১৫ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
উত্তরায় প্রাইভেটকার যাত্রীদের প্রাণহানির ঘটনায় প্রধানমন্ত্রীর শোক উত্তরায় সড়কে বিআরটি প্রকল্পের গার্ডার পড়ে প্রাইভেটকারের ৪ যাত্রী নিহত প্রবাসীদের বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ করার আহবান জানালেন রাষ্ট্রদূত শোক দিবসে ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে ফ্রি ক্যাম্প, আলোচনা ও দোয়া অনুষ্ঠিত জন্মনিবন্ধনে মা-বাবার জন্ম সনদ আর লাগবে না আগামী বছর নতুন শিক্ষাক্রমে সপ্তাহ হবে পাঁচ দিন: শিক্ষামন্ত্রী পবিপ্রবিতে যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতীয় শোক দিবস পালিত নাজিরপুরে নিজের বাল্য বিয়ে ঠেকালো স্কুল ছাত্রী মিঠাগঞ্জ ইউনিয়নে জাতীয় শোক দিবস পালিত জাতীয় শোক দিবসে পটুয়াখালী চেম্বার অব কমার্সের আয়োজনে দোয়া মিলাদ অনুষ্ঠিত

পরীমনির জামিনের জন্য হাই কোর্টে আবেদন :

মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশ জামিন আবেদনের শুনানির জন্য ১৩ সেপ্টেম্বর তারিখ রেখে গত রোববার যে আদেশ দিয়েছেন, তার যৌক্তিকতা বিবেচনার (রিভিশন) আবেদন করা হয়েছে হাই কোর্টে।

সেই সঙ্গে হাই কোর্টে পরীমনির জামিনেরও আবেদন করা হয়েছে বলে তার আইনজীবী মজিবুর রহমান জানিয়েছেন।

বুধবার সকালে বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম ও বিচারপতি কে এম জাহিদ সারওয়ারের ভার্চুয়াল হাই কোর্ট বেঞ্চের অনুমতি নিয়ে আবেদনটি করা হয়।

মজিবুর রহমান বরিশাল বাণীকে বলেন, “গত ২২ অগাস্ট ঢাকার মহানগর দায়রা জজ আদালত জামিন আবেদনে যে আদেশটি দিয়েছেন সেটি চ্যালেঞ্জ করা হয়েছে। পাশাপাশি জামিন চাওয়া হয়েছে। আগামীকাল আবেদনটি শুনানির জন্য মেনশন করব, এরপর কবে শুনানি হবে বলতে পারব।”

গত ৪ অগাস্ট রাতে ঢাকার বনানীতে পরীমনির বাসায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। পরদিন তার বিরুদ্ধে বনানী থানায় মাদক আইনে এ মামলা করা হয়। জব্দ তালিকায় পরীমনির বাসা থেকে ‘মদ এবং আইস ও এলএসডির মতো মাদকদ্রব্য’ উদ্ধারের কথা বলা হয়।

ঢাকার মহানগর হাকিম আতিকুল ইসলাম গত ১৯ অগাস্ট পরীমনির জামিন আবেদন নাকচ করে তাকে এ মামলায় তৃতীয় দফায় আরও এক দিনের রিমান্ডে পাঠানোর আদেশ দেন।

সেই রিমান্ড শেষে পরীমনিকে ২১ অগাস্ট আদালতে হাজির করে মামলার তদন্ত সংস্থা সিআইডি। তদন্ত কর্মকর্তা তাকে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন।

কিন্তু পরীমনির আইনজীবীরা জামিনের কোনো আবেদসে এদিন করেননি। শুনানি শেষে ঢাকার মহানগর হাকিম আশেক ইমাম পরীমনিকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন

জামিন আবেদন না করায় শুনানি শেষে পরীমনি প্রকাশ্যেই তার আইনজীবীদের কাছে ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

আইনজীবী নীলাঞ্জনা রিফাত সুরভী ও কামরুজ্জামান চৌধুরীকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, “আপনারা জামিন চান না কেন? আমি তো পাগল হয়ে যাচ্ছি।”

“আপনারা বুঝতেছেন, আমার কী কষ্ট হচ্ছে? আপনাদের নিজেদের মধ্যে কী হয়েছে? কেন জামিন চাচ্ছেন না?”

পরীমনির আইনজীবী মজিবুর রহমান পরদিন ঢাকার জজ আদালতে জামিনের আবেদন জমা দেন। বিচারক কে এম ইমরুল কায়েশ সে আবেদন শোনার জন্য ১৩ সেপ্টেম্বর দিন রাখেন, যা নিয়ে এখন আপত্তি করছেন পরীমনির আইনজীবী।

 মজিবুর রহমান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “পরীমনির অসুস্থতা এবং তার জামিনের অনিবার্যতার বিষয়টি উল্লেখ করে আবেদনটি করা হয়েছিল। কিন্তু আবেদনটির শুনানি এত দীর্ঘ সময় পর রাখা হয়েছে।

“মামলার গুরুত্ব বিবেচনা করলে এত লম্বা তারিখ দেওয়ার কথা না। এতে আমরা অসন্তুষ্ট। ফলে এ আদেশের যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে (হাই কোর্টে রিভিশন) আবেদনটি করা হয়েছে। সাথে পরীমনির জামিন চাওয়া হয়।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ