৬ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

বরিশালে হত্যা মামলায় দু’জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

শামীম আহমেদ :: বরিশাল জেলার মেহেন্দিগঞ্জে ২০০১ সালে বিরোধের জের ধরে ডাল ব্যবসায়ী মোতাহার হাওলাদারকে কুপিয়ে হত্যা করার অভিযোগে দুই আসামীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং লাখ টাকার জরিমানা করেন। পাশাপাশি অপর এক আসামীকে ৩ বছরের কারাদণ্ড ও ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

আজ বুধবার (১৯ আগস্ট) বরিশালের দ্বিতীয় অতিরিক্ত জেলা ও দায়েরা জজ আদালতের বিচারক এ রায় প্রদান করেন বলে জানিয়েছেন বাদী পক্ষের আইনজীবি মোঃ আজিজুর রহমান রিয়াজ। যাবজ্জীবন দণ্ডিত দুই সহোদর হলেন বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম রতনপুর এলাকার মৃত জয়নাল সিকদারের ছেলে বাবুল সিকদার ও জাহাঙ্গীর সিকদার। এছাড়া ৩ বছরের সাজাপ্রাপ্ত অপর দণ্ডপ্রাপ্ত হলেন একই এলাকার বাসিন্দা মামুন।

আইনজীবি মোঃ আজিজুর রহমান রিয়াজ মামলার এজাহারের বর্ণনা দিয়ে জানান, পূর্ব বিরোধের জ্বের ধরে ২০০১ সালের ২৭ মার্চ দুপুরে মিয়ার হাট বাজার সংলগ্ন এলাকায় ডাল ব্যবসায়ী মোতাহার হাওলাদার, মন্টু হাওলাদার ও মুজাহার হাওলাদারদের ওপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে গুরুত্বর জখম করে দণ্ডপ্রাপ্তরা। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় ও পরে বরিশাল শের ই বাংলা মেডিক্যাল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালে ভর্তি করে। ২৭ মার্চ দিবাগত রাত ১০ টায় শেবাচিম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরন করেন মোতাহার হাওলাদার। এ ঘটনায় পরের দিন ১৯ জনকে নামধারী ও ১০-১২ জনকে অজ্ঞাত আসামী করে মেহেন্দিগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন নিহত মোতাহার হাওলাদারের ভাই মোঃ আজাহার হাওলাদার। আদালত সাক্ষ্য প্রমান শেষে আজ এ রায় প্রদান করে জানিয়েছে আইনজীবি মোঃ আজিজুর রহমান রিয়াজ।

আসামীদের মধ্যে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত বাবুল মামলার শুরু থেকেই পলাতক রয়েছে। তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছে আদালত। আর দেড় যুগ পর ভাই হত্যা মামলার রায় পেয়ে সন্তোয় প্রকাশ করলেও মামলার আইনজীবী ও বাদীর পরিবার বলেন, প্রকাশ্য দিবালোকে কুপিয়ে হত্যা করে বীরদর্পে চলে যাওয়ায় সকল আসামীদের একই ধরণের সাজা হলে বেশ হতো।

অপরদিকে বিবাদী পক্ষের দায়ের করা একটি অস্ত্র দিয়ে গুরুত্বর জখম করার একটি মামলায় নিহত মোতাহারের ভাই সিরাজ ও চাচাতো ভাই মোতালেবকে ১০ বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। যে মামলার বাদী জয়নব বিবি নামে এক নারী বলে জানিয়েছেন নিহত মোতাহারের ভাই মোঃ আজাহার হাওলাদার।’

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ