১৯শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
বিয়ের দাবী নিয়ে ইডেন পড়ুয়া ছাত্রী চরফ্যাশন প্রেমিকার বাড়িতে ২দফা অনশন! শিক্ষিকাকে কুপিয়ে হত্যার চেস্টা, গ্রেপ্তার-১ সাংবাদিক শাহিন হাফিজের "মা" র মৃত্যু, এনডিবিএ'র শোক প্রকাশ মহাসড়কে যানবাহনের গতিসীমা নিয়ন্ত্রণ করতে বরিশাল জেলা প্রশাসনের অভিযান পটুয়াখালীর দুমকিতে প্রাণিসম্পদ প্রদর্শনী  উদ্বোধনী ও সমাপনী অনুষ্ঠান বরিশালে গাঁজাসহ ২ মাদক ব্যবসায়ী আটক বানারীপাড়ায় তহশিলদার ও সার্ভেয়ারের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ প্রিজন সেলে হাজতিকে হত্যার দাবি স্বজনদের, কারারক্ষীসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা দাম বেড়ে ফের রেকর্ড, স্বর্ণের ভরি ১ লাখ ২০ চরকাউয়া ইউনিয়ন যুবলীগের মতবিনিময় সভায় খান মামুন

পবিপ্রবিতে ক্লাস-পরীক্ষা চালু করতে প্রশাসনের সাথে শিক্ষার্থীদের আলোচনা

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

জান্নাতীন নাঈম জীবন, পবিপ্রবি প্রতিনিধি:

পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (পবিপ্রবি) কর্মকর্তা কর্তৃক শিক্ষক লাঞ্ছনার ঘটনায় ক্লাস-পরীক্ষা ১৪ দিন ধরে বন্ধ রয়েছে। গত ১৭ ফেব্রুয়ারি রাতে কৃষিকুঞ্জের ডাইনিং কক্ষে কর্মকর্তা রাসেল কর্তৃক শিক্ষক লাঞ্ছনার ঘটনায় রাসেলকে চাকরিচ্যুত করার দাবিতে ১৮ ফেব্রুয়ারি থেকে পবিপ্রবির ক্লাস-পরীক্ষা কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে।

শনিবার (২ মার্চ) সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি কনফারেন্স রুমে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ক্লাস প্রতিনিধি, ছাত্রলীগের সভাপতি,সেক্রেটারি এবং ছাত্র প্রতিনিধিদের নিয়ে আলোচনা সভায় বসেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. স্বদেশ চন্দ্র সামন্ত জানান, এই প্রক্রিয়ায় লম্বা সময়ক্ষেপণ এর কারণে গত ২২ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার অভিযুক্ত রাসেলের সাময়িক চাকুরিচ্যুত করার নোটিশ দেওয়ার কথা ছিল। কিছু কর্মকর্তার কারণে পিছিয়ে যায়। পরবর্তী দিন রাসেলের একমাত্র সন্তান দূর্ঘটনায় পানিতে ডুবে মারা যায় যা রাসেলের জন্য খুবই মর্মান্তিক ঘটনা। যার পরিপ্রেক্ষিতে মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে শিক্ষক ও সাধারণ ছাত্রদের আন্দোলন স্থগিত করা হয়েছিল।

শিক্ষার্থীরা এসময় জানান, লম্বা সময় ধরে ক্লাস ও পরীক্ষা বন্ধ থাকায় শিক্ষা কার্যক্রমে একটি বড় ধরনের প্রভাব পড়েছে এবং সেমিস্টার পিছিয়ে পড়ার পথে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে তাদের দাবি যত দ্রুত সম্ভব ক্লাস-পরীক্ষার স্বাভাবিক কার্যক্রম ফিরিয়ে আনা। এজন্য শিক্ষক লাঞ্ছনার ঘটনায় যে ধরনের পদক্ষেপ নেয়ার প্রয়োজন তা প্রশাসনকে দ্রুত নেয়ার আহ্বান জানানো হয়।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. স্বদেশ চন্দ্র সামন্ত শিক্ষার্থীদের সাথে একমত হয়ে বলেন, খুব দ্রুতই আমরা ক্লাস-পরীক্ষায় ফিরে যাওয়ার চেষ্টা করতেছি। এরকমভাবে বিশ্ববিদ্যালয় চলতে পারে না। শিক্ষক সমিতির নিকট রাসেল লিখিতভাবে ভুল স্বীকার করেছে। তাদের সাথে আলোচনা করে যত দ্রুত সম্ভব আমরা ক্লাস-পরীক্ষায় ফিরে যাবো।

সর্বশেষ