৩০শে নভেম্বর, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
মৃত্যুর প্রথম রাত কেমন হবে ! নৌকা প্রতিকের মনোনয়নপত্র দাখিল করলেন এস এম শাহজাদা পিরোজপুর-৩ আসনে লাঙ্গল পেলেন না ৪ বারের এমপি, হবেন স্বতন্ত্র প্রার্থী বরিশালে বন্ধ করে দেয়া হলো দোকানে পাম্প বসিয়ে তেল বিক্রি অবরোধ সফল ও হরতাল পালন করতে বরিশাল মহানগর বিএনপি মশাল মিছিল বাকেরগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন প্যানেল চেয়ারম্যান ১ আলহাজ... পটুয়াখালী-৪ আসনে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিল বরিশালের ছয় আসনে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন ৪৭ প্রার্থী বরিশালে অটোপাসের আশ্বাসে শিক্ষার্থীদের নিয়ে মিছিলে প্রধান শিক্ষক! বাকেরগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন প্যানেল

তালতলীতে বাঁশ চালান দিয়ে চোর সাব্যস্ত, কিশোরের আত্মহত্যার চেষ্টা

তালতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি ::: বরগুনার তালতলীতে সৌর বিদ্যুৎ-এর ব্যাটারি চুরির ঘটনায় কবিরাজ (ফকির) থেকে বাঁশ পড়া আনা হয়। পরে এলাকাবাসীর সামনে দেওয়া হয় বাঁশ চালান। এই বাশঁ চালানের ভিডিও করে ফেসবুকে পোষ্ট করে হাফিজুর নামের এক যুবক। এতে চুরির অপবাদ নিয়ে ঘৃনায় চোর সাব্যস্ত হওয়া রবিউল আত্যাহত্যার চেষ্টা করেন।

শুক্রবার (২২ সেপ্টেম্বর) সকালে উপজেলার ছোটবগী এলাকার চরপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, উপজেলার চরপাড়া এলাকার কামাল তালুকদারের নিজ ঘর থেকে সৌর বিদ্যুৎতের ব্যাটারি চুরি হয় গত তিন দিন আগে। এ জন্য থানায় কোনো অভিযোগ না দিয়ে আদিম এই কুসংস্কারের সহায়তায় চোর শনাক্ত করার জন্য আমতলী উপজেলার কবিরাজ হোসনেয়ারা বেগমের থেকে বাঁশ পড়া আনেন কামাল তালুকদার। এই বাঁশ পড়া দেওয়ার জন্য একজন তুলা রাশির লোক আনা হয়। পরে এলাকার প্রায় ৫ শতাধিক লোকের সামনে বাঁশ চালান দেওয়া হয়। এতে বিরোধ থাকা জালাল ফরাজীর ছেলে রবিউলকে টার্গেট করে চোর শনাক্ত করা হয়। এই ঘটনাটি সম্পূর্ণটি ভিডিও করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছাড়েন ঐ এলাকার হাফিজুর নামের এক ব্যক্তি। বিষয়টি ভাইরাল হলে রবিউল চুরির অপবাদ নিয়ে ঘৃণায় ঘরে থাকা বিষ খেয়ে আত্যাহত্যা করার চেষ্টা চালায়। পরে পরিবারের সহযোগিতায় বেঁচে যায় রবিউল।

রবিউল বলেন, আমি জেলে, নদীতে মানুষের সাথে কাজ করি। বাঁশ চালান দেখতে যাই আমি। তবে আমাকেই চোর বানানো হয়েছে। কামাল তালুকদারের সাথে আমার একটু ঝামেলা আছে। আমি এ অপবাদ নিয়ে কীভাবে বেঁচে থাকবো তাই আত্যাহত্যা করতে চেয়েছি।

রবিউলের বোন বলেন, আমার ভাই ঘরে এসে বিষ খায়। তবে আমি দেখে ফেলায় সম্পূর্ণ খেতে পারেনি। পরে আমার ভাই বলেন, বাঁশ চালান দিয়ে অহেতুক চোর সন্দেহ করেছেন। সেই ভিডিও আবার ফেসবুকে ছেড়েছে। সবাই আমাকে চোর জেনে গেছে। এজন্য আমি আত্যাহত্যা করবো। পরে আমরা হাফিজুরকে থানায় নিয়ে আসছি। আমরা এই ঘটনার বিচার চাই।

এ বিষয়ে কামাল তালুকদার বলেন, আমার ব্যাটারি চুরি হয়েছে। এ জন্য আমি বাঁশ পড়া এনে তা চালান দেই। তাতে রবিউল চোর শনাক্ত হয়। চুরির বিষয়ে থানায় কোনো অভিযোগ দিয়েছিলেন কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন,থানায় কোনো অভিযোগ করিনি।

ফেসবুকে ভিডিও ছাড়ার বিষয়ে হাফিজুরের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, সবাই বাঁশ চালানের ভিডিও ছেড়েছে তাই আমিও ছেড়েছি।

কবিরাজ (ফকির) হোসনেয়ারা বেগম বলেন, আমি বাঁশপড়া দিতে চাইনি। তারা জোড় করে নিছে। আমি জীবনেও বাঁশ পড়া দিবো না বলে ফোন কেটে দেন।

তালতলী থানার ওসি তদন্ত রনজিৎ কুমার সরকার বলেন, চুরির কোনো বিষয়ে অভিযোগ কেউ করেনি। তাছাড়া বাঁশ চালান দেওয়ার আইনগত কোনো ভিক্তি নেই।

তিনি আরও বলেন, রবিউলের পরিবার থেকে এখনো কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ