৪ঠা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
রাঙ্গাবালীতে পুত্রবধু পেটালেন বৃদ্ধ শশুরকে বানারীপাড়ায় ডিবি পুলিশের অভিযানে ইয়াবাসহ ২মাদক কারবারি আটক বিয়ানীবাজারে নিখোঁজ সিয়ামের সন্ধান চেয়ে থানায় জিডি টেন্ডার ছাড়া মালামাল বিক্রির অভিযোগ বিদ্যালয়ের সভাপতি ও প্রধান শিক্ষকের উপর ঝালকাঠীতে ডাটা এন্ট্রি কার্যক্রমের অগ্রগতি বিষয়ক পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত বানারীপাড়ায় ১০ম শ্রেণী'র ছাত্র মনিরের আত্মহত্যা, স্কুলের অভিযোগ এনে মানববন্ধন প্রেমিককে নিয়ে নিজের ছেলেকে গাড়িচাপায় হত্যা করে নদীতে ফেলল মা! বানারীপাড়ায় স্কুল ছাত্র মনিরের আত্মহত্যার ঘটনায় শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন ৩ মাদক ব্যবসায়ী আটক চাকরি দেওয়ার কথা বলে ধর্ষণ

নৌকার মাঝি হতে চান বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান আকন্দ

শফিকুল ইসলাম :

বাবুগঞ্জ উপজেলার ২ নং কেদারপুরের ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হিসেবে নৌকার প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করার প্রত্যয়ে রবিবার বিকাল ৫ টায় বাবুগঞ্জ উপজেলা প্রেসক্লাব মিলনায়তনে উপজেলার বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় কর্মরত ও স্থানীয় সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব শাহজাহান আকন্দ।

আসন্ন ইউপি নির্বাচনকে সামনে রেখে ইতোমধ্যেই সভা-সমাবেশ, সামাজিক, রাজনৈতিক ও সেবামূলক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে ইউনিয়নবাসীকে ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদ প্রার্থীরা তাদের প্রার্থীতার বিষয়টি জানান দিচ্ছেন।

এদের মধ্যে অন্যতম একজন কেদারপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি বীর-মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মোঃ শাহজাহান আকন্দ। তিনি ইউনিয়নের স্বনামধন্য একটি পরিবারের সন্তান। স্বাধীনতা যুদ্ধকালীন সময়ে তিনি হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে অস্ত্র হাতে তুলে নিয়েছেন। এছাড়াও তিনি থানা আওয়ামী লীগের লীগের একজন প্রবীণ নেতা।

নিজের ইউনিয়নে সবসময় সেবামূলক কার্যক্রমে পরিচালনা করেন মনোনয়ন প্রত্যাশী এই নেতা।

এছাড়াও তিনি করোনাকালীন সময়ে বিভিন্ন ধরনের খাদ্যসামগ্রী, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও নগদ অর্থ বিতরণ করেন।

এ সময় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব
মোঃ শাহজাহান আকন্দ বলেন,

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আমি কেদারপুর ইউনিয়ন থেকে আওয়ামীলীগ দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী। তিনি বলেন আমি দীর্ঘ ১৭ বছর কেদারপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছি। এ সময়ের মধ্যে দলীয় সৃঙ্খলা ভঙ্গের কোন কাজ করিনি দলের কাছ থেকে অনৈতিক সুবিধা গ্রহন করিনি। এ ইউনিয়নের অসহায় মানুষের সেবায় প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছি।

‘আমি আমার ইউনিয়নকে নিয়ে যেতে চাই আধুনিকতার উচ্চ শিখরে। আমি আওয়ামী লীগের একজন প্রবীণ নেতা। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ রয়েছে আমার মাঝে। তাই আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দলীয় সমর্থনের পাশাপাশি এই ইউনিয়নবাসীর সমর্থন ও দোয়া নিয়ে চেয়ারম্যান পদে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন করতে চাই। আমার চাওয়া-পাওয়ার কিছু নাই আমি যতদিন পৃথিবীতে বেঁচে আছি জনকল্যাণকর কাজে নিজেকে উৎসর্গ করতে চাই।’

দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী উল্লেখ করে এই প্রবীন নেতা আরও বলেন, ‘আমি নৌকা প্রতীক নিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে আধুনিক বরিশালের রুপকার সফল সাংসদ আলহাজ্ব আবুল হাসনাত আবদুল্লাহর এবং  বাংলার সফল প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে আরও বেশি শক্তিশালী করবো। পাশাপাশি আমার ইউনিয়ন কেদারপুরকে আধুনিক ও ডিজিটাল ইউনিয়নে রূপান্তরিত করবো। আমি কথা দিচ্ছি চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়ে নির্বাচিত হলে কেদারপুর ইউনিয়নকে একটি মডেল ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তুলবো ইন্শআল্লাহ। এসময় তিনি সাংবাদিকদের সহযোগিতা কামনা করেন।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email