২৩শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বরিশালে চিকিৎসকের বাসায় শিশু গৃহকর্মীর ‍উপর অমানসিক নির্যাতন

উজিরপুর (বরিশাল) প্রতিনিধি :: ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালের রেজিষ্টার ডাঃ সি.এইচ রবিনের স্ত্রী রাখির অমানসিক নির্যাতনে বাসার শিশু গৃহকর্মী হাসপাতালে মৃত্যুশয্যায়।

খবর পেয়ে উজিরপুর থানা পুলিশ শিশু গৃহকর্মীকে উদ্ধার করে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেছে।

নির্যাতিত শিশু ও তার পরিবার সূত্রে জানা যায়, উজিরপুর উপজেলার ওটরা ইউনিয়নের গজালিয়া গ্রামে ডাঃ সি.এইচ রবিনের বাড়ি। চাকুরী করেন ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে বাসা শ্যামলীতে। পিতা প্রতিবন্ধী মা ছোট বেলায় সংসার ছেড়ে পালিয়ে যায়। অর্ধাহারে-অনাহারের সংসার।

করোনার কারণে অভাবের তাড়নায় গত ৬ মাস পূর্বে স্থানীয় বাসুদেবের মাধ্যমে হারতা ইউনিয়নের জামবাড়ি গ্রামের ননী বাড়ৈর মেয়ে নিপা বাড়ৈ (১১) ডাক্তার সি.এইচ রবিনের বাসায় গৃহকর্মীর কাজে যায়। গৃহকর্মী নিপা বাড়ৈ জানায় কাজের শুরু থেকেই সামান্য ভুলত্রুটি হলেই ডাক্তার সাহেবের স্ত্রী রাখী তার শরীরে কখনো খুনতি দিয়ে আঘাত, কখনো বা ধারালো চাকু দিয়ে কোপ মারত। এমনকি চিৎকার দিলে গলা চেপে ধরে দেওয়ালের সাথে মাথায় আঘাত করত। এতে তার শরীরের দুই হাত, হাতের আঙ্গুল, মাথা, গলায়, মুখমন্ডল ও পিঠসহ বিভিন্ন স্থানে অগনিত ক্ষতের চিহ্ন রয়েছে। বাড়ি থেকে মাঝে মধ্যে বৃদ্ধ দাদু ও কাকারা ফোন দিলে ডাক্তারের স্ত্রী রাখী মারধরের কথা না বলার জন্য ভয়ভীতি দেখাত।

গত ২১ ফেব্রুয়ারি গৃহকর্মী নিপা বাড়ৈর উপর ডাক্তারের স্ত্রী অমানসিক নির্যাতন চালায়। মাথায় চাকু দিয়ে কোপ মারে। এতে সংজ্ঞাহীন হয়ে পড়ে। কিছুটা সুস্থ্য হওয়ার পরে ভয়ভীতি দেখিয়ে কাউকে কিছু না বলার হুমকি দিয়ে ২৩ ফেব্রুয়ারি ডাক্তারের কম্পাউন্ডার বাসুদেবের মাধ্যমে তার গ্রামের বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। গ্রামের বাড়িতে হতদরিদ্র পৌছলেই বাড়ির দাদু, কাকিমা, কাকারা মিলে তার শারীরিক অবস্থা দেখে জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে শিশু গৃহকর্মী কেঁদে ফেলে সবকিছু খুলে বলে।

পরে স্থানীয়রা উজিরপুর থানা পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করলে মডেল থানার এস. আই মাহাতাব তাকে উদ্ধার করে উজিরপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

মডেল থানার ওসি জিয়াউল আহসান জানান, সংবাদ পেয়ে শিশুটিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

উজিরপুর হাসপাতালে দায়িত্বরত ডাক্তার নূসরাত জাহান সাকি জানান, শরীরে কিছু ক্ষত নুতন আর অনেক ক্ষত পুরাতন। তবে তার চিকিৎসা চলছে।

শিশু গৃহকর্মীর কাকা তপন বাড়ৈ জানান, নিপার শারীরিক অবস্থা দেখে আমরা কেঁদে ফেলি। বিষয়টি ডাক্তারের স্ত্রী রাখীর কাছে জিজ্ঞাসা করলে তিনি মোবাইলে বলেন, আমাদেরকে হুমকি দিচ্ছেন, আমরাও তার বিরুদ্ধে থানায় জিডি করেছি।

স্থানীয় ইউপি সদস্য নওয়াব আলী বাড়ৈ জানান, বিষয়টি অত্যন্ত জঘন্য।

অভিযুক্ত রাখীর স্বামী ডাঃ সি.এইচ রবিন জানান, বিষয়টি সাজানো। তবে তার স্ত্রী ফোন রিসিভ করেননি।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email