২৫শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বরিশালে ফলাফল ঘোষণার পর সংঘর্ষে নিহত-১ আহত-১০

গৌরনদী প্রতিনিধি।। ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বরিশালের গৌরনদী উপজেলার খাঞ্জাপুর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডে ফলাফল ঘোষনার পর সোমবার সন্ধ্যাা ৬ টায় বিজয়ী ও পরাজিত প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে এক যুবক নিহত ও ১০ জন আহত হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী, স্থাণীয়রা জানান, গৌরনদী উপজেলার খাঞ্জাপুর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডে সদস্য পদে প্রার্থী হন খাঞ্জাপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ গিয়াস মৃধা (৪০) (টিউবয়েল) তার সাথে প্রতিদ্বন্ধীতা করেন খাঞ্জাপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক মোঃ আরজ আলী সরদার (৫০) (মোড়গ)। সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৫টার দিকে ফলাফল ঘোষনার পরে দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে ঝগড়াঝাটি ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। পরবর্তিতে সন্ধ্যা ৬টার দিকে দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে হামলা চালালে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষ শুরু হয়। এ সময় বোমা হামলায় বিজয়ী প্রার্থীর সমর্থক আবু বকর ফকির (২৭) নিহত ও কমপক্ষে ১০ আহত হন।

বিজয়ী প্রার্থী খাঞ্জাপুর ইউনিয়নের আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ গিয়াস মৃধা অভিযোগ করে বলেন, ফলাফল ঘোষনার পর পরাজিত প্রার্থী মোঃ আরজ আলী সরদারের নেতৃত্বে পাশ্ববর্তি কালকিনি উপজেলার ভাড়াটে ৫০/৬০ জন সমর্থক অস্ত্র শস্ত্র নিয়ে বোমা আমার সমর্থকদের উপর হামলা চালায়। এতে আমার সমর্থক আবু বকর ফকির (২৭) শাহিদা বেগম (৩৪), সফিক (৩২), সুমন (২২)সহ ৭ জন আহত হন। গুরুতরভাবে আহত আবু বকর ফকির ঘটনাস্থলেই মারা যান। এ অভিযোগ অস্বীকার করে আরজ আলী বলেন, ফলাফল ঘোষনার আগেই গিয়াস মৃধার সমর্থকরা বোমা হামলা চালিয়ে আমাদেরকে কেন্দ্র থেকে বিতারিত করে কর্মকর্তাদের উপর চাপ প্রয়োগ করে ফলাফল নিজের অনুকূলে নেন। এতে আমার তিন সমর্থক আহত হন।
গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ডাঃ রাফিউল আলম বলেন, সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে আবু বকর নামে একজনকে নিয়ে আসলে তাকে পরীক্ষা নিরীক্ষা করে মৃত ঘোষনা করা হয়। পশ্চিম খাঞ্জাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে আইন শৃংখলা রক্ষার দায়িত্বপ্রাপ্ত গৌরনদী মডেল থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মোঃ আমিনুল ইসলাম বলেন, ভোট কেন্দ্রের মধ্যে কোথায়ও সংঘাত বা সহিংসতার ঘটনা ঘটেনি। ফলাফল ঘোষনার পরে কেন্দ্রের বাইরে সংঘর্ষ হয়েছে। কেন্দ্রের প্রিজাংডিং অফিসার ও টরকী বন্দর বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ব্রজেন্দ্র নাথ বিশ্বাস পরাজিত প্রার্থীর আরজ আলীর অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ফলাফল ঘোষনার আগে নয় ফলাফল ঘোষনার পরে কেন্দ্রের বাইরে হামলা ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ