২রা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
বিখ্যাত মনীষীদের দৃষ্টিতে যেমন ছিলেন মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) ২৫ বছরেও শান্তি ফেরেনি পাহাড়ে ! বাস্তবায়ন হয়নি পার্বত্য শান্তিচুক্তির অধিকাংশ ধারা বাকেরগঞ্জে ককটেল বিস্ফোরণ ! আটক-৩, সাড়াশি অভিযান চলছে শেবাচিম পরিচালক ও চিকিৎসকের উপর ক্ষুব্ধ হলেন স্বাস্থ্য সচিব চালককে অজ্ঞান করে ইজিবাইক ছিনতাই নবায়ন ও ট্রেড লাইসেন্সবিহীন প্রতিষ্ঠানের খোঁজে মাঠে বিসিসি বরিশালে চুরি হওয়া ১৭টি মোবাইল উদ্ধার করে মালিকদের হস্তান্তর জিপিএ-৫ পেয়েও অর্থের অভাবে কলেজে ভর্তি হওয়া অনিশ্চিত কেয়া’র বিয়ের আসরেই স্ত্রীকে চুমু দেওয়ায় ‘ডিভোর্স’! বন্ধুর স্ত্রীর গোসলের ভিডিও ধারণ, অতঃপর. . . . .. .

পিরোজপুরে যৌতুক ও নারী নির্যাতনের মামলায় মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা কারাগারে

পিরোজপুর প্রতিনিধি: পিরোজপুরে স্ত্রীর দায়ের করা যৌতুক ও নারী নির্যাতনের মমালায় জেলার কাউখালী উপজেলার সাবেক মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা ও মোড়লগঞ্জ উপজেলার বর্তমান উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মো. আলমগীর হোসেন (৫২) কে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত। বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) পিরোজপুর জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালতের বিচারক মো. মিজানুর রহমানের আদালত এ আদেশ প্রদান করেন। মামলাটি দায়ের করেন ওই কর্মকর্তার দ্বিতীয় স্ত্রী মোসাম্মাৎ রুপিয়া বেগম। মো. আলমগীর হোসেন পিরোজপুর পৌরসভার রানীপুর এলাকার মৃত আবু বকর আকনের ছেলে।

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালতের পিপি মো. আলাউদ্দিন খান ওই কর্মকর্তার কারাগারে প্রেরনের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ওই কর্মকর্তার দ্বিতীয় স্ত্রীর দায়ের হওয়া মামলায় ওই দিন তিনি আদালতে জামিন নিতে গেলে আদালত তার জামিন আবেদন না মঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরন করেন।

দায়ের হওয়া মামলা ও আদালত সূত্রে জানা গেছে, ওই কর্মকর্তার সাথে তার দ্বিতীয় স্ত্রী রুপীয়া বেগমের সাথে গত বছরের ২৮ জুলাই প্রেম করে বিয়ে হয়। ওই কর্মকর্তা তার আগের সংসারের স্ত্রী ও সন্তানের তথ্য গোপন করে ওই নারীকে বিয়ে করেন। বিয়ের পর থেকে তাকে যৌতুকের জন্য বিভিন্ন সময় শারিরীক ও মানসিক নির্যাতন করতেন। এ অভিযোগে ওই দ্বিতীয় স্ত্রী বাদী হয়ে গত ৭ মার্চ পিরোজপুর সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

ওই মামলার বাদী রুপীয়া বেগম জানান, তিনি জেলার কাউখালী মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা থাকাকালীন একই অফিসের একটি প্রকল্পের অধীনে চাকুরী করতেন। এ সময় তাকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে ও আগের স্ত্রী-সন্তানের তথ্য গোপন রেখে বিয়ে করেন।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ