১৯শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
প্রখ্যাত সাংবাদিক আবদুল গাফফার চৌধুরী আর নেই কর্মস্থলে সিনিয়র-জুনিয়র সম্পর্ক বরিশালে হোমিওপ্যাথি চিকিৎসকদের ঈদ পুনর্মিলনী ও মধুমাস উদযাপন কাউখালীতে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু ইসলামী ব্যাংক ফাউন্ডেশনের নতুন চেয়ারম্যান প্রফেসর ডা. কাজী শহীদুল আলম ভোলায় পুলিশের সহায়তায় বাকপ্রতিবন্ধী মেয়ে খুঁজে পেলো নিরাপদ আশ্রয়স্থল পটুয়াখালী চেম্বার অব কমার্সের মাসিক সভা অনুষ্ঠিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট সদস্য হলেন অধ্যাপক ডাঃ মনিরুজ্জামান শাহীন নির্মিত হলো জিনিয়া জিনি'র মিউজিক ভিডিও 'ও সাথী' ঢাকার শীর্ষ সন্ত্রাসী ২টি হত্যা মামলায় মৃত্যুদন্ড প্রাপ্ত পলাতক আসামী বিপ্লব উজিরপুরে গ্রেফতার

বরিশালে বিয়ের কাবিন নামায় জালিয়াতির ঘটনায় কারাগারে কাজী

বাণী ডেস্ক॥
একই বিয়েতে দুইধরনের কাবিননামা দেয়ার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় অবশেষে শ্রীঘরে পাঠানো হয়েছে আব্দুর রহমান নামের এক বিয়ের নিকাহ্ রেজিষ্ট্রারকে (কাজী)। ঘটনাটি বরিশাল জেলার বাবুগঞ্জ উপজেলার বীরশ্রেষ্ঠ জাহাঙ্গীর নগর ইউনিয়নের।

আদালত সূত্রে মঙ্গলবার শেষ কার্যদিবসে জানা গেছে, কাবিননামা জালিয়াতির ঘটনায় বর পক্ষের দায়ের করা মামলায় দীর্ঘদিন আত্মগোপনে ছিলেন বিয়ের কাজী আব্দুর রহমান। মঙ্গলবার দুপুরে সে (রহমান) বরিশাল বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে হাজির হয়ে জামিন প্রার্থনা করেন। আদালতের বিচারক মো. মনিরুজ্জামান কাজী রহমানের জামিন না মঞ্জুর করে জেলহাজতে প্রেরণের নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ২০১০ সালের ২৬ এপ্রিল বীরশ্রেষ্ঠ জাহাঙ্গীর নগর ইউনিয়নের চরহোগলপাতিয়া গ্রামের আবু বক্কর ছিদ্দিকের মেয়ে হাফিজা বেগমের সাথে পাশ্ববর্তী গৌরনদী উপজেলার পূর্বগরঙ্গল গ্রামের কাদের হাওলাদারের ছেলে আবু বকর হাওলাদারের বিয়ে হয়।

বিয়ের পর দাস্পত্য কলহের কারণে স্বামী আবু বকরের বিরুদ্ধে ২০১৪ সালের ৪ আগস্ট তার স্ত্রী বরিশাল আদালতে যৌতুক নিরোধ আইনে মামলা দায়ের করেন। মামলায় নিকাহ রেজিষ্ট্রার আব্দুর রহমানের কাছ থেকে দেন মোহরের ৫৩ হাজার টাকার কাবিননামা উত্তোলন করে আদালতে দাখিল করেন স্ত্রী হাফিজা।

২০১৫ সালের ২৪ মে স্ত্রীর দায়ের করা মামলা থেকে বেখসুর খালাস পায় স্বামী আবু বকর। পরবর্তীতে একই নিকাহ রেজিষ্ট্রারের কাছ থেকে ৫৩ হাজার টাকার কাবিননামার জায়গায় ১ লাখ ৫৩ হাজার ভূয়া কাবিননামা উত্তোলন করে পূর্ণরায় গৌরনদী সহকারী জজ আদালতে মামলা দায়ের করেন হাফিজা।

একই বিয়েতে প্রতারনার মাধ্যমে দুইধরনের কাবিননামা দেয়ার ঘটনায় অবশেষে আবু বকর হাওলাদার বাদি হয়ে আদালতে মামলা দায়ের করেন।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ