২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

বরিশাল নগরীর কস্তুরী রেস্তোরাঁকে ৪ হাজার টাকা জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক :: বরিশাল নগরীর নথুল্লাবাদ কস্তুরী রেস্তোরাঁকে জরিমানা করেছে বরিশাল ভোক্তা অধিকার। আজ বৃহস্পতিবার ২০ আগস্ট বিকেল চারটায় বরিশাল ভোক্তা অধিকার জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক শাহ মোহাম্মদ শোয়াইব হোসাইন ভোক্তা অধিকার আইন সংরক্ষণ অপরাধে ক্রেতার কাছে মেয়াদোত্তীর্ণ কোমল পানীয় বিক্রির অপরাধে প্রমাণিত হওয়ায় কস্তুরী রেস্তোরাঁর কর্তৃপক্ষ হাফিজুর রহমানকে চার হাজার টাকা জরিমানা আদায় করে। পাশাপাশি ভবিষ্যতে এ ধরনের কর্মকাণ্ড থেকে বিরত থাকতে হুঁশিয়ারি করে দেন। এর পূর্বেও কস্তুরী রেস্তোরাঁকে ভোক্তা অধিকার অফিস বিভিন্ন অপরাধে জরিমানা আদায় করেছে।

গত পহেলা জুন রেস্তোরাঁয় মেয়াদোত্তীর্ণ কোমলপানীয় পান করে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন ৯ ক্রেতা। এ ঘটনায় আব্বাস নামে এক ক্রেতা ভোক্তা অধিকার আইনে ভোক্তা অধিকার কার্যালয় অভিযোগ দেয়া হয়। আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে তার শুনানি হয়। এতে উভয়পক্ষের সামনে অভিযোগ প্রমাণিত হলে কস্তুরী রেস্তোরাঁকে জরিমানা আদায় করা হয়।

জানা যায়, বিভিন্ন অভিযোগে পিছু ছাড়ছে না নগরীর নথুল্লাবাদের কস্তূরী রেস্তোরাঁর। মরা মুরগী রান্না করে বিক্রির ঘটনায় নগরজুড়ে আলোড়ন সৃষ্টির পরে আবারও নতুন করে সমালোচনায় এসেছে প্রতিষ্ঠানটি। এবার আলোচিত এই হোটেলের বিরুদ্ধে গ্রাহকদের কাছে মেয়াদোত্তীর্ণ কোমল পানীয় বিক্রির অভিযোগ উঠেছে। যা পান করে ৯ ব্যক্তি পেটের পীড়ায় অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।

ভুক্তভোগী ক্রেতা নগরীর সিঅ্যান্ডবি রোডের ওয়ালটন শো-রুমের সার্ভিস ম্যান তাকদির বলেন, রাতে সহকর্মী বেল্লালকে সাথে নিয়ে কস্তূরী রেস্তোরাঁয় নাস্তা করতে যান। এসময় তারা অন্যান্য খাবারের সাথে কোমল পানীয় ‘ডিউ’ অর্ডার করেন। ওই কোমল পানীয় পানের ৫ মিনিটের মধ্যেই তিনি ও বেল্লাল দু’জনেরই পেটে পীড়া শুরু হয়।

এদিকে একইভাবে মেয়াদ উত্তীর্ণ কোমল পানীয় ‘ডিউ’ পান করে অসুস্থ হয়ে পড়া বরিশাল সদর উপজেলার চরমোনাই এলাকার বাসিন্দা চাঁন মুন্সির ছেলে আহাদ মুন্সি জানান,গত ১লা জুন রাত ৮টার দিকে তারা সাতজন নাস্তা করার জন্য কস্তুরীতে প্রবেশ করেন। অন্যান্য খাবারের পরে তিনজনেই একটি করে ‘ডিউ’ পান করেন। এর কিছুণের মধ্যেই পেটে পীড়া শুরু হয়। পরে তারা দেখতে পান হোটেল থেকে পরিবেশন করা ‘ডিউ’ মেয়াদোত্তীর্ণ। দুই মাস পূর্বে মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়া ‘ডিউ’ বিক্রি করা হয়েছে তাদের কাছে।

অপরদিকে মেয়াদোত্তীর্ণ কোমলপানীয় ‘ডিউ’ পানে অসুস্থ হওয়ার ঘটনায় হোটেলে থাকা অন্যান্য ক্রেতাদের মধ্যে ক্ষোভ এবং উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। এমনকি আশপাশের ব্যবসায়ী এবং পথচারীরাও কস্তূরী রেস্তোরাঁর এমন অনৈতিক কাজের প্রতিবাদ জানান। পরে অবশ্য ক্রেতাদের কাছে নিজেদের ভুল স্বীকার করে ঘটনাটি এড়িয়ে যায় হোটেল কর্তৃপক্ষ।

তবে স্থানীয়রা অভিযোগ করেছেন, কস্তূরী রেস্তোরাঁয় ইতিপূর্বেও হোটেলটির বিরুদ্ধে এ ধরনের আরও অভিযোগ রয়েছে। তারা বলেন, কিছুদিন পূর্বে কস্তূরী রেস্তোরাঁয় মরা মুরগী বিক্রি করতে গিয়ে ধরা পড়ে। যা নিয়ে তখনকার সময় বিভিন্ন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হয়। এর পর জেলা প্রশাসন থেকে ওই হোটেলে মোবাইল কোর্টের অভিযানও হয়েছে। কিন্তু এসব কিছুর পরেও অপকর্ম ছাড়ছে না প্রতিষ্ঠানটি। বরং লোক চক্ষুর অন্তরালে কস্তূরী রেস্তোরাঁয় ক্রেতাদের সাথে প্রতারণার পাশাপাশি অনিয়ম চলছেই।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ