৫ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
দেশের বেষ্ট হসপিটালেটি এন্ড ট্যুরিজম লিডার হিসাবে স্বীকৃতি পেয়েছেন ভোলার কৃতি সন্তান সাখাওয়াত ভোলায় মাছ ধরতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে প্রাণ গেলো যুবকের বরিশালে সন্ত্রাস, নৈরাজ্য ও ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে আ.লীগের শান্তি সমাবেশ মানুষকে গণতন্ত্র ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য বিএনপি আন্দোলন করছে : মঈন খান বরিশালে কোষ্টগার্ডের অভিযানে দুইদিনে ৭০ মন জাটকা জব্দ দূষণমুক্ত শিল্পকারখানা স্থাপন হবে আমাদের আগামী শিল্পবিপ্লব : বরিশালে শিল্পমন্ত্রী পাথরঘাটায় দুই ট্রলারের ধাক্কায় বাবার সামনেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লেন ছেলে আগৈলঝাড়ায় স্কুলড্রেস কেনার জমানো টাকা ভেঙে ফেলায় কিশোরীর আত্মহত্যা এ সরকারের সময়ে বাংলাদেশে যে উন্নয়ন হয়েছে তা ইতিহাসে বিরল : তোফায়েল এবার ববির খাবারে পাওয়া গেল সিগারেটের ফিল্টার!

বরিশাল নগরীতে ঝুঁকিপূর্ন ভবনমালিক কতৃক পুকুর ভরাটের পায়তারা !

বরিশাল বাণী: বরিশাল নগরীর ২৩ নম্বর ওয়ার্ডের সামসু মিয়ার গ্যারেজ এলাকার সিকদার পাড়ায় একটি ঝুঁকিপূর্ণ ভবন নিয়ে এলাকাবাসী উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। এছাড়া ওই ঝুঁকিপূর্ণ ভবন মালিক পুকুর ভরাট করার পায়তারা করছে বলেও অভিযোগ রয়েছে। বিভিন্ন গনমাধ্যমে সিকদারপাড়া এলাকাবাসীদের পক্ষে দেয়া অভিযোগে জানা গেছে, ওই এলাকার ৫৬৫ নং হোল্ডিংধারী জনৈক নিরঞ্জন মন্ডলের নিজ বসবাসকৃত ভবনটি অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ন। ভবনটি ইতোমধ্যে প্রায় দইি ফুটেরও বেশী পিছনে ঝুঁকে পড়েছে। এব্যাপারে ভবন মালিকের কাছে এলাকাবাসী অভিযোগ করলে সে তার ফাটল ধরা ভবনে প্লাস্টার দিয়ে তার দায়িত্ব শেষ করে। এছাড়া তার ঝুঁকিপূর্ন দোতলা ভবনটি রক্ষার্থে সে ভবনের পিছনে পুকুরের কিছু অংশ ভরাট করে আরেকটি তিনতলা ভবন তৈরি করেছে। এলাকাবাসীর অভিযোগ এ ভবন নির্মানে সিটি কর্পোরেশনের আইন মানা হয়নি। এলাকাবাসীদের পক্ষে দেয়া অভিযোগে আরো জানা গেছে অভিযুক্ত নিরঞ্জন মন্ডলের জামাতা সিটি কর্পোরেশনের যান্ত্রিক শাখার প্রকৌশলী (বর্তমানে চাকুরীচ্যুত) থাকার সুবাদে অবৈধভাবে ভবন নির্মানে বাঁধা দিয়ে কোন কাজ হয়নি। এব্যাপাারে এলঅকাবাসীর পক্ষ থেকে গত বছর সিটি কর্পোরেশনের অভিযোগ বাক্সে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে। বর্তমানে শীত মৌসুম শুরু হওয়ায় ভবন সংলগ্ন পুকুরের পানি কমে যাওয়ায় ভবনের সামনের অংশে নতুন করে ফাটল দেখা দিয়েছে। এব্যাপারে আতংকিত এরকাবাসীদের কয়েকজন নিরঞ্জন মন্ডলের সাথে কথা বললে তিনি তাদের জানান, পিছনের পুকুর ভরাট করলে আর সমস্যা থাকবেনা। এলাকাবাসীর অভিযোগ, ভবন মালিক ইতোমধ্যে সীমানা তৈরি করে পুকুর ভরাটের জন্য পায়তারা শুরু করেছে। এলাকাবাসীর মতে, জলাধার আইন পরিপন্থী কাজের মাধ্যমে পুকুর ভরাট করে এলাকাবাসীকে জলাবদ্ধতার মধ্যে ফেলে দেয়ার নতুন পায়তায়া শুরু হয়েছে। এব্যাপাারে এলাকাবাসী বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়রসহ পরিবেশবাদীদের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ