২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
রেক্টিফাইড স্পিরিট বিক্রির দায়ে ডাক্তারের ৬ মাস কারাদণ্ড  খেয়ার মাঝিকে মারধরের ভিডিও ভাইরালঃ মামলা নেয়নি পুলিশ সাংবাদিক সোয়েব চৌধুরীর বাবার মৃত্যু বার্ষিকীতে দোয়া মাহফিল উজিরপুরে বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাকিম এর রাষ্ট্রীয় রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন সম্পন্ন কলাপাড়ায় মারধরে জেলে মৃত্যুর ঘটনায় ৪ পুলিশ সদস্য ক্লোজড চরফ্যাসনে পাঁচটি বইয়ের মোড়ক উম্মোচন করলেন তথ্যমন্ত্রী ভাগ্যর কি নির্মম পরিহাস!   ইলিশ চালান করতে ফিরে আসলেন লাশ হয়ে  জাতিসংঘের ৭৬তম অধিবেশনের প্রধানমন্ত্রীর যোগদান : নলছিটিতে গরু চোর আটক ! উজিরপুরে মাইক্রেবাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে চটপটির দোকান তছনছ, আহত ৪

######### তৈল সাংবাদিক ######

গত ক’বছর ধরে তৈল সাংবাদিকের সংখ্যা হু হু করে বাড়ছে। বিশেষ করে জেলা-উপজেলায় এমন সাংবাদিকের আধিক্য বেশি। এরা ডিসি, পুলিশ সুপার, ইউএনও, এসি ল্যান্ড, এমনকি কোনো এসআই কর্মস্থলে যোগ কিংবা বিদায় নিলে ফেসবুকে অভিনন্দন
ের বন্যা বইয়ে দেয়। কোনো কোনো আন্ডার গ্রাউন্ড পত্রিকায় এসব কর্মকর্তার ছবি বড় করে দিয়ে তিন কলাম রিপোর্টও ছাপা হয়। এসব দেখে পেশাদার সাংবাদিকরা আফসোস করেন। তাদের প্রশ্ন, কোথায় গিয়ে ঠেকেছে সাংবাদিকতা?
সরকারি কর্মকর্তা আসবেন, যাবেন- এটাই নিয়ম। তারা তাদের কর্মস্থলে নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করবেন। নিজের জীবনের সেরাটা দেয়ার চেষ্টা করবেন। কিন্তু তিনি স্বাভাবিক কোনো কাজ করলেও বাহ্ বাহ্ রব ওঠে। ইদানীং ফেসবুকে পত্রিকার মতো রিপোর্ট আকারে এমন রিপোর্ট চোখে পড়ে। সেখানে লেখা থাকে- জেলা বা উপজেলার নাম দিয়ে প্রতিনিধি। এরপর রিপোর্ট শুরু হয়। আশ্চর্য! যেন ফেসবুক একটা পত্রিকা। যেখানে পত্রিকার মতো করে রিপোর্ট লিখছে। ওইসব তৈল সাংবাদিকরা আবার যাকে তেল দিয়ে রিপোর্ট লিখেছেন তার কাছে গিয়ে ফেসবুকের সে রিপোর্ট দেখান। তিনিও বুঝে কিংবা না বুঝে আনন্দে লাফান।
আর রিপোর্টে যে সব বিশেষণ ব্যবহার করা হয় তা সাংবাদিকতার সঙ্গে মিলে না। জনবান্ধব, কর্মঠ, গরিবের বন্ধু, অপরাধীদের আতঙ্ক অমুক যোগ দিয়েছেন এ উপজেলায়। আবার কোথাও কোথাও দেখা যায় কোনো ওসি বদলি হলে একদল সাংবাদিক তাকে রাখার জন্য সরাসরি মাঠে নামেন। তারপক্ষে ফেসবুকে লিখে আলোড়ন তোলেন। একবারও ওই সব লেখক চিন্তা করেন না, সাধারণ মানুষের জন্য এসব কর্মকর্তার চাকরি। বদলিজনিত এ চাকরিতে যে কোনো সময় বদলি হতেই হবে। বদলি হওয়ার পর তার পক্ষে লিখে তাকে ফেরানো সম্ভব নয়। বরং যার পক্ষে লিখছেন তার ক্ষতিই হচ্ছে। আবার এরাই একদিন পর বদলি হওয়া কর্মকর্তার স্থলে যোগ দেয়া কর্মকর্তার পক্ষে ফেসবুকে তেল ঢেলে দিচ্ছেন।
এসব দেখে সাধারণ মানুষ হাসে। সাংবাদিকতার নাম ভাঙিয়ে এরা এসব করে। অথচ সাধারণ মানুষ জানেন না যে এরা সাংবাদিক নন। তৈল সাংবাদিক। নামধারী সাংবাদিক। নিজেই একটি অনলাইন বের করে সাংবাদিক সেজেছেন। নতুবা ফেসবুকে লিখে নিজেকে সাংবাদিক পরিচয় দেন। আবার তার সঙ্গে টেনে এনেছেন তারই মতো চাটুকার কিছু মানুষ। যারা তৈল রিপোর্ট করে বিভিন্ন জায়গায় দেখিয়ে ভিক্ষায় নামেন।
পেশাদার সাংবাদিকরা লাজে মরলেও তাদের করার কিছু থাকে না। কারণ কিছু কিছু ইউএনও, ওসি তেল পছন্দ করেন। কিছু কিছু ডিসি, পুলিশ সুপার তেলের ডালির জন্য অপেক্ষা করেন। আর এ তেল পেয়ে তারা সব জেনেও চুপ থাকেন।
লেখাঃ শামীমুল হক
নির্বাহী সম্পাদক,
দৈনিক মানবজমিন

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ