১৮ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
মহাসড়কে যানবাহনের গতিসীমা নিয়ন্ত্রণ করতে বরিশাল জেলা প্রশাসনের অভিযান পটুয়াখালীর দুমকিতে প্রাণিসম্পদ প্রদর্শনী  উদ্বোধনী ও সমাপনী অনুষ্ঠান বরিশালে গাঁজাসহ ২ মাদক ব্যবসায়ী আটক বানারীপাড়ায় তহশিলদার ও সার্ভেয়ারের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ প্রিজন সেলে হাজতিকে হত্যার দাবি স্বজনদের, কারারক্ষীসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা দাম বেড়ে ফের রেকর্ড, স্বর্ণের ভরি ১ লাখ ২০ চরকাউয়া ইউনিয়ন যুবলীগের মতবিনিময় সভায় খান মামুন রাজাপুরে গ্যাস সিলিন্ডার লিক হয়ে মাইক্রোবাসে আগুন পিরোজপুরে তুচ্ছ ঘটনায় যুবককে পিটিয়ে জখম পটুয়াখালীতে মালিক সমিতির সভাপতির বাসকে জরিমানা, দেড় ঘণ্টা মহাসড়ক অবরোধ

ছয় মাস কারাভোগ শেষে ভারত থেকে ফিরেছেন বরগুনার ১১ জেলে

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

বরগুনা প্রতিনিধি :: গভীর সমুদ্রে মাছ ধরার সময় ট্রলারের ইঞ্জিন বিকল হওয়ায় ভাসতে ভাসতে ভারতের জলসীমায় প্রবেশ করার অপরাধে ছয় মাস কারাভোগ করার পর দেশে ফিরে এসেছেন এফবি ফাতেমা নামে একটি ট্রলারের ১১ জেলে।

মঙ্গলবার (৭ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৬টায় সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দর দিয়ে দেশে ফেরেন তারা।

ফিরে আসা জেলেরা হলেন- মো. আলী হোসেন, মো. সামছুল হক, আব্দুল জলিল মিয়া, মো. নবী হোসেন লিচ, মো. খলিল মীর, ফারুক মীর, মো. মুছা, মো. রুবেল, মো. রুস্তম, মো.হারুন ও হাফিজুর রহমান। তাদের বাড়ি বরগুনার পাথরঘাটায়।

এর আগে গত ১৫ আগস্ট ভারতের চব্বিশ পরগনা এলাকার ছোট মোল্লাখালী কোস্টাল এলাকা থেকে ট্রলারসহ আটক ১১ জেলেকে ভারতের পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেন স্থানীয় জেলেরা। পরে ১৬ আগস্ট দুপুরে তাদের আদালতে মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।

বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী জেলেদের ফিরে আসা বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ভারতে থাকা জেলেদের ফিরিয়ে আনার জন্য একাধিকবার ভারতে গিয়েছি। বেশ কয়েকবার নিরাশ হয়ে ফিরে এসেছি।

বাংলাদেশি জলসীমা অতিক্রম করায় ওই দেশের আদালত ১১ জেলেকে ছয়দিন করে কারাদণ্ডাদেশ দেন। কিন্তু ছয়দিনের কারাদণ্ডাদেশে থাকতে হলো ছয় মাস। অবশেষে তারা দেশের মাটিতে পা রেখেছেন। মঙ্গলবার বিকেল নাগাদ তারা বাড়িতে পৌঁছাবেন।

এদিকে ছয় মাস পর জেলেদের ফিরে আসার খবর শুনে বাড়িতে স্বজনদের মাঝে আনন্দের জোয়ার বইছে। জানা যায়, বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) এফবি ফাতেমা ট্রলারটি নিয়ে ১১ জেলে সাগরে মাছ ধরতে যান। তাদের নেতৃত্ব দিচ্ছিলেন চরদুয়ানী ইউনিয়নের সামছুল হক।

এর দুইদিন পর গভীর সমুদ্রে মাছ ধরার সময় ট্রলারের ইঞ্জিন বিকল হয়ে যায়। এরপর তারা ভাসতে ভাসতে বাংলাদেশি জলসীমা অতিক্রম করে ভারতীয় জলসীমায় অনুপ্রবেশ করেন। পরে স্থানীয় জেলেরা তাদের আটক করে পুলিশে দিলে তাদের কারাদণ্ড হয়।

সর্বশেষ