১৫ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
বঙ্গোপসাগরে সুস্পষ্ট লঘুচাপঃ কুয়াকাটা সৈকত থেকে সরিয়ে নেয়া হচ্ছে ক্ষুদ্র প্রতিষ্ঠান চর জহিরুদ্দিনের মোশাররফ হোসেন কাশেমকে বাঁচাতে এগিয়ে আসুন বরিশালে বৃষ্টি-জোয়ারের পানিতে তলিয়ে গেছে বিভিন্ন এলাকা ! বরিশালে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বৃ্দ্ধকে মারধর, শেবাচিমে ভর্তি ! রাঙ্গাবালীতে তেল সারের মূল্যবৃদ্ধিতে কৃষকের গলার কাঁটা প্রধানমন্ত্রীর দেয়া আশ্রয়নের ঘরে থাকছে না বেশিরভাগ সুবিধাভোগীরা, ঝুলছে তালা মনপুরায় লঘুচাপ ও পূর্ণিমার জ্যো’র প্রভাবে মেঘনার জোয়ারে নিম্মাঞ্চল প্লাবিত মনপুরায় লঘুচাপ ও পূর্ণিমার জ্যো’র প্রভাবে মেঘনার জোয়ারে নিম্মাঞ্চল প্লাবিত প্রধানমন্ত্রীর দেয়া আশ্রয়নের ঘরে থাকছে না বেশিরভাগ সুবিধাভোগীরা, ঝুলছে তালা ঝালকাঠিতে অগ্নিদগ্ধ লঞ্চ এমভি অভিযান-১০ মালিককে ফেরত

প্রেমের টানে তামিলনাডু থেকে বরিশালে আসা যুবককে মারধর

ডেক্স নিউজ–

প্রেমের টানে প্রেমিকার নিজ দেশ বাংলাদেশের বরিশালে আসেন ভারতীয় যুবক প্রেমকান্ত। তিন দিন ধরে যে ধকল তার ওপর গেল তাতে তার এখন ‘কী যে করি হায়!’ দশা। প্রেমিকার এক বন্ধু প্রেমকান্তকে পিটুনি দিলে স্থানীয় পুলিশের সাহায্য চান। তিনি বলেন, পুুলিশ উল্টো তাকে তিন দিন আটকে রেখে হেনস্তা করেছে। তবে পুলিশ বলেছে, এ অভিযোগ অসত্য।

প্রেমকান্তর বাড়ি ভারতের তামিলনাড়ু রাজ্যে। পেশায় তিনি প্রকৌশলী। নাচতে ভালোবাসেন। তিন বছর আগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তার নাচ দেখে বরগুনার এক তরুণী মুগ্ধ হন। কালক্রমে তাদের সম্পর্ক মজবুত হয়। তারা হন প্রেমিক-প্রেমিকা। প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে ২৪ জুলাই বরিশালে আসেন প্রেমকান্ত। ২৫ জুলাই প্রেমকান্তকে তার প্রেমিকা বরিশাল মহানগরের কাশীপুরে তার বন্ধু চয়ন হালদারের কাছে নিয়ে যান। প্রেমকান্ত বলেন, এ সময় চয়ন ওই তরুণীর সামনেই তাকে পিটুনি দেন। সেখানে তার মুঠোফোন আর টাকা ছিনিয়ে নেওয়া হয়। এ ঘটনার পর প্রেমিকার সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন প্রেমকান্তের। হামলার ঘটনা নগরের বিমানবন্দর থানা পুলিশকে জানানো হলেও পুলিশ অভিযুক্তের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। উল্টো পুলিশ থানায় তাকে তিন দিন আটকে রাখে। প্রেমকান্ত গতকাল বেলা ১২টার দিকে নগরের বঙ্গবন্ধু উদ্যানে সাংবাদিকদের কাছে এসব অভিযোগ করেন। বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. সাইফুল ইসলাম জানান, ভারতীয় ওই যুবক হুমকি দিয়েছেন যে তার প্রেমিকার দেখা না পেলে তিনি আত্মহত্যা করবেন। তাই পুলিশ তাকে তিন দিন থানায় নজরবন্দি রাখে। ওই সময়ে তাকে খাদ্য এবং পানীয় দেওয়া হয়। পরে ভারতীয় হাইকমিশনের সঙ্গে কথা বলে তাকে তার নিজ জিম্মায় ছেড়ে দেয় পুলিশ। তার ওপর হামলার বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। পিটুনি খাওয়ার পরও প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে ব্যাকুল প্রেমকান্ত। দেখা হলে প্রেমিকা আবারও তার জীবনে ফিরে আসবেন বলে বিশ্বাস তার। তাই নিজ দেশে ফিরে যাওয়ার আগে প্রেমিকার দেখা পেতে চান তিনি। একটি আবাসিক হোটেলে কয়েকদিন অবস্থান করলেও ব্যক্তিগত হামলা-হেনস্তার হাত থেকে রক্ষা পেতে গতকাল দুপুরের পর থেকে আত্মগোপনে আছেন প্রেমকান্ত।

 

সূত্র – বাংলাদেশ প্রতিদিন

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ