২০শে আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

বরিশালে প্রেমের ফাঁদে ফেলে অর্থ হাতিয়ে নেয়া প্রতারক পপি গ্রেফতার

অনলাইন ডেস্ক  ::: প্রেমের ফাঁদে ফেলে প্রতারনার মাধ্যমে যুবকদের কাছ থেকে অর্থকড়ি হাতিয়ে নেওয়াই ছিলো বিউটিশিয়ান লাইজুন নাহার পপির নেশা। এনিয়ে তার পাঁচটি বিয়েও হয়েছে। সর্বশেষ স্বামীর দায়ের করা প্রতারণা ও হত্যা চেষ্ঠার মামলায় অবশেষে গ্রেফতার হয়েছেন প্রতারক পপি।

নগরীর এয়ারপোর্ট থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে জেলার বাবুগঞ্জ উপজেলার খানপুরা গ্রামের সুলতান হাওলাদারের কন্যা প্রতারক পপিকে গ্রেফতার করেছেন।

শনিবার সকালে তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে থানার ওসি কমলেশ চন্দ্র হালদার জানান, নগরীর কাশিপুর বাধিয়া এলাকার একটি বাসা থেকে পপিকে গ্রেফতারের পর শুক্রবার বিকেলে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়।

সূত্রমতে, পপি খানপুরা এলাকার পোল্টি ফিড ব্যবসায়ী সাইফুল ইসলাম সোহানের দায়ের করা প্রতারণা ও হত্যা চেষ্টা মামলায় আদালতের গ্রেফতারী পরোয়ানার আসামি। অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে দায়ের করা মামলায় পপিকে পুলিশ গ্রেফতার করার পর একই মামলার আসামি পপির বাবা সুলতান হাওলাদার ও মা মরিয়ম বেগম আত্মগোপন করেছেন। তবে তাদের গ্রেফতারের জন্য পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে ওসি উল্লেখ করেন।

পপির পঞ্চম স্বামী ও মামলার বাদি সাইফুল ইসলাম সোহান জানান, খানপুরায় তার পোল্টি ফিডের দোকানের পাশে লাইজুন নাহার পপির বিউটিপার্লারের দোকান ছিলো। সে সুবাধে পপির সাথে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। পরে তারা বিয়ে করে নগরীর একটি ভাড়া বাসায় অবস্থান করেন। বিয়ের কিছুদিন পর তিনি (সোহান) জানতে পারেন পপির আগে আরও চারটি বিয়ে ছিলো। এছাড়াও সে প্রতারণা মাধ্যমে বিভিন্ন যুবকদের কাছ থেকে অর্থকড়ি হাতিয়ে নিয়েছেন।

তিনি আরও জানান, এ নিয়ে গত ১৮ আগস্ট ভাড়া বাসায় বসে দু’জনের মধ্যে তুমুল বাগ্বিতন্ডা হয়। ওইসময় পপি ধারালো চাক্কু নিয়ে তাকে (সোহান) হত্যার চেষ্ঠা করে। একপর্যায়ে সে জরুরী সেবা নম্বর ৯৯৯-এ কল করে পুলিশের সহায়তায় প্রাণরক্ষা করেন। পরে তার ভাড়া বাসায় থাকা নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার, আসবাবপত্রসহ প্রায় তিন লাখ টাকার মালামাল পপি কৌশলে নিয়ে যায়।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ