২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

চুয়াডাঙ্গায় প্রবাসীর স্ত্রীকে গলাকেটে খুন

এম.এ.আর.নয়ন, স্টাফ রিপোর্টার ।। চুয়াডাঙ্গায় এক কুয়েত প্রবাসীর স্ত্রীকে গলাকেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। মঙ্গলবার দিবাগত গভীর রাতে সদর উপজেলার নতুন যাদবপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত জেসমিন ওরফে ময়না খাতুন (৩৮) ওই গ্রামের কুয়েত প্রবাসী হাবিবুর রহমান হাবিলের স্ত্রী। খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয় পুলিশ। বুধবার (৮ই সেপ্টেম্বর) সকাল ৯টার দিকে নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। সেইসাথে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৩ জনকে আটক করা হয়েছে। আটককৃতরা হলো একই গ্রামের মৃত সোহরাব হোসেনের ছেলে হাসান আলী (২৮), বাহার লস্করের ছেলে আব্দুর রহমান (৫২) এবং ওসমান মণ্ডলের ছেলে মামুন মণ্ডল (২৭)।

জানা যায়, বিগত ২০ বছর পূর্বে ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু উপজেলার আব্দুর রাজ্জাকের মেয়ে আয়না খাতুনের সাথে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার মৃত হাতেমের ছেলে হাবিবুর রহমান হাবিলের পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। সাংসারিক জীবনে তাদের রয়েছে ২টি সন্তান। দুই সন্তানের মধ্যে মেয়ে তাসমিনের বিয়ে হয়ে গেছে আর ছেলে আজমিরের বয়স ৮ বছর। সে বাড়ির পাশে ফুফার বাড়িতে থাকে।

সপ্তাহখানেক পূর্বে আয়না খাতুনের শাশুড়ি মারা যাওয়ায় বর্তমানে তিনি একাই বাড়িতে থাকতেন। মঙ্গলবার দিবাগত রাতে বাড়িতে ঢুকে আয়না খাতুনকে গলাকেটে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। ওই সময় তার চিৎকার শুনে আশেপাশের লোকজন এসে ঘরে ঢুকে খাটের উপর আয়না খাতুনের বিবস্ত্র লাশ দেখতে পাই। খবর দেওয়া হয় পুলিশের কাছে। ধারণা করা হচ্ছে ধর্ষণের পর তাকে গলাকেটে হত্যা করা হয়েছে। তবে হত্যার প্রকৃত কারণ এখনো পর্যন্ত জানা যায়নি। নিহতের স্বামী হাবিবুর রহমান হাবিলের ১০ দিন পরে দেশে আসার কথা ছিলো। তবে তিনি তার আগেই দেশে আসবেন বলে জানা গেছে।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ওসি আবু জিহাদ ফকরুল আলম খান জানান, “খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয় পুলিশ। এ ঘটনায় প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৩ জনকে আটক করা হয়েছে। ঘটনার প্রকৃত রহস্য উদঘাটনে কাজ করছে পুলিশ। আশা করছি অতিদ্রুত হত্যার রহস্য উদঘাটন করতে পারবো”।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ