১লা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

বাকেরগঞ্জে চুরির অপবাদ দিয়ে দুই কিশোরকে পেটানোর অভিযোগ

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

শিকদার মাহাবুব ::: বরিশালের বাকেরগঞ্জে মিথ্যা চুরির অপবাদ দিয়ে দুই কিশোরকে পেটানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। আহত ওই কিশোরদের উদ্ধার করে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আহতরা হলেন- চর দাড়িয়াল সংলগ্ন বাংলাবাজার এলাকার জেলে ইব্রাহিম গাজীর ছেলে সুমন গাজী ও হেলাল হাওলাদারের ছেলে ফয়সাল হাওলাদার।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি মৃত হারুন ওরফে পুলিশ হারুনের বাসায় চুরির ঘটনা ঘটে। এতে সন্দেহভাজন হিসেবে বাংলাবাজার এলাকার সুমন গাজী ও ফয়সাল হাওলাদারের ওপর চুরির দায় চাপানো হয়। চুরির অপবাদ স্বীকার না করার কারনে সোমবার রাতে ২নং ওয়ার্ডের মেম্বর দেলোয়ার ও ৩নং ওয়ার্ডের মেম্বর মির্জার শেল্টারে ওই কিশোরদের জোড়পূর্বক তুলে নেওয়া হয়। সোমবার রাতে বাংলাবাজার থেকে বামনীকাঠি গ্রামে তুলে নিয়ে মেম্বরদের শেল্টারে স্থানীয় যুবক রাকিব গাজী, খালেক হাওলাদার, মালেক হাওলাদার,রআকাশ সিকদারসহ ৪/৫জন যুবক ওই কিশোরদের মারধর করে।

শেবামেক হাসপাতালে আহত অবস্থায় সুমন গাজী ও ফয়সাল হাওলাদার বলেন, ‘সম্প্রতি আমাদের গ্রামের মৃত হারুন ওরফে পুলিশ হারুনের বাসায় চুরির ঘটনা ঘটে। এতে সন্দেহভাজন হিসেবে আমাদের দুজনের ওপর চুরির দোষ চাপানো হয়। মিথ্যা চুরির অপবাদ স্বীকার না করার কারনে সোমবার রাতে ২নং ওয়ার্ডের মেম্বর দেলোয়ার ও ৩নং ওয়ার্ডের মেম্বর মির্জার শেল্টারে আমাদের জোড়পূর্বক বাংলাবাজার থেকে বামনীকাঠি গ্রামে তুলে নেওয়া হয়। পরে মেম্বরদের শেল্টারে স্থানীয় যুবক রাকিব গাজী, খালেক হাওলাদার, মালেক হাওলাদার, আকাশ সিকদারসহ ৪/৫জন যুবক আমাদেরকে মারধর করে।’

তবে কিশোরদের ওপর হামলাকারীদের কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

এদিকে বাকেরগঞ্জ থানার ওসি মোঃ আলাউদ্দিন বলেন,‘এধরনের ঘটনা আমার জানা নেই। তবে অভিযোগ পাওয়া গেলে অবশ্যই তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

সর্বশেষ