২৬শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

চরফ্যাশন – দক্ষিণ আইচা সড়কের বেহালদশাঃ সংস্কার জরুরি

এম লোকমান হোসেন: ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার শশীভুষণ বাজার – দক্ষিণ আইচা মহাসড়কের ১৮ কিলোমিটার সড়কের  বিভিন্ন স্থানে পিচ- খোয়া উঠে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়ে যাত্রী বাহী মালবাহী যানবাহন চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে । প্রতিনিয়ত ঘটছে ছোট বড় দুর্ঘটনা। রোগীবাহী এ্যাম্বুলেন্স বিকল্প পথে চলাচল করতে বাধ্য হচ্ছে। প্রায় ১ বছর যাবৎ সড়কটি বেহাল দশায় পরিনত হলেও সড়ক ও জনপথ বিভাগ কোন গুরুত্ব না দেয়ায় প্রায় ২ লক্ষ মানুষের জীবনের ঝুকিঁ নিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে প্রতিনিয়ত।
ভুক্তভোগী সড়কে প্রতিনিয়ত চলাচলকারী গ্রামীন ফোন কোম্পানীর রিটেইলার ভাস্কর সাংবাদিককে বলেন, জীবনের ঝুকিঁ নিয়ে চাকুরীর স্বার্থে মোটর সাইকেল নিয়ে চলাচল করতে হয়।   ভোলা জেলা বাস মালিক সমিতির বাস চালক মমিন বলেন, ভোলা সদর থেকে শশীভুষন পযর্ন্ত যাত্রী নিয়ে আসতে কোন সমস্যা না হলেও ১২ কিলোমিটার রাস্তায়  বড় বড় গর্তে গাড়ি আটকে যায়। রাস্তায় উভয় পার্শ্বে একই অবস্থার কারনে অনেক সময় বিপরীতগামী যানবাহনের মুখোমুখী হতে হয়।
আশরাফুল ইসলাম জানান, তার অসুস্থ্য  স্ত্রীকে নিয়ে মঙ্গলবার রাত ১১ টার সময় উপজেলা স্বস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার প্রয়োজন হলে ২৫ কিলোমিটার রাস্তায় দেড় ঘন্টা সময় লেগে যায়। বরিশাল থেকে আগত আরএফএল কোম্পাণীর ট্রাক  চালক আকবর আলী বলেন,বরিশাল থেকে আসতে যতটুকু সময় বা কষ্ট না হয় ১৮ কিলোমিটার রাস্তায় তার চেয়ে বেশী কষ্ট ঝুকিঁ ও সময় লাগে একই সাথে রয়েছে গাড়ি দুর্ঘটনার হুমকিও । দক্ষিণ আইচা বাজারের আড়ৎদার শাহাজান মিয়া বলেন, মরিচ ও নারিকেল  ক্রয় করে রেখেছি রাস্তা ভাংগার অজুহাতে ট্্রাক ভাড়া বেশীর কারনে মোকামে পাঠাতে পারিনি। উত্তর আইচা বাজারের নান্নু মাতাব্বর জানান, সড়কের বেহালদশার কারনে  বাজারের ব্যবসাযীরা অতিরিক্ত খরচ করে কাচা তরিতরকারী পরিবহন করে যার ভোগান্তী সকলের উপর বর্তায়।
পর্যটনকেন্দ্র ও ইকোপার্ক ঘোষিত চরকুকরী মুকরী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ আবুল হাসেম মহাজন জানান, ভ্রমণপিপাসুরা এই রাস্তা দিয়েই চলাচল করতে হয়। সড়কের নাজুক অবস্থার মধ্যে পড়ে তাদের মধ্যে বিরক্তির  বর্হিপ্রকাশ দেখা দেয়। ঢালচর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবদুস ছালাম হাওলাদার বলেন, বালুরচর খ্যাত সমুদ্র সৈকত তারুয়া ভিন্ন জেলার মানুষের মন কাড়লেও সড়কের বেহালদশার কারনে দিন দিন জনপ্রিয়তা হ্রাস পাচ্ছে।
 এ সড়কের শশীভূষণ থানার সামনে, কলমির মোড়,কলের হাট,উত্তর আইচা  মোড়, বেপারী বাড়ির দরজা, হলুদ বিল্ডিং স্কুল সংলগ্ন বাজার, করিমপাড়া বাজার সহ বিভিন্ন স্থানে বেহাল দশা । এসব এলাকায় রাস্তায় তৈরি হয়েঝে  বড় বড়  গর্তের । সামান্য বৃষ্টি হলেই কাদাপানিতে মিশে গিয়ে সমতল দেখানোর কারনে পড়তে হয় দুর্ঘটনার কবলে ।   অটোরিকশার চালক মজিদ বলেন,  ছোট যানবাহন প্রায়ই উল্টে দুর্ঘটনা ঘটছে। সড়ক ও জনপদ ভোলা  বিভাগের নির্বাহী  প্রকৌশলী  মো. নাজমুল ইসলাম বলেন, শশীভূষণ  থেকে দক্ষিণ আইচা সড়কের ১১ কিলোমিটার রাস্তা সংস্কারের জন্য বরাদ্ধ হয়েছে। ঠিকাদার বর্ষার জন্য কাজ হাতে নিচ্ছে না, বর্ষা কমে গেলে খুব শীগ্রই কাজ শুরু হবে  ।
সচেতন মহল সড়কটি জরুরি ভিওি সংস্কার করতে যথাযথ কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছে।
Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ