২৭শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
বরিশালে পাংশা গ্রামে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ১ অর্ধেক জনবলে চলছে ঝালকাঠির প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগ হলে ঢুকে হামলা : বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩ শিক্ষার্থী গ্রেফতার পাথরঘাটায় বিআরটিসি বাসচাপায় মাছ ব্যবসায়ীর মৃত্যু জনবল সংকটে ঝালকাঠির প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগ সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ : তিন সন্ত্রাসী সহোদরের প্রভাবে জিম্মি উজিরপুরবাসী স্ত্রীর মামলায় গ্রেফতার বরিশালের ওয়ার্ড আ. লীগ নেতা বহিষ্কার লালমোহনে নামাজের সালাম ফেরাতেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লেন মুসল্লি শেবাচিমে এক বছরেও শিডিউল পাচ্ছেন না ডায়ালাইসিস রোগীরা ঝালকাঠিতে পিকআপ ভ্যানে যাত্রীবাহী মাহিন্দ্রার ধাক্কায় শিশু নিহত, আহত ৪

চরফ্যাশনে —- জন্ম নিবন্ধনে সরকারি ফি ৫০ টাকা, নেয়া হচ্ছে ৫০০ টাকা!

নিজস্ব প্রতিবেদক :
দেশের প্রতিটি নাগরিকের সরকারি সেবা পাওয়ার অধিকার আছে। কিন্তু জন্ম নিবন্ধন করতে এবং ভুল সংশোধন করতে গিয়ে অধিকাংশ জনগণের হয়রানির শিকার, দেশে শিশুর জন্ম থেকে ৪৫ দিন পর্যন্ত সরকারি নিয়মানুযায়ী জন্ম নিবন্ধনের কোন ফি নেওয়া হয়না। তবে শিশুর ৫ বছর পর্যন্ত ২৫ টাকা ও ৫ বছরের উপরে সব বয়সীদের ৫০ টাকা ফি নেয়ার নিয়ম করে দিয়েছে সরকার। তবে সরকারের এই নিয়ম মানা হচ্ছেনা ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার জাহানপুর ইউনিয়নে। এই ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ২০০ টাকা দিয়ে জন্ম নিবন্ধন করে নিলেও তা সঠিকভাবে না হওয়ায় পুনরায় ৫০০ টাকা দিয়ে অনলাইন করাতে হয় বলে অভিযোগ ওঠে ইউনিয়ন সচিব ও তথ্য কেন্দ্রের পরিচালক ফারুক এর বিরুদ্ধে। এখানকার দায়িত্বরতরা সরকারি বেধে দেয়া টাকার জায়গায় নিজেই নতুন নিয়ম করেছেন। সে নিয়মে প্রতি জন্ম সনদে ২৫০ থেকে ৫০০ টাকা পর্যন্ত ফি আদায়ের অভিযোগ করেছেন স্থানীয় ভুক্তভোগীরা।

সরেজমিনে গিয়ে এমন অভিযোগের সত্যতাও পাওয়া যায়। উপজেলার জাহানপুর ইউনিয়নের স্থানীয় বাসিন্দা মোঃ গোলাম রব্বানী শিমুল জানায়, আমার পরিবারের ৪ টি জন্ম সনদ ডিজিটাল করার জন্য ইউনিয়ন পরিষদের তথ্য কেন্দ্রের দায়িত্বরত ফারুক ১,৬০০ টাকা চেয়েছে, আমি তাকে ১,২০০ টাকা দিয়েও আমার জন্ম সনদ আনতে পারিনি। দায়িত্বরত ফারুক আমাকে ফিরিয়ে দিয়ে বলেন সচিবকেও স্বাক্ষর আনতে টাকা দিতে হয়। স্থানীয় রুবেল পাটওয়ারি জানায়, তথ্য কেন্দ্রের ফারুক, ৫,০০০/৭,০০০ টাকার বিনিময়ে মেয়েদের বয়স বাড়িয়ে জন্ম সনদ করে বাল্যবিবাহের সুযোগ করে দেন। এমন শত শত অভিযোগ ইউনিয়ন সচিব ও তথ্যকেন্দ্রের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে। তবে ইউনিয়নে এ অভিযোগ নতুন নয়। সরকারি নিয়ম উপেক্ষা করে ইউপি সচিব ও তথ্য কেন্দ্রের ফারুক জন্মনিবন্ধন সনদে অতিরিক্ত ফি আদায় করেন বলে অনেকেই অভিযোগ করেছেন। এটা দেখারও কেউ নেই বলে জানান স্থানীয়রা।

এসব অভিযোগ অস্বীকার করে তথ্য কেন্দ্রের দায়িত্বরত ফারুক জানান, এখানে সরকারি ফি ব্যতীত বাড়তি কোনো টাকা নেওয়া হয় না, কিছু লোক ব্যক্তিগত সুবিধা ভোগ করার জন্য আমার বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ আনে।

ইউপি চেয়ারম্যান নাজিম হাওলাদারের বক্তব্য নিতে তার ফোন নাম্বারে কল দিলে রিসিভ না করায় বক্তব্য নেয়া যায়নি।

চরফ্যাশন উপজেলা নির্বাহি অফিসার, আল-নোমান সাংবাদিককে জানান, জন্ম নিবন্ধন এর জন্য সরকার নির্ধারিত ফি’র বেশি কেউ নিয়ে থাকলে তার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ