১৫ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্য কলাপাড়ার ‘মিঠাগঞ্জ’

কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি।। পটুয়াখালী কলাপাড়ার মিঠাগঞ্জ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক রাকিবুল ইসলামকে কুপিয়ে জখম করে ডান ডান হাতের কব্জি কেটে ফেলার ঘটনায় তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার ভোর রাতে পুলিশের পৃথক দুটি দল মিঠাগঞ্জ ও নাচনাপাড়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে খলিল, নোমান ও নয়ন বয়াতীকে গ্রেফতার করে। এর আগে আহত রাকিবৃুলের মা রাহিমা বেগম বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার রাতে ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি তরিকুল ইসলামকে প্রধান আসামী করে ১৭ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আট জনের বিরুদ্ধে কলাপাড়া থানায় মামলা দায়ের করেন। কলাপাড়ার সন্ত্রাসের ক্রাইম জোন হিসেবে বর্তমানে পরিচিত মিঠাগঞ্জ ইউনিয়ন। ইউনিয়ন ছাত্রলীগের দুটি গ্রুপের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। এলাকার খাল, সুইজ দখলসহ বিভিন্ন কাজের বাটোয়ারা নিয়ে তাদের মধ্যে একাধিকবার ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সশস্ত্র হামলার ঘটনা ঘটেছে। ২০১৯ সালে ছাত্রলীগের রাকিবুল গ্রুপের সদস্যরা রায়হানকে কুপিয়ে জখম করে তার হাতের রগ কর্তন করে। এ বছরের জুন মাসে কাটাখালী খালের সুইজ নিয়ন্ত্রন নিয়ে বয়াতী ও হাওলাদার গ্রুপের মধ্যে দু’দফা সশস্ত্র সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে নারী-পুরুষসহ অন্তত ২৫ জন আহত হয়েছে। এ ঘটনায়ও মিঠাগঞ্জ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সশস্ত্র ক্যাডাররা জড়িত ছিলো। এ নিয়ে থানায় মামলা হয়েছে একাধিক। সর্বশেষ গত বুধবার (২৮ জুলাই) রাতে রাকিবুলের কব্জি কেটে ফেলে ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি তরিকুল ইসলাম ও তার ভাই রায়হানের নেতৃত্বে সশস্ত্র যুবকরা। এলাকায় আধিপত্য ও দলীয় অভ্যন্তরীন কোন্দলের জের ধরে এ হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে এলাকার মানুষ জানান। স্থানীয়রা জানান, বয়সে ১৫ থেকে ২৫ বছরের দুই গ্রুপের কিশোর-যুবারা সামান্য বিরোধ হলেই রামদা, বগি,ছেনা,চাপাতি ও রড নিয়ে বের হয়। তারা মাদকেও জড়িয়ে পড়ছে বলে এলাকার মানুষ ভয়ে তটস্থ্য থাকে। সকাল থেকে সন্ধা পর্যন্ত বালিয়াতলী থেকে তেগাছিয়া পর্যন্ত এদের দৌরাত্ব চলে। এ ব্যাপারে কলাপাড়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়জুল ইসলাম আশিক তালুকদার বলেন, মিঠাগঞ্জে ছাত্রলেিগর বিবাদমান গ্রুপের সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে তারাও বিব্রত। এর আগেও একাধিক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি নাজমুল হক জানান, দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে মিঠাগঞ্জ ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি তরিকুল ইসলামকে দল থেকে বহিস্কার করেছে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। বৃহস্পতিবার রাতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্রাচার্র্য সাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ বহিস্কার করা হয়। কলাপাড়া থানার উপ পরিদর্শক মো. আসাদুর রহমান জানান, রাকিবুলের হাতের কব্জি কেটে ফেলার ঘটনায় তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের শুক্রবার আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরন করা হবে। মামলার অন্য অসামীদেরও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে জানান।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ