৩রা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
ভোলায় অনলাইন মার্কেটিং ও কমিউনিটি মিনি ফেয়ার ২০২২ অনুষ্ঠিত নৌকা মুক্তির সোপান, দেশের মানুষকে মুক্তি দিয়েছে নৌকা নির্ধারিত সময়ের পাঁচ ঘন্টা আগেই শুরু হলো রাজশাহীতে বিএনপির গণসমাবেশ জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা’র নবনির্বাচিত কেন্দ্রীয় পরিষদকে বরিশাল নেতৃবৃন্দের শুভেচ্ছা শেখ হাসিনা সরকার রাষ্ট্র ক্ষমতায় না এলে এদেশে কোন সম্প্রীতি থাকবে না আবারও এদেশে পাকিস্তানী পতাকা উ... জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা’র কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব হলেন বরিশালের মামুন-অর-রশিদ বরিশালে কর্মীদের জুতাপেটা করে শাসন করলেন ছাত্রলীগ নেতা জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা’র কেন্দ্রীয় কমিটিতে পুনরায় পদ পেলেন বরিশালের দুই সাংবাদিক "টাইমস ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ" ক্যাম্পাস জীবনের শেষ প্রান্তে জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা’র কেন্দ্রীয় কমিটি গঠন

পটুয়াখালীতে জোড়া লাগা জমজ শিশুর জন্ম

পটুয়াখালী প্রতিনিধি :: পটুয়াখালী ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে গত ২৮শে ফেব্রুয়ারি (রোববার) দুপুরের দিকে জোড়া লাগা অবস্থায় জমজ শিশুর জন্ম দেন রেখা বেগম (১৮)। কিন্তু বর্তমানে অর্থাভাবে জমজ শিশুর চিকিৎসা করাতে পারছেন না দরিদ্র বাবা বশির সিকদার। প্রসূতি বর্তমানে সুস্থ থাকলেও জোড়া লাগা জমজ শিশুদের স্ক্যানুতে রাখা হয়েছে।

পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজের গাইনী বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. জাকিয়া সুলতানা জানান, কনজয়েন্ট বেবী এবং প্রিম্যাচিওর। মাত্র ৩২ সপ্তাহে এই জমজ বাচ্চা প্রসব করানো হয়েছে। তাদেরকে চিকিৎসার জন্য ঢাকা নিয়ে যাওয়ার কথা বলা হয়েছিল। কিন্তু আর্থিক সমস্যা থাকায় অভিভাবক রাজী হননি। এই বাচ্চার উন্নত চিকিৎসা প্রয়োজন, যা পটুয়াখালীতে সম্ভব না।

দেখা গেছে, যমজ দুই শিশুর পেটের নিচ থেকে জোড়া লাগানো। শিশু দুইটির হাত, পা ও হৃদপিণ্ড আলাদা। তবে তাদের প্রসাব ও পায়খানার রাস্তা নেই। জটিল চিকিৎসার ব্যয়ভার আর অস্ত্রপাচারের জটিলতা নিয়ে দেখা দিয়েছে অনিশ্চয়তা। ঢাকা নিয়ে যাওয়ার কথা বলা হলেও আর্থিক কষ্টে হচ্ছে না সেটা।

শিশুর বাবা বশির সিকদার বলেন, ‘অর্থাভাবে আমার শিশুর উন্নত চিকিৎসা করাতে পারছি না। ডা. বলেছে চিকিৎসার জন্য ঢাকা নিয়ে যাওয়ার কথা।’

পটুয়াখালী সিটিজেন হেল্থ কমপ্লেক্সের ডা. মিঠুন চন্দ্র বলেন, দুটি কারনে জোড়া লাগা যমজ শিশুর জন্ম হয়। প্রথম কারণ, জিনগত বা বংশগত কারণে অথবা ওষধের কারণে। যমজ শিশু জন্ম নেয়ার একটি অন্যতম কারণ হচ্ছে, বংশগত কারণ। তবে এই শিশুর জটিল অস্ত্রোপচার পটুয়াখালীতে হবে না।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ