মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ০১:২০ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
যুবলীগ নেতা ও ইউপি চেয়ারম্যানের ওপর হামলার প্রতিবাদে আমতলীতে মানববন্ধন বরিশাল প্রেসক্লাব সভাপতিসহ তিন সদস্য’র সুস্থতা কামনা জাহিদ হত্যার প্রতিবাদে মাদারীপুরে মানববন্ধন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি পটুয়াখালী জেলা শাখার নবগঠিত আহবায়ক কমিটির সভা বাবুগঞ্জে আওয়ামীলীগ নেতাদের সুস্থতা কামনায় দোয়া মোনাজাত বাকেরগঞ্জে পৌর নির্বাচনী শো-ডাউন বাবুগঞ্জে আওয়ামীলীগ নেতাদের সুস্থতা কামনায় দোয়া মোনাজাত শিক্ষার্থীদের তোপের মুখে বন্ধ হলো আমতলী সরকারি কলেজের এ্যাসাইনমেন্ট পরীক্ষা সমুদ্রে মাছ ধরার ট্রলারে ডাকাতি, আটক ৯ বাবুগঞ্জে মোস্তফা কামাল চিশতির সুস্থতা কামনায় দোয়া মোনাজাত
বরগুনায় কলেজছাত্রীকে অপহরণ করে আটকে রেখে ধর্ষণ, ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি

বরগুনায় কলেজছাত্রীকে অপহরণ করে আটকে রেখে ধর্ষণ, ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি

Print Friendly, PDF & Email

বরগুনা প্রতিনিধি :: বরগুনা সদর উপজেলায় এক কলেজছাত্রীকে অপহরণ করে একটি বাড়িতে চার দিন আটকে রেখে ধর্ষণ করেছে রাজিকুল ইসলাম রাজু নামের এক যুবক। এবং বিষয়টি নিয়ে বেশি বাড়াবাড়ি করলে ধর্ষণের ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেওয়ার হুমকি দিয়েছে। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর মা বাদী হয়ে রোববার বরগুনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলা করেছেন। ট্রাইব্যুনালের বিচারক জেলা জজ মো. হাফিজুর রহমান মামলাটি গ্রহণ করে বরগুনা থানাকে এজাহার হিসেবে গ্রহণ করার নির্দেশ দিয়েছেন।

অভিযুক্ত রাজু বরগুনা সদর উপজেলার ফুলঝুড়ি ইউনিয়নের পশ্চিম গিলাতলী গ্রামের বাসিন্দা এবং এই মামলার অপর আসামি তার সহযোগী কবির মিয়া ও আউয়াল মিয়া।

আদালত সূত্রে জানা যায়- ওই ছাত্রী বরগুনা সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে পড়াশোনা করেন। তিনি ১৫ই সেপ্টেম্বর সকালে তার এক আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে যান। ওইদিন বিকালে নিজ বাড়িতে ফেরার পথে রাজু ও তার ভগ্নিপতি কবির মিয়া ছাত্রীটিকে অপহরণ করে মোটরসাইকেলে তুলে আউয়াল মিয়ার বাড়িতে নিয়ে যান। সেখানে আটকে রেখে রাজু তাকে ধর্ষণ করেন।

কলেজছাত্রীর মা সাংবাদিকদের বলেন- খবর পেয়ে লোকজন নিয়ে ১৯ সেপ্টেম্বর সকালে আমার মেয়েকে উদ্ধার করি। আমি মামলা করতে চাইলে রাজু আমার মেয়েকে বিয়ে করার আশ্বাস দেয়। কিন্তু পরবর্তীতে রাজু জানায়, সে আমার মেয়েকে বিয়ে করবে না। এবং আমার মেয়ের খারাপ দৃশ্যের ভিডিও করে রেখেছে। বেশি বাড়াবাড়ি করলে তা ইন্টারনেটে ছেড়ে দেবে।

তিনি আরও বলেন- আমি ১০ই অক্টোবর বরগুনা থানায় গেলে ওসি মামলা না নিয়ে বরগুনা ট্রাইব্যুনালে মামলা করার পরামর্শ দেন।

বরগুনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কেএম তারিকুল ইসলাম জানান, এ ব্যাপারে বরগুনা থানায় কেউ মামলা করতে আসেননি। আদালত যে আদেশ দেবেন, তা পালন করব। মামলার পর থেকেই আসামিরা পালাতক রয়েছে। এ কারণে তাদের সঙ্গে কথা বলা সম্ভব হয়নি।’

 196 total views,  1 views today

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

add



© All rights reserved © 2014 barisalbani