২৩শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম

জ্বরে আক্রান্ত রোগীদের করোনা ও ডেঙ্গু দুটোই পরীক্ষা করাতে হবে

বরিশাল বাণী ডেস্ক: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মোঃ শারফুদ্দিন আহমেদ বলেন, বর্তমানে মানুষ ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হচ্ছে। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের শরীরেও জ্বর থাকে। তাই জ্বরে আক্রান্ত রোগীদের করোনা পরীক্ষার সাথে সাথে ডেঙ্গু পরীক্ষাও করতে হবে এবং পরীক্ষাপ্রাপ্ত ফলাফলের উপর ভিত্তি করেই রোগীর পরবর্তী চিকিৎসাসেবা প্রদান করতে হবে। মাননীয় উপাচার্য বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের পাশাপাশি ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। পুরুষ ও মহিলাদের জন্য মেডিসিন বিভাগে ২৬ শয্যার এবং শিশুদের জন্য শিশু বিভাগে ১২ শয্যার ডেঙ্গু কর্ণার চালু করা হয়েছে। ডেঙ্গজ্বর প্রতিরোধে মাননীয় উপাচার্য মহোদয় জরুরি ভিত্তিতে মশা নিধন কার্যক্রম আরো জোরদার, পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম জোরদার, এডিস মশার উৎপত্তি স্থল ধ্বংস করাসহ অনান্য উদ্যোগ বাস্তবায়নের আহবান জানান। মাননীয় উপাচার্য আরো বলেন, করোনা প্রতিরোধের জন্য মাস্ক পরা, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা ও ভ্যাকসিন বা টিকা নেওয়া ছাড়া আর কোনো বিকল্প নাই। করোনা ভাইরাসের টিকা নিলে রোগীর জটিলতা অনেক কম হয় এবং রোগী দ্রুত আরোগ্য লাভ করে। টিকা নিলে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এই ভাইরাসের কারণে রোগীর মারা যাওয়ার বিষয়টি একেবারেই কম। গ্রামেগঞ্জে যারা এখনও টিকা নেয়নি বিশেষ করে বয়স্করা তারা যেনো জরুরি ভিত্তিতে করোনা ভাইরাসের টিকা নেন। আজ ২৭ জুলাই ২০২১ইং তারিখে মাননীয় উপাচার্য মহোদয় তাঁর কার্যালয়ে গণমাধ্যমে দেয়া এক সাক্ষাতকারে এসব কথা বলেন।
এদিকে আজ ২৭ জুলাই ২০২১ইং তারিখে মাননীয় উপাচার্য মহোদয় অধ্যাপক ডা. মোঃ শারফুদ্দিন আহমেদ প্রশাসনিক মিটিং, আইকিউসি এর উদ্যোগে আয়োজিত কর্মশালা, সুপার স্পেশালাইজড হাসপাতাল ১ ও ২ সম্পর্কিত সভা এবং ‘ইসলাম ও রিপ্রোডাক্টিভ হেলথ’ বিষয়ক সভায় অংশ নেন। এছাড়াও মাননীয় উপাচার্য মহোদয় হাসপাতাল রাউন্ড দেন।

এদিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ডক্টরস ডরমিটরিতে গতকাল ২৬ জুলাই ২০২১ইং তারিখে ১৪ শত ৩০ জনসহ মোট ৬ হাজার ৬ শত ৪০ জন প্রথম ডোজের মডার্নার টিকা নিয়েছেন। গত ১৪ জুলাই ২০২১ইং পর্যন্ত ফাইজারের ৯ হাজার ৫ শত ৬৪ জন প্রথম ডোজের টিকা নিয়েছেন। গতকাল ২৬ জুলাই ২০২১ইং পর্যন্ত অ্যাস্ট্রাজেনেকা, ফাইজার ও মডার্নার মোট ৬৪ হাজার ১ শত ৯৪ জন প্রথম ডোজের টিকা নিয়েছেন। গত ৭ জুলাই পর্যন্ত দ্বিতীয় ডোজের অক্সফোর্ড অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা নিয়েছেন ৪৮ হাজার ২ শত ১৬ জন এবং গত ২৫ জুলাই ২০২১ইং তারিখ পর্যন্ত ফাইজারের দ্বিতীয় ডোজের টিকা নিয়েছেন ৮৪ জন।
বেতার ভবনের পিসিআর ল্যাবে গতকাল ২৬ জুলাই ২০২১ইং তারিখ পর্যন্ত ১ লক্ষ ৬৭ হাজার ৬ শত ৭২ জনের পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। বেতার ভবনের ফিভার ক্লিনিকে ১ লক্ষ ৮ হাজার ৯২ জন রোগী সেবা নিয়েছেন।
এদিকে কেবিন ব্লকে করোনা সেন্টারে আজ ২৭ জুলাই পর্যন্ত ১১ হাজার ১ শত ৪৮ জন রোগী চিকিৎসাসেবা নিয়েছেন। ভর্তি হয়েছেন ৫ হাজার ৯ শত ৯৩ জন। সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরেছেন ৪ হাজার ৯ শত ৩৮ জন। বর্তমানে করোনা সেন্টারে ভর্তি আছেন ২১৫ জন। আইসিইউতে ভর্তি আছেন ২০ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হয়েছেন ১৬ জন।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ