১লা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

বরিশাল বোর্ডে প্রথম দিনে অনুপস্থিত ৯৯২ পরীক্ষার্থী

বরিশাল: বরিশাল শিক্ষা বোর্ডে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে শুরু হওয়া এসএসসি পরীক্ষার প্রথম দিন বাংলা (আবশ্যিক) প্রথম পত্রে অনুপস্থিত ছিলেন ৯৯২ জন পরীক্ষার্থী। তবে এ পরীক্ষার্থী বা পরিদর্শক বহিষ্কার হননি।
বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বরিশাল বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক অরুণ কুমার গাইন।
তিনি জানান, বিভাগের ৬ জেলায় ১৮৭টি পরীক্ষা কেন্দ্রে আজ মোট ৮৭ হাজার ৮৮ জন পরীক্ষার্থীর পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার কথা ছিলো। তবে এরমধ্যে অংশ নিয়েছে ৮৬ হাজার ৯৬ জন পরীক্ষার্থী, ফলে অনুপস্থিতির সংখ্যা ৯৯২ জন। আর শতকরা হিসেবে এর হার ১ দশমিক ১৪।
বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, অনুপস্থিতির মধ্যে সর্বোচ্চ বরিশাল জেলায় ৩০৫ জন রয়েছে, এরপর ভোলায় ২১৪ জন, পটুয়াখালীতে ১৭৩ জন, বরগুনায় ১১৬জন, পিরোজপুরে ১১৩ ও ঝালকাঠিতে ৭১ জন রয়েছে।
উল্লেখ্য, বরিশাল শিক্ষা বোর্ডে ১ হাজার ৪৬৩টি বিদ্যালয়ের ৯৫ হাজার ৯৭৬ জন পরীক্ষার্থী এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে। যার মধ্যে ছাত্র ৪৬ হাজার ৩৪৬ জন এবং ছাত্রী ৪৯ হাজার ৬৩০ জন। সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা অনুষ্ঠানের জন্য বরিশাল জেলায় ৪টি এবং বোর্ডের অপর ৫টি জেলায় ৫টি ভিজিলেন্স টিম রয়েছে।
পরীক্ষার্থীরা জানিয়েছে, তাদের ভালো প্রস্তুতি রয়েছে। তবে এর আগে যেসময় পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথ ছিল সে সময় পরীক্ষা হলে ভালো হতো। তাছাড়া সম্পূর্ণ ১০০ নম্বরের পরীক্ষা হলে পরবর্তী একাদশ দ্বাদশ শ্রেণিতে অধ্যয়ন ভালো হতো।
বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক অরুণ কুমার গাইন বলেন, পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে পরীক্ষার্থীদের কেন্দ্রে প্রবেশ করতে হবে। কেউ দেরি করলে তার কারণ গেটের রেজিস্টারে (খাতায়) উল্লেখ করে প্রবেশ করতে হবে। সে তথ্য পরীক্ষা শেষে সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রের সচিব শিক্ষা বোর্ডে পাঠাবে বলে জানান তিনি।
পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক আরও বলেন, পরীক্ষা কেন্দ্রের মধ্যে কেউ মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে পারবেন না। শুধু কেন্দ্র সচিব বাটন মোবাইল ফোন ব্যবহার করবেন। পরীক্ষা কেন্দ্রের দুইশ’ গজের মধ্যে বহিরাগত কেউ প্রবেশ করতে পারবে না। প্রতিটি কেন্দ্রে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষার আয়োজন করার নির্দেশ রয়েছে।
এদিকে শুরু হওয়া মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি), দাখিল, এসএসসি (ভোকেশনাল) ও দাখিল (ভোকেশনাল) পরীক্ষার জন্য বরিশাল জেলার সকল কোচিং সেন্টার ২০ দিনের জন্য বন্ধ রাখার নির্দেশনা দিয়েছে জেলা প্রশাসন।
সেই সঙ্গে পরীক্ষা শুরুর এক ঘণ্টা আগে থেকে এবং পরীক্ষা শেষ হওয়ার এক ঘণ্টা পর পর্যন্ত সব ধরনের ফটোকপি মেশিন বন্ধ রাখার আদেশও দেওয়া হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ