৭ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
আমতলী থানার ওসি একেএম মিজানুর রহমান জেলার শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ নির্বাচিত গলাচিপায় এ্যাম্বুলেন্স সেবায় চলছে রমরমা ব্যবসা। ৪ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর চরকাউয়া থেকে বাস চলাচল শুরু পটুয়াখালী জেলা পরিষদের আয়োজনে বীর মুক্তিযোদ্ধা, আগুনে ক্ষতিগ্রস্থ ও ছাত্র ছাত্রীদের মাঝে চেক প্রদান আমতলী পৌরসভায় ৪৬২১ জন হতদরিদ্রদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার স্ত্রী-বোনের টাকায় ট্রাক্টর কিনলেন পলাশ গলাচিপায় ঐতিহ্যবাহী গ্রামীন শিল্প হোগল পাতা বিলুপ্তির পথে ব্যবসায়ী নাজমুল সাদাতের পিতার জানাজা সম্পন্ন ব্যবসায়ী নাজমুল সাদাতের পিতার জানাজা সম্পন্ন মাহাফুজুর রহমানের "স্বপ্নে দেখা সেই মেয়েটি" লাজুক

পিরোজপুরে নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে স্কুল ভবন নির্মাণ, শিক্ষকদের ক্ষোভ

পিরোজপুর প্রতিনিধি :: পিরোজপুরের পাড়েরহাট রাজলক্ষ্মী মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও কলেজের নতুন চারতলা ভবন নির্মাণে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারে অভিযোগ উঠেছে। জেলার ইন্দুরকানী উপজেলার পাড়েরহাটে এই বিদ্যালয় ভবনটির কলামের ঢালাই নির্মাণ শেষের আগেই খুলে পড়তে দেখে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে শিক্ষকরা।

এর প্রতিকার চাওয়ায় অভিযোগকারীদের বিরুদ্ধে চাঁদিবাজির মামলা দেওয়া হবে বলেও অভিযোগ উঠেছে।

বিদ্যালয়ের জ্যেষ্ঠ শিক্ষক শিবশংকর সাহা অভিযোগ করেন, “ভবনের কাজ হচ্ছে নিম্নমানের। গ্রেড-ননগ্রেড রড দিয়ে পিলার ঢালাইয়ের কাজ করা হয়েছে। করোনাভাইরাস মহামারীতে আমরা বিদ্যালয়ে না থাকায় তারা এভাবে কাজ করছে।”

ওপর মহলে অভিযোগ দিয়েও কোনো সুফল মেলেনি বলে অভিযোগ করেছেন বিদ্যালয়ের অপর শিক্ষক মোস্তফা তালুকদার।

তিনি বলেন, “আমরা বিভিন্নভাবে কয়েকবার ওপর অভিযোগ দেওয়ার কারণে আমাদের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি মামলা দেওয়া হবে বলেও হুমকি দিয়েছেন ঠিকাদার।”

শনিবার সকালে বিদ্যালয়ে চতুর্থ তলায় কলামের শাটারিং খোলার সময় ঢালাই খুলে পড়ে বলে অভিযোগ করেন এলাকাবাসী।

তবে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান আলেয়া কনস্ট্রাকশনের মালিক নাসির শেখ সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

তিনি বলেন, “নিম্নমানের মালামাল ব্যবহার করা হয়েছে বলে যে অভিযোগ উঠেছে তা ঠিক না। চাঁদাবাজির মামলার হুমকিও ঠিক নয়।

“মিস্ত্রিদের ভুলের কারণে এমনটা হয়েছে। ভবনের চতুর্থ তলার কলামের ঢালাই দেওয়ার সময় মিস্ত্রি সঠিকভাবে কাজ না করার জন্য এই ভুল হয়েছে।”

এ বিষয়ে জেলা শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী প্রতিভা সরকার বলেন, “ঘটনা শোনার পরপরই একজন ইঞ্জিনিয়ার পাঠানো হয়েছে। কলাম নিম্নমানের হলে তা আবার করা হবে। কেন এ ঘটনা ঘটল এ বিষয়ে ঠিকাদারের কাছে জানতে চেয়ে নোটিশ দেওয়া হবে এবং পরে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।।”

বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা জানান, জেলা শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের অধীনে দুই কোটি ৮১ লাখ টাকায় চারতলা এই ভবনটি নির্মাণ করা হচ্ছে। নির্মাণকাজের ত্রুটির কারণে তারা এই ভবন নিয়ে আতঙ্কে রয়েছেন বলে জানান।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ