১৭ই মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

বরিশাল নগরীতে নারী চায়ের দোকানীকে উৎক্ষাতে ব্যর্থ হয়ে পিটিয়ে জখম

নিজস্ব প্রতিবেদক :: বরিশাল নগরীর বাটার গলিতে চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই চায়ের দোকানী উৎক্ষাত করতে না পেরে নুরি বেগম (৪৯) ও তার জামাতা সবুজ (৩২)কে পিটিয়ে জখম করেছে জমির মালিক মোঃ নজরুল ইসলাম খান। গুরত্বর অবস্থায় নুরি বেগমকে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদিকে তাদেরকে হয়রাণি করার জন্য সন্ত্রাসী বাহীনি ভাড়া করে মহড়া দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন আহত সবুজ।

রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ২ টার দিকে নগরীর বাটার গলিতে এ ঘটনা ঘটে।

আহত সবুজ অভিযোগ করে বলেন, নুরি বেগম ২০১৯ সালের ১লা ডিসেম্বর দুই বছরের চুক্তির ভিত্তিতে নগরীর বাটার গলিতে মোঃ নজরুল ইসলাম খানের এক খণ্ড জমিতে লিজ নিয়ে নিজ খরচে দোকান নির্মাণ করেন। এরপর প্রায় ১ বছর দোকান পরিচালনা করে। হঠাৎ নজরুল ইসলাম খান ওই চুক্তির মেয়াদ শেষ না হতেই জমি খালি করে দেয়ার জন্য চাপ প্রয়োগ করে। এদিকে নুরি বেগম দোকান নির্মাণের খরচ তুলতে পারেনি বলে সে দোকান ছাড়তে রাজি হয়নি। এরপর নানা কুট কৌশলে নুরি বেগমকে উৎক্ষাত করতে মিথ্যা অভিযোগ, সংবাদ প্রকাশ করায়। সংবাদে দোকানে মাদক ব্যবসা চলে বলে মিথ্যা বানােয়াট তথ্য দিয়ে বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশ করে। এসব কর্মকাণ্ডে সফলতা না পেয়ে রোববার দুপুরে নুরি বেগমের দোকানে হামলা চালিয়ে তাকে বেধরক পিটিয়ে জখম করে। এরপর খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে ছুটে আসে। এসময় তার জামাতা সবুজ ও মেয়ে সোমা এগিয়ে এলে পুলিশের সামনে সবুজ ও মেয়ে সোমাকেও মারধর করে। পরে স্থানীয়রা উদ্ধার করে তাদেরকে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।

এরআগেও চুক্তি অনুযায়ী এসব পদক্ষেপে আগাতে না পেরে ভাড়াটে সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে দোকান ভাঙচুর করে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে দোকানে তালা ঝুলিয়ে দেয়। তখন বাঁধা দিতে গেলে নুরি বেগমের উপর হাত তোলেন ভাড়াটে সন্ত্রাসীরা। এরপর ৯৯৯ এ কল করলে কোতয়ালী মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। পরক্ষণে কোতয়ালী মডেল থানার ওসি নুরুল ইসলামের নির্দেশে দোকানের তালা খুলে দেয়া হয়েছিল।

এ বিষয়ে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান, নুরি বেগমের অবস্থা অশঙ্কাজনক। মাথায় মারত্মক আঘাত পেয়েছে।

এ ব্যাপারে কোতয়ালী মডেল থানার ওসি নুরুল ইসলাম বলেন, এরআগে পুরো বিষয়টি তদন্তের জন্য তাদের ১ মাসের সময় দেয়া হয়েছিল। হামলার ব্যাপারে অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ