৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
বরিশাল বিভাগের সর্ববৃহৎ দুর্গাপূজার আয়োজন করেছে ‘রাজ মন্দির’ ! আব্দুল গফফার খান’র স্কুল জীবনে লেখা কবিতা ‘ইচ্ছে’ বরিশালে ডাকাতির স্বর্ণালঙ্কারসহ ২ জুয়েলারি ব্যবসায়ী গ্রেফতার বরিশালে প্রতিবন্ধী মেয়কে ধর্ষণ, সন্তানকে নিয়ে আত্মহত্যার হুমকি মায়ের বরিশালসহ ১৭ জেলায় ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনা, ৩ নাম্বার সংকেত প্রকাশ্য এলো মুন্না খান ও সাথী খানের 'জরালে কার মায়ায়' বাউফলে দুই ভাই ও এক বোনকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম মঠবাড়িয়ায় জাপা নেতাকে কুপিয়ে পা বিচ্ছিন্ন দক্ষিণাঞ্চল বাসীর পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ উজিরপুরে সড়কে দুর্ঘটনায় রোধে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করেন জেলা পুলিশ সুপার

বাবার আদর্শ বাস্তবায়নে কবিরাজ হোসেন মোল্লা এন্ড কোম্পানীর হাল ধরেছে রিপন

এস এম. জহিরুল ইসলাম: কবিরাজ হোসেন মোল্লা ছিলেন দক্ষিণাঞ্চলের একজন আধুনিক চিকিৎসা জগতের ভিন্নধারার সেবক। তিনি ইউনানী ও আয়ুর্বেদী চিকিৎসার মাধ্যমে মানবদেহের রোগবালাই থেকে রক্ষা পেতে গবেষণাধর্মী চিকিৎসা করে সফল হয়েছেন। কিন্তু কিছুদিন পূর্বে তিনি আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন না ফেরার দেশে। মোল্লা আসাদুজ্জামান রিপন কবিরাজ হোসেন মোল্লার সুযোগ্য সন্তান। তিনি পিতার সাথে সব সময় তার চিকিৎসার নানা কাজে সহযোগিতা করেছেন। কবিরাজ হোসেন মোল্লার চিকিৎসা পদ্ধতি নিজেই আয়ত্ব করে ফেলেছেন পাশে থাকতে থাকতে। মোল্লা আসাদুজ্জামান রিপন হোসেন মোল্লা এন্ড কোম্পানীর বাজার বিপননের পরিচালকের দায়িত্ব পালন করছেন দীর্ঘদিন ধরে। কোম্পানীর তৈরী পণ্য ও নিত্য সামগ্রী এখন পুরো বরিশালে গ্রাহকদের কাছে দিন দিন জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। কবিরাজ হোসেন মোল্লা ইউনানী ও আয়ুর্বেদ কলেজ প্রতিষ্ঠা অনেকটাই এগিয়ে নিয়েছিলে রিপন মোল্লার পিতা কবিরাজ হোসেন মোল্লা। কলেজ প্রতিষ্ঠার বাকী কাজ সমাপ্ত করতে ইতিমধ্যে পারিবারিক সিদ্ধান্ত মোতাবেক এগিয়ে চলছে কবিরাজ হোসেন মোল্লার সুযোগ্য সন্তান মোল্লা আসাদুজ্জামান। এছাড়াও কবিরাজ হোসেন মোল্লার অসংখ্য গুনগ্রাহী, শুভাকাংখী ও চিকিৎসা নিতে আসা ভক্তদের অনুরোধে রিপন মোল্লা দেশের অভিজ্ঞ কবিরাজদের সাথে নিয়ে বরিশাল জেলার উজিরপুর উপজেলার জয়শ্রী বাসস্ট্যান্ডে অবস্থিত কবিরাজ হোসেন মোল্লার ঐতিহ্যবাহী চেম্বারটি চালু রেখেছেন। রিপন মোল্লার পরিচালনায় প্রতি শুক্র ও শনিবার এখানে রোগীদের চিকিৎসা সেবা দেয়া হচ্ছে।
এ ব্যাপারো মোল্লা আসাদুজ্জামান রিপন বলেন, বাবার চিকিৎসা সেবার ঐতিহ্যকে ধরে রাখতে ও তার রেখে যাওয়া আদর্শকে সমুন্নত রাখতে আজীবন কাজ করে যাব। রিপন মোল্লা এ ব্যাপারে বলেন, আমার বাবা যেভাবে তার চিকিৎসা সেবা চালিয়ে যেতে প্রশাসন, গণমাধ্যম, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সাধারণ মানুষের সার্বিক সহযোগীতা পেয়েছে, আমিও সেইভাবে সকলের সহযোগিতায় এগিয়ে যেতে চাই।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ