৯ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

বরগুনায় মাদ্রাসাছাত্রের আত্মহত্যা, পিতাসহ গ্রেপ্তার ৩

বরগুনা প্রতিনিধি :: বরগুনা সদর উপজেলাধীন বুড়িরচর ইউনিয়নের বরগুনা মাইঠা নুরানী মাদ্রাসার তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র মহিউদ্দিন (১১) আত্মহত্যায় মা আয়শা বেগম বাদী হয়ে গত মঙ্গলবার রাতে পাঁচজনকে আসামি করে বরগুনা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলার পরিপ্রেক্ষিতে বরগুনা থানা পুলিশ মহিউদ্দিনের পিতা আলামিন খাঁন, দাদি জয়নব ও চাচা আলতাফ খাঁনকে পরদিন গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠায়। বাকি আসামিরা হলো, ফুপু কোহিনুর ও গোলাম মাওলা।

তবে এলাকাবাসী ও মাছ ব্যবসায়ীরা বলছেন, মহিউদ্দিনের পিতা আলামিন খাঁন প্রতিদিনের ন্যায় ঘটনার দিন ভোরে মাছ বিক্রির উদ্দেশ্যে দোকানে বসেন। মোবাইলে ছেলের আত্মহত্যার খবর পেয়ে দোকান বন্ধ করে বাড়িতে চলে যান। অন্যদিকে ছেলের চাচা আলতাফ খাঁন ঘটনা শুনে তালতলী থেকে বরগুনায় আসলে তাকেও গ্রেপ্তার করা হয়। মহিউদ্দিনের পিতা আলামিন ও আয়েশার সাথে পারিবারিক কলহ রয়েছে বলেও জানা গেছে। তবে মামলাটি পারিবারিক কলহ দ্বারা সৃষ্টি কী না, অনেকের মনেই এমন প্রশ্ন।

এ ব্যাপারে বরগুনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কেএম তারিকুল ইসলাম বলেন, থানায় শিশু মহিউদ্দিনের মা আয়েশা বেগম বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছেন। যেটি আমলে নিয়ে তিনজন আসামিকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। বাকি দুইজনকে গ্রেপ্তারের প্রক্রিয়া চলছে। মামলাটি পারিবারিক কলহ কেন্দ্রিক কিনা; জানতে চাইলে বলেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখব।

উল্লেখ্য, গত ২২ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার সকাল ৮ টার দিকে বড় লবনগোলা আমড়াঝুড়ী এলাকার আলামিন খান’র ছোট ছেলে মহিউদ্দিন নিজ বাড়ির দ্বোতলায় কবুতরের খাবার দিতে গিয়ে গলায় দড়ির সাথে গেঞ্জি লাগিয়ে সিলিং পাটাতনের আড়ার সাথে ঝুলে আত্মহত্যা করে।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ