১৬ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

বরিশালে মাদক বিক্রির প্রতিবাদ করায় অন্তঃসত্ত্বা নারীকে মারধর

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

নিজস্ব প্রতিবেদক ::: বরিশাল নগরীর কেডিসি এলাকায় গাঁজা বিক্রি প্রতিবাদ করায় পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূকে মারধর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বর্তমানে তিনি বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

রবিবার (১৯ নভেম্বার) সকাল ১০ টার দিকে নগরীর ১০নং ওয়ার্ডস্থ কেডিসি বালুর মাঠ কলোনিতে ‍এ ঘটনা ঘটে।

আহত গৃহবধূর নাম কাশ্মী আক্তার। তিনি নগরীর ১০নং ওয়ার্ডস্থ কেডিসি বালুর মাঠ কলোনির রনির স্ত্রী।

কাশ্মী আক্তারের বড় ভাইয়ের স্ত্রী লিমা বেগম জানান, নগরীর কেডিসি বালুর মাঠ এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে খলিল ও তার স্ত্রী ময়না বেগম প্রকাশ্যে গাঁজা বিক্রি করে আসছে। এ নিয়ে প্রতিবাদ করায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মারধরের ঘটনা ঘটে।

তিনি আরও বলেন, বরিশাল মেট্রোপলিটন কোতয়ালী মডেল থানার পুলিশ দুই কেজি গাঁজাসহ কেডিসি থেকে ময়না বেগমকে আটক করে জেল হাজতে পাঠায়। দীর্ঘদিন জেল খেটে বেরিয়ে ফের গাজা বিক্রি শুরু করেন। কেডিসি এলাকায় প্রকাশ্যে গাঁজা বিক্রি করলে তা নিষেধ করায় খলিল, জসিম, বিকি আব্দুল্লাহ, ময়না বেগম পথরোধ করে পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা নারী কাশ্মী আক্তারকে মারধর করেন। এ সময় আহত কাশ্মী আক্তারের ডাক-চিৎকার শুনে তার বোন জামাই রুবেল উদ্ধার করতে গেলে তাকেও অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ মারধর ও প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করেন।

কাশ্মীর বড় বোন রেখা বেগম জানান, আহত কাশ্মী আক্তারকে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল চতুর্থ তলায় মহিলা ইউনিটে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু কাশ্মী পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা, বাচ্চার অবস্থা ভালো না থাকায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় রেফার করাও লাগতে পারে বলে ডাক্তার জানিয়েছেন্।

আহত পরিবার কোতয়ালী মডেল থানায় একটি সাধারন ডায়েরি করা হয়েছে। (যার নং ১২-৭২)

এ বিষয়ে কোতয়ালী মডেল থানার অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার ফজলুল করিম জানান, বিষয়টি শুনলাম। যদি এ ধরণের কোন ঘটনা ঘটে, তাহলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

কোতয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, কেডিসি বালুর মাঠ এলাকায় মারধরের ঘটনায় একটি সাধারন ডায়েরি করা হয়েছে। তদন্ত করে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

সর্বশেষ