীয় বাসিন্দা মোঃ গোলাম রব্বানী শিমুল জানায়, আমার পরিবারের ৪ টি জন্ম সনদ ডিজিটাল করার জন্য ইউনিয়ন পরিষদের তথ্য কেন্দ্রের দায়িত্বরত ফারুক ১,৬০০ টাকা চেয়েছে, আমি তাকে ১,২০০ টাকা দিয়েও আমার জন্ম সনদ আনতে পারিনি। দায়িত্বরত ফারুক আমাকে ফিরিয়ে দিয়ে বলেন সচিবকেও স্বাক্ষর আনতে টাকা দিতে হয়। স্থানীয় রুবেল পাটওয়ারি জানায়, তথ্য কেন্দ্রের ফারুক, ৫,০০০/৭,০০০ টাকার বিনিময়ে মেয়েদের বয়স বাড়িয়ে জন্ম সনদ করে বাল্যবিবাহের সুযোগ করে দেন। এমন শত শত অভিযোগ ইউনিয়ন সচিব ও তথ্যকেন্দ্রের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে। তবে ইউনিয়নে এ অভিযোগ নতুন নয়। সরকারি নিয়ম উপেক্ষা করে ইউপি সচিব ও তথ্য কেন্দ্রের ফারুক জন্মনিবন্ধন সনদে অতিরিক্ত ফি আদায় করেন বলে অনেকেই অভিযোগ করেছেন। এটা দেখারও কেউ নেই বলে জানান স্থানীয়রা।

এসব অভিযোগ অস্বীকার করে তথ্য কেন্দ্রের দায়িত্বরত ফারুক জানান, এখানে সরকারি ফি ব্যতীত বাড়তি কোনো টাকা নেওয়া হয় না, কিছু লোক ব্যক্তিগত সুবিধা ভোগ করার জন্য আমার বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ আনে।

ইউপি চেয়ারম্যান নাজিম হাওলাদারের বক্তব্য নিতে তার ফোন নাম্বারে কল দিলে রিসিভ না করায় বক্তব্য নেয়া যায়নি।

চরফ্যাশন উপজেলা নির্বাহি অফিসার, আল-নোমান সাংবাদিককে জানান, জন্ম নিবন্ধন এর জন্য সরকার নির্ধারিত ফি’র বেশি কেউ নিয়ে থাকলে তার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সর্বশেষ